Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Adhir Chowdhury: সিএএ-এনআরসি ভোট এলেই পণ্য, পাল্টা সরব অধীর

কংগ্রেসের মতে, বিজেপির পরিবারতন্ত্রকে খতম করার আহ্বানের নিশানা আসলে গান্ধী পরিবারই।

নিজস্ব সংবাদদাতা
০৫ জুলাই ২০২২ ০৫:৪২
Save
Something isn't right! Please refresh.
ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

Popup Close

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ), পরিবারতন্ত্র বা রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার প্রশ্নে বিজেপিকে এ বার পাল্টা আক্রমণ করলেন লোকসভায় বিরোধী দলের নেতা তথা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। হায়দরাবাদে বিজেপির সদ্যসমাপ্ত জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে গৃহীত প্রস্তাবে নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) প্রসঙ্গ রাখা হয়নি। বিধান ভবনে সোমবার এই প্রসঙ্গে অধীরবাবুর মন্তব্য, ‘‘বিজেপির কাছে সিএএ-এনআরসি ভোটের পণ্য। ভোট এলেই আবার ওরা ওই প্রসঙ্গ খুঁচিয়ে তুলবে! নাগরিকত্ব আইন পাশ হয়ে গিয়েছে আড়াই বছরের বেশি। ওদের হাতে সংখ্যাগরিষ্ঠতা আছে, সেই আইন কার্যকর করেনি কেন? ভোট এলেই দেখা যাবে আবার একই কথা বলছে!’’

বাংলার আইনশৃঙ্খলা নিয়ে হায়দরাবাদে সরব হয়েছেন নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহেরা। দেশে মোদীর নেতৃত্বে ‘সুশাসন’ চলছে আর এ রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজত্বে ‘কুশাসন’ চলছে বলে দাবি করে বর্ধমানের মেমারিতে এ দিনই বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হায়দরাবাদে দলের কার্যবিবরণীত উল্লেখ করেছেন—পশ্চিমবঙ্গ একমাত্র রাজ্য, যেখানে হিংসাযুক্ত রাজনীতি আর ভয়-আতঙ্কের পরিবেশ রয়েছে। তাই আমরা স্লোগান রেখেছি যে, হিংসামুক্ত রাজনীতি, ভয়মুক্ত পশ্চিমবঙ্গ গড়তে হবে। তার জন্য লাগাতার সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে জল্লাদ-অত্যাচারী, জেহাদিদের সরকারকে উপড়ে ফেলে দিতে হবে বঙ্গপোসাগরে!’’ অধীরবাবুর এ দিন পাল্টা বক্তব্য, ‘‘বাংলায় আইনশৃঙ্খলা যে খারাপ, খুন-জখম লেগেই রয়েছে, রাজনৈতিক হত্যাও চলছে— এ সব নিয়ে আমরা বারবারই বলেছি। কিন্তু বিজেপি কোন মুখে এই নিয়ে কথা বলে? বিজেপি-শাসিত রাজ্যগুলির হাল কী, ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস বুরোর (এনসিআরবি) রিপোর্ট দেখলেই বোঝা যাবে! ওদের উত্তরপ্রদেশই তো খুন, ধর্ষণ, এনকাউন্টারের রাজধানী!’’

কংগ্রেসের মতে, বিজেপির পরিবারতন্ত্রকে খতম করার আহ্বানের নিশানা আসলে গান্ধী পরিবারই। অধীরবাবুর কথায়, ‘‘গান্ধী পরিবার শুধু একটা পরিবার নয়। দেশের রাজনীতি ও সংস্কৃতিতে তারা অবিচ্ছেদ্য ভাবে মিশে আছে। স্বাধীনতা সংগ্রামে ভূমিকা ছিল, এক পরিবার থেকে দু’জন প্রধানমন্ত্রী প্রাণ দিয়েছেন। বিজেপি থেকে এমন এক জনের কথাও বলতে পারবেন?’’ তাঁর কটাক্ষ, ‘‘স্বাধীনতা সংগ্রামে যারা ব্রিটিশের দালালি করা করেছে, তাদের কাছে এ সব কথা শুনতে চাই না!’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement