×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

তৃণমূলের পার্টি অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ ঘিরে উত্তপ্ত বর্ধমান

নিজস্ব সংবাদদাতা
বর্ধমান ২৭ ডিসেম্বর ২০২০ ১১:৩৪
তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে বর্ধমানে আহত কয়েক জন রাজনৈতিক কর্মী। নিজস্ব চিত্র।

তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে বর্ধমানে আহত কয়েক জন রাজনৈতিক কর্মী। নিজস্ব চিত্র।

ফের রাজনৈতিক অশান্তি বর্ধমান পুরসভায়। এ বার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের বটতলায় তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হল এলাকা। বিবদমান ২ দলের সংঘর্ষে কয়েক জন জখম হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। গোটা ঘটনার জন্য একে অপরকে দোষারোপ করেছে তৃণমূল এবং বিজেপি।

বিজেপির জেলা যুব মোর্চার সভাপতি শুভম নিয়োগীর অভিযোগ, বটতলা এলাকায় তাঁদের দলীয় পতাকা খুলে দেন তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা। প্রতিবাদ করলে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালান তৃণমূল কর্মীরা। তৃণমূলের হামলায় ২ জন বিজেপি কর্মী জখম হয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি।

পাল্টা বিজেপির বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ তুলেছে তৃণমূলও। দলের জেলা সাধারণ সম্পাদক খোকন দাস বলেন, “রাতের অন্ধকারে নেশা করে তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ে হামলা করছে কয়েক জন। আমাদের পার্টি অফিসে ভাঙচুর করেছে। পুলিশ এসেছে। যদি পুলিশ কোনও ব্যবস্থা না নেয় তবে তৃণমূল কর্মীরাও বুঝিয়ে দেবেন তাঁরা হাত গুটিয়ে বসে থাকবেন না।” শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য তাঁরা কিছু করছেন না বলেও দাবি করেন তিনি।

Advertisement

১২ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল নেতা অনন্ত মণ্ডল বলেন, “ক্যানেল পাড়ে বিজেপি কর্মীদের মদ খাওয়ার ডেরা আছে। রাতে ওখানে মদ খেয়ে তৃণমূল পার্টি অফিসে ভাঙচুর করে পালিয়ে গিয়েছে। সামনাসামনি লড়াই করার ক্ষমতা নাই।” একই দাবি করেন তৃণমূলের জেলা যুব সভাপতি রাসবিহারী হালদার। তিনিও বলেন, “যদি পুলিশ প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা না নেয় তা হলে আমরাও পাল্টা আঘাত করব।”

তৃণমূল নেতাদের এই হুমকির পাল্টা হুঁশিয়ারি দিয়ে শুভম বলেন, পুলিশ নিরপেক্ষ থাকুক। তাঁরা তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের দেখে নেবেন। তাঁর আরও অভিযোগ, পুলিশ শাসক দলের নেতাদের কথায় চলছে।

Advertisement