Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

দুর্গাপুরে করোনায় মৃতদের দেহ দাহ হবে আসানসোলে

সোমবার থেকে আপাতত এক মাসের জন্য বীরভানপুর শ্মশান বন্ধ থাকবে। দুর্গাপুর মহকুমার পাণ্ডবেশ্বর এবং দুর্গাপুর-ফরিদপুর ব্লক এলাকায় করোনায় মৃতদের দ

নিজস্ব সংবাদদাতা
দুর্গাপুর ১২ অক্টোবর ২০২০ ০০:৪৫
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

আজ, সোমবার থেকে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য আপাতত বীরভানপুর শ্মশানের বৈদ্যুতিক চুল্লি বন্ধ থাকবে জানিয়ে শনিবার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল দুর্গাপুর পুরসভা। এই সময়ে কাঠের চুল্লিতে দাহ করতে হবে বলে জানানো হয়। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে করোনায় মৃতদের দেহ কোথায় দাহ করা হবে তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছিল। তবে, রবিবার মহকুমাশাসকের (দুর্গাপুর) কার্যালয় থেকে জারি করা নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, করোনায় মৃতদের দেহ দাহ করার জন্য আসানসোলে পাঠানো হবে।

বীরভানপুর শ্মশানে দিনভর করোনা বাদে অন্য কোনও কারণে মৃতদের দেহ পোড়ানো হয়। রাত ১২টার পরে করোনায় মৃতদের দেহ দাহ করা হয়। শ্মশানে বৈদ্যুতিক চুল্লির পাশে দামোদরের পাড়ে নির্দিষ্ট জায়গা রয়েছে কাঠের জ্বালানিতে দেহ দাহ করার জন্য। এখন সেখানেই দেহ দাহ করতে হবে বলে পুরসভার বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। কাঠ শবযাত্রীদের নিজেদেরই জোগাড় করতে হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। এর ফলে শবযাত্রীদের চরম সমস্যায় পড়তে হবে বলে মনে করছেন অনেকেই। কারণ, করোনা পরিস্থিতিতে কাঠ জোগাড় করাটা বেশ সমস্যার।

পুরসভার বিজ্ঞপ্তিতে করোনায় মৃতদের দেহ দাহ করার ব্যাপারে কিছু বলা হয়নি। এর ফলে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছিল। রবিবার মহকুমাশাসক (দুর্গাপুর) অনির্বাণ কোলে নির্দেশিকা জারি করে জানান, সোমবার থেকে আপাতত এক মাসের জন্য বীরভানপুর শ্মশান বন্ধ থাকবে। দুর্গাপুর মহকুমার পাণ্ডবেশ্বর এবং দুর্গাপুর-ফরিদপুর ব্লক এলাকায় করোনায় মৃতদের দেহ দাহ করার ব্যবস্থা রয়েছে। ওই এক মাস দুর্গাপুর পুর-এলাকা এবং মহকুমার বাকি অংশের করোনায় মৃতদের দেহ আসানসোল উত্তর থানার কাল্লা এবং হিরাপুর থানার কালাঝরিয়ায় দাহকাজের জন্য পাঠানো হবে বলে নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে।

Advertisement

দুর্গাপুর মহকুমা প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে,আসানসোলের দুই শ্মশানে যাতে চাপ না পড়ে সেজন্য দুর্গাপুর থেকে পরিস্থিতি বুঝে দেহ পাঠানো হবে। সে ক্ষেত্রে দেহ দুর্গাপুরে মর্গে রাখার ব্যবস্থা করতে হতে পারে। কিছু বেসরকারি হাসপাতালে মর্গ রয়েছে। অন্য হাসপাতালগুলিতে নেই। সেই হাসপাতালগুলিতে আপাতত শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অস্থায়ী মর্গ গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। মহকুমাশাসক (দুর্গাপুর) অনির্বাণ কোলে বলেন, ‘‘আসানসোলের পুলিশ-প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় রেখে কাজ করবে দুর্গাপুরের পুলিশ-প্রশাসন। নির্দিষ্ট সরকারি বিধি মেনেই করোনায় মৃতদের দেহ দাহ করার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে।’’

আরও পড়ুন

Advertisement