×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

নিউ নর্মালে কী ভাবে অফিস, আনন্দবাজার ডিজিটালে পড়ুন

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৩ জানুয়ারি ২০২১ ১৫:২৯
ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

টিকা এসে গিয়েছে। শনিবার থেকে টিকাকরণ শুরু হচ্ছে দেশ জুড়ে। টিকা দেওয়ার কাজ শুরু হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গেও। প্রথম পর্যায়ে কোভিড-যোদ্ধাদের টিকা দেওয়া হবে। তার পর পর্যায়ক্রমে টিকা দেওয়া হবে সাধারণ মানুষকে। টিকা এসে যাওয়ার পর বিভিন্ন বেসরকারি অফিসে ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’-এরও দিন শেষ। ফেব্রুয়ারি থেকে অধিকাংশ অফিসে আসতে বলা হয়েছে কর্মীদের। কিন্তু সেই অফিসে কাজ করাও আর আগের মতো থাকবে না। মানতে হবে ‘নিউ নর্মাল’-এর নতুন নিয়ম। কেমন হবে সেই নিয়মাবলি। জানাচ্ছে আনন্দবাজার ডিজিটাল।

কেউ দেখা করতে চাইলে ১০০ শতাংশ স্পর্শরহিত পদ্ধতিতে তাঁকে ‘ভার্চুয়াল ভিজিটার্স লবি’-তে এনে বসাতে হবে। দর্শনার্থীরা তাঁদের মোবাইলে কিউ-আর কোড স্ক্যান করে সেখানে ঢুকবেন। দ্বিতীয়ত, প্রবেশপথে দর্শনার্থীদের দেহের তাপমাত্রা মাপার জন্য স্ক্যান মেশিন বসাতে হবে। নিরাপত্তারক্ষীদের বলতে হবে ভাল করে মাস্ক পরীক্ষা করার জন্য। তাঁরা ছাড়পত্র দিলে তবেই দর্শনার্থীদের অফিসে ঢুকতে দেওয়া হবে। প্রত্যেক দর্শনার্থীকে ‘আরোগ্য সেতু’ অ্যাপে নিজেদের শরীরের অবস্থা সম্পর্কে কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে হবে। কেউ সন্দেহভাজন হলে সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষীদের সতর্ক হতে হবে। দর্শনার্থীদের প্রত্যেকে সম্প্রতি কোথায় কোথায় গিয়েছেন, তা-ও পরীক্ষা করতে হবে।

কোভিড ১৯ সুরক্ষাবিধি সম্পর্কে সকলকে অবহিত করাতে হবে। স্যানিটাইজেশন প্রক্রিয়া কঠোর ভাবে মানতে হবে। কনট্যাক্ট ট্রেসিংয়ের ক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) গাইডলাইন মেনে চলতে হবে। যাঁরা অফিসে ঢুকবেন, তাঁদের প্রত্যেকের শারীরিক পরিস্থিতি সম্পর্কে পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে কর্তৃপক্ষকে অবহিত থাকতে হবে। কোনও আপৎকালীন পরিস্থিতি তৈরি হলে কর্মী এবং দর্শনার্থীদের কয়েক মুহূর্তে তা জানিয়ে দিয়ে সতর্ক করার মতো অভ্যন্তরীণ টেক্সট মেসেজ অথবা ইমেল সার্ভিসের ব্যবস্থা রাখতে হবে।

Advertisement



গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

আরও পড়ুন: কোভিড টিকা কারা, কী ভাবে পাবেন, আনন্দবাজার ডিজিটালে পড়ে নিন

সংক্রমণ আটকানোর জন্য কর্মীদের হাজিরায় বায়োমেট্রিক পদ্ধতি ব্যবহার করা নৈব নৈব চ। বদলে মুখের ছবি মিলিয়ে দেখা সংক্রান্ত হাজিরা পদ্ধতি চালু করতে হবে। কর্মীদের দেহের তাপমাত্রার পরিমাপ তো বটেই, তাঁদের শারীরিক পরিস্থিতি এবং সুরক্ষাবিধি সম্পর্কে কর্তৃপক্ষকে সর্বদা অবহিত থাকতে হবে এবং প্রয়োজনে সে সম্পর্কে অন্যদেরও অবগত করাতে হবে।

Advertisement