Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

বিধানচন্দ্রের মূর্তি ভাঙায় দুষ্কৃতীরা অধরাই, অবরোধ

নিজস্ব সংবাদদাতা
বুদবুদ ২৫ নভেম্বর ২০১৯ ০৩:১০
অবরোধ তুলছে পুলিশ। রবিবার বুদবুদ বাজারের রাস্তায়। নিজস্ব চিত্র

অবরোধ তুলছে পুলিশ। রবিবার বুদবুদ বাজারের রাস্তায়। নিজস্ব চিত্র

বিধানচন্দ্র রায়ের মূর্তি ভাঙার ঘটনার পরে পেরিয়ে গিয়েছে গোটা একটা সপ্তাহ। এখনও ঘটনায় জড়িত কাউকে ধরতে পারেনি পুলিশ। দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের দাবিতে রবিবার বুদবুদ বাজারে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা। এখনও কেউ ধরা না পড়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানান তাঁরা। এ দিন বিক্ষোভরত কংগ্রেস নেতা-কর্মীদের আটক করা হয়। পুলিশের অবশ্য দাবি, তদন্ত চলছে।

১৭ নভেম্বর সকালে স্থানীয় বাসিন্দারা দেখেন, মানকরে কংগ্রেসের কার্যালয়ের সামনে থাকা বিধানচন্দ্র রায়ের আবক্ষ মূর্তিটি নেই। কিছুটা দূরে সেটির কিছু ভাঙা অংশ মেলে। রাতের অন্ধকারে মূর্তিটি জায়গা থেকে তুলে নিয়ে রাস্তার উপরে ভেঙে ফেলা হয়েছে বলে অনুমান এলাকাবাসীর। এর প্রতিবাদে কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা মানকর স্টেশন রোডে অবরোধ করেন। তাঁরা অভিযোগ করেন, ঘটনার আগের দিন বিজেপি কলকাতায় দলের প্রদেশ দফতরে হামলা চালিয়েছিল। মানকরেও মূর্তি ভাঙার পিছনে রয়েছে ‘বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা’। যদিও তা অস্বীকার করে বিজেপি।

কংগ্রেস নেতা দেবেশ চক্রবর্তী এ দিন দাবি করেন, ঘটনার পরেই পুলিশ দ্রুত দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছিল। কিন্তু এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও কাউকেই ধরতে পারেনি পুলিশ। তিনি বলেন, ‘‘প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর মূর্তি ভাঙচুর লজ্জার বিষয়। তবু পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারছে না।’’ এ দিন সকালে বুদবুদ বাজার এলাকায় মিছিল করেন কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা। একটি প্রতিবাদসভাও করা হয়। পরে বুদবুদ বাজারে রাস্তা অবরোধ শুরু করেন তাঁরা। রাস্তার উপরেই বসে পড়েন নেতা-কর্মীরা। বুদবুদ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অবরোধ তোলার চেষ্টা করে। পরে অবরোধকারীদের আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ। গোটা ঘটনার জেরে ঘণ্টাখানেক রাস্তা অবরুদ্ধ থাকে। যানজট তৈরি হয়। পুলিশের অবশ্য আশ্বাস, তদন্ত এগোচ্ছে। দ্রুত দোষীদের গ্রেফতার করা হবে।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement