Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

স্ত্রী-প্রেমিক মিলে খুন? গাইঘাটায় কবর থেকে দেহ তুলে ময়নাতদন্তে পাঠাল পুলিশ

উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটা থানার সুবিদপুরের বাসিন্দা আমিনুর মোল্লার (৪৬) মৃত্যু হয় ৪ সেপ্টেম্বর।

নিজস্ব সংবাদদাতা
গাইঘাটা ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৬:৩৪
কবর থেকে তোলা হচ্ছে দেহ।

কবর থেকে তোলা হচ্ছে দেহ।
নিজস্ব চিত্র।

প্রেমিকের সঙ্গে হাত মিলিয়ে স্বামীকে খুনের অভিযোগ উঠল স্ত্রীর বিরুদ্ধে। ষড়যন্ত্র করে খুনের অভিযোগে মৃত ব্যক্তির স্ত্রী এবং তাঁর প্রেমিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার কবর থেকে মৃতের দেহ তুলে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ।

উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটা থানার সুবিদপুরের বাসিন্দা আমিনুর মোল্লার (৪৬) মৃত্যু হয় ৪ সেপ্টেম্বর। স্বাভাবিক মৃত্যু ভেবেই প্রথা মেনে তাঁর দেহ কবর দেয় পরিবারের লোক। কিন্তু মৃত্যুর তিন দিন পর আমিনুরের পরিবারের লোকেরা একটি মোবাইল ফোন খুঁজে পান। সেই ফোন আমিনুরের স্ত্রী জোহরা মোল্লার। যদিও ওই ফোনের কথা আমিনুরের পরিবারের সদস্যরা জানতেন না। সেই ফোন থেকেই উন্মোচিত হয় রহস্য। মোবাইলের কল রেকর্ডিং শুনে মৃতের পরিবারের লোকেরা জানতে পারেন, পাশের গ্রামের বাবলু সর্দার নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে রয়েছে জোহরার। বাবলু এবং জোহরা পরিকল্পনা করে খাবারে বিষ মিশিয়ে আমিনুরকে খুন করেছেন বলে অভিযোগ তোলেন তাঁরা।

Advertisement

মঙ্গলবার রাতে গাইঘাটা থানায় এ নিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন আমিনুরের পরিবারের লোকেরা। আমিনুরকে খুনের পাশাপাশি তথ্যপ্রমাণ লোপাটের অভিযোগও তোলা হয়। অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামে পুলিশ। বুধবার জোহরা এবং বাবলু সর্দারকে গ্রেফতার করা হয়। বুধবার ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে কবর থেকে তোলা হয়েছে মৃত আমিনুরের দেহ। তার পর তা ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

চমৃত আমিনুরের ছেলে আরিফ মোল্লা বলেছেন, ‘‘বাবাকে খুন করার জন্য মা এবং বাবলু সর্দারের ফাঁসির দাবি করছি।’’

আরও পড়ুন

Advertisement