Advertisement
২৮ মে ২০২৪
SSC Recruitment Case

এসএসসি বা পর্ষদ সাহায্য করছে না: সিআইডি।। না করলে ওদের দফতরে তালা মেরে দিন: হাই কোর্ট

মুর্শিদাবাদের সুতির গোঠা এআর হাই স্কুলে শিক্ষকের নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। সেই মামলার তদন্তভার সিআইডিকে দিয়েছিলেন কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু।

কলকাতা হাই কোর্ট।

কলকাতা হাই কোর্ট। —ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৮:২৮
Share: Save:

স্কুল সার্ভিস কমিশন এবং মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কাছ থেকে সাহায্য পাওয়া না গেলে তাদের দফতরে তালা মেরে দেওয়া উচিত। গোঠা এআর হাই স্কুলের মামলায় এমনটাই মন্তব্য করেছে কলকাতা হাই কোর্ট। সেই সঙ্গে সিআইডিকেও তদন্তের গতি বৃদ্ধি করতে বলা হয়েছে। এফআইআরে যাঁদের নাম রয়েছে, দ্রুত তাঁদের গ্রেফতার করতে বলেছে আদালত।

শিক্ষক নিয়োগ ‘দুর্নীতি’কাণ্ডে মুর্শিদাবাদের সুতির গোঠা এআর হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আশিস তিওয়ারিকে গ্রেফতার করেছিল সিআইডি। অভিযোগ, আশিস স্কুলে অন্য শিক্ষকের নিয়োগপত্র জাল করে নিজের পুত্র অনিমেষকে চাকরি পাইয়ে দিয়েছেন। এই মর্মে কলকাতা হাই কোর্টে মামলা হয়েছিল। বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু সেই ঘটনায় সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ দেন। অনিমেষের বেতন বন্ধ করার নির্দেশও তিনি দিয়েছিলেন।

বুধবার হাই কোর্টে সেই মামলার শুনানি ছিল। সিআইডি সেখানে জানায়, তদন্তের স্বার্থে এসএসসি এবং পর্ষদের দ্বারস্থ হয়েছিল তারা। কিন্তু সেখান থেকে অনেক ক্ষেত্রেই প্রয়োজনীয় সাহায্য পাওয়া যাচ্ছে না। এর পরেই বিচারপতি বসুর মন্তব্য, ‘‘এসএসসি, পর্ষদের অফিসে তালা মেরে দিন। এরাই তথ্যপ্রমাণ নষ্ট করছে।

বিচারপতি জানান, সিআইডির তদন্তের উপর আদালতের আস্থা রয়েছে। কিন্তু এফআইআরে নাম থাকা ব্যক্তিদের কেন এখনও সিআইডি গ্রেফতার করেনি, তার ব্যাখ্যা চায় আদালত। সিআইডির আইনজীবীর উদ্দেশে বিচারপতির প্রশ্ন, ‘‘এফআইআরে নাম থাকা অভিযুক্তদের যদি গ্রেফতার করা না হয়, তা হলে কী তদন্ত হচ্ছে? কমিশন বা পর্ষদের থেকে যদি কোনও নথি পাওয়া না যায়, তা হলে সরাসরি স্কুলে যান। সেখান থেকে নথি সংগ্রহ করুন। এটা কি বড় কোনও কাজ?’’

সিআইডিকে ভর্ৎসনা করে বিচারপতির মন্তব্য, ‘‘আমি কি এখানে বসব, না কি আপনাদের আসনে গিয়ে বসব?’’ একইসঙ্গে যাঁদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে, তাঁদের বেতন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত ফেরত নেওয়া যায় কি না, তা বিবেচনা করে দেখার নির্দেশ রাজ্যকে দিয়েছেন বিচারপতি বসু।

বুধবার এই মামলায় সিআইডি-র ডিআইজিকে তলব করেছিল হাই কোর্ট। কিন্তু তিনি হাজিরা দিতে পারেননি। বর্তমানে তিনি কলকাতার বাইরে আছেন। আদালতের কাছ থেকে আরও ১৫ দিন সময় চান তদন্তকারী সংস্থার আইনজীবী। আগামী সোমবার এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE