×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৫ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

সর্বমঙ্গলা মন্দিরে শুরু নবান্ন উৎসব, করোনা আবহেও হবে ভোগ বিলি

নিজস্ব সংবাদদাতা
বর্ধমান ২৯ নভেম্বর ২০২০ ১৭:৪৮
ভক্তসমাগম মন্দিরে। —নিজস্ব চিত্র।

ভক্তসমাগম মন্দিরে। —নিজস্ব চিত্র।

কোভিড বিধি মেনেই নবান্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন হল বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দিরে। বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দির দক্ষিণবঙ্গের অন্যতম পীঠস্থান। এখানে দেবী সর্বমঙ্গলারূপে পূজিতা হন। এই মন্দির ঘিরে অনেক কাহিনিও শোনা যায়। রাজা তেজচন্দ্রের আমলে মন্দিরটির পত্তন হয়। তার আগে জেলেবাড়ির মেছেনিরা এই মূর্তির উপর গুগলি, শামুক ভাঙতেন বলে শোনা যায়। স্বয়ং রামকৃষ্ণ এই মন্দিরে এসেছেন বলে কথিত আছে। কোভিড আবহের কারণে টানা ছ’মাস মন্দিরের গেটে তালা পড়েছিল। আনলক পর্ব শুরু হওয়ার পর ধীরে ধীরে সব কিছু স্বাভাবিক হতেই কোভিড নির্দেশিকা মেনে মন্দিরের ফটক খুলে গিয়েছে। তার পরই রবিবার সেখানে নবান্ন উৎসব পালিত হল।

তবে কোভিডের ফাঁড়া এখনও কাটেনি। তাই মন্দির চত্বরে কড়া সতর্কতা রয়েছে। সংক্রমণ এড়াতে তৈরি করা হয়েছে স্যানিটাইজার টানেল। মাস্ক ছাড়া মন্দিরে প্রবেশের অনুমতি নেই কারও। ‘স্বাস্থ্য আগে, শাস্ত্র পরে’ নীতি নিয়েই এ বারের উৎসব করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। মন্দির ট্রাস্টের সম্পাদক সঞ্জয় ঘোষ বলেন, ‘‘সর্বমঙ্গলা মন্দির থেকেই গোটা রাঢ়বঙ্গে নবান্নের সূচনা হল। কোভিডের জন্য এত দিন ভোগ বিলি বন্ধ ছিল। আজই প্রথম সাধারণের জন্য ভোগ বিলি করা হবে। তবে অন্য বছরের তুলনায় তা সংখ্যায় কম। এ বার সবমিলিয়ে ৮০০ ভক্তকে ভোগ বিলি করা হবে। কোভিড বিধি মেনে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই সব কিছুর আয়োজন করা হয়েছে।’’ তবে মন্দির চত্বরে লোক বসিয়ে ভোগ খাওয়ানোর রীতি এ বারে বন্ধ রাখা হয়েছে।

Advertisement
Advertisement