Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৬ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

জেভিয়ার্সের পরেই মেদিনীপুর কলেজের ঠাঁই

সোমবারই প্রাপ্ত নম্বরের কথা জানতে পেরেছেন মেদিনীপুর কলেজ কর্তৃপক্ষ। তার পর থেকেই খুশির হাওয়া।

নিজস্ব সংবাদদাতা
মেদিনীপুর ০১ নভেম্বর ২০১৭ ০৩:২৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

কলকাতার অন্যতম সেরা কলেজ সেন্ট জেভিয়ার্স। নাক-এর মূল্যায়নে সেই সেন্ট জেভিয়ার্সের সঙ্গে সমানে টক্কর দিল মেদিনীপুর কলেজ। ফলাফলেও জেভিয়ার্সের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে মেদিনীপুরের স্বশাসিত কলেজটি। তৃতীয় পরিদর্শন শেষে প্রাপ্ত পয়েন্টের নিরিখে পূর্ব ভারতে এখন মেদিনীপুর কলেজের স্থান দ্বিতীয়, আর দেশের মধ্যে সপ্তম। সেখানে ৩.৭১ পয়েন্ট পেয়ে পূর্ব ভারতে প্রথম স্থানে রয়েছে কলকাতার সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ।

সোমবারই প্রাপ্ত নম্বরের কথা জানতে পেরেছেন মেদিনীপুর কলেজ কর্তৃপক্ষ। তার পর থেকেই খুশির হাওয়া। অধ্যক্ষ গোপালচন্দ্র বেরা বলেন, ‘‘এই সময়ের মধ্যে কলেজের পরিকাঠামোর উন্নতি হয়েছে। আরও কিছু পরিকল্পনা রয়েছে। ধীরে ধীরে সেগুলো রূপায়িত হবে।’’

চলতি বছরের ১১-১২ সেপ্টেম্বর মেদিনীপুর কলেজ পরিদর্শন করে ‘ন্যাশনাল অ্যাসেসমেন্ট অ্যান্ড অ্যাক্রেডিটেশন’ (নাক)-এর পরিদর্শক দল। তাদের জমা দেওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতেই ইউজিসি-র এগ্‌জিকিউটিভ কাউন্সিল গ্রেড নির্ধারণ করেছে। এর আগে ২০০৪ এবং ২০১১-য় কলেজে নাক-এর পরিদর্শন হয়। ২০০৪-এ এ-প্লাস গ্রেড পায় এই কলেজ। ইউজিসি-র থেকে ‘কলেজ উইথ পোটেনশিয়াল ফর এক্সিলেন্স’ (সিপিই) স্বীকৃতিও মিলেছিল। পরে গ্রেড প্রথা উঠে যায়, পয়েন্ট প্রথা চালু হয়।

Advertisement

২০১৪ সালে মেদিনীপুর কলেজ স্বশাসিত হয়েছে। ফলে, এখন এই কলেজ আর কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নেই। ইউজিসি-র নির্দেশিকা মেনে কলেজ পরিচালন সমিতিই যাবতীয় সিদ্ধান্ত নেয়। পরিচালন সমিতিতে অধ্যক্ষ, সরকার মনোনীত সদস্য ছাড়াও রয়েছেন ছাত্র প্রতিনিধিরা। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় শুধু ডিগ্রিটাই দেয়। কর্তৃপক্ষের ইচ্ছে, এই স্বশাসিত কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করা, আরও একটা ক্যাম্পাস খোলা। সেখানে স্নাতকোত্তর বিভাগগুলো চলে যাবে। ইতিমধ্যে এ ব্যাপারে পদক্ষেপ শুরু হয়েছে। ১৮৭৩ সালে পথ চলা শুরু হয়েছিল মেদিনীপুর কলেজের। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কলকাতার বাইরে প্রথম কোনও কলেজ হিসেবে মেদিনীপুর কলেজকেই অনুমোদন দিয়েছিল। স্বাধীনতার পরে ১৯৫৬ সালে কলেজটি ‘গভর্নমেন্ট স্পনসরড’ হয়। উচ্চশিক্ষার ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেনে একের পর এক বিভাগ খোলা হয়। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে ওঠার পরে ১৮৮৫ সালে মেদিনীপুর কলেজ এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আসে।

পরিদর্শনে ঠিক কী কী খতিয়ে দেখে নাক-এর দল? কলেজ সূত্রে খবর, সব কিছুই খতিয়ে দেখা হয়। গতবার পরিদর্শক দল যে সব পরামর্শ দিয়েছিল, সেগুলো ঠিকঠাক মানা হয়েছে কি না তাও দেখেছে। সব বিভাগ পরিদর্শন করেছে, ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছে।

কলেজের অধ্যাপক সুধীন্দ্রনাথ বাগ বলছিলেন, “নাক-এর মূল্যায়নের ফল ভালই হয়েছে। আমরা খুশি।’’ কলেজের অন্য এক অধ্যাপকের কথায়, “এখন এই কলেজকে রাজ্যের সেরা কলেজ হিসেবে গড়ে তোলাই আমাদের সকলের লক্ষ্য।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Tags:
NAAC Midnapore College St. Xavier's Collegeন্যাকসেন্ট জেভিয়ার্সমেদিনীপুর কলেজ
Something isn't right! Please refresh.

Advertisement