Advertisement
০৪ ডিসেম্বর ২০২২
chief minister

Mamata Banerjee: ‘নতুন’ বর্ধমান কলকাতাকেও হার মানাবে, দাবি মুখ্যমন্ত্রী মমতার

কৃষি এবং শিল্পের সমন্বয়ে দুরন্ত গতিতে এগিয়ে চলেছে দুই বর্ধমানই। বর্ধমানে গিয়ে এমনটাই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

দুই বর্ধমানের ভূয়সী প্রশংসা করলেন মমতা।

দুই বর্ধমানের ভূয়সী প্রশংসা করলেন মমতা। ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
পূর্ব বর্ধমান শেষ আপডেট: ২৭ জুন ২০২২ ১৮:১৪
Share: Save:

বর্ধমানের জন্যই দু’মুঠো খাবার মুখে তোলেন সবাই। কৃষি এবং শিল্পের সমন্বয়ে উত্তরোত্তর শ্রীবৃদ্ধি হচ্ছে ওই জেলা দু'টির। সোমবার বর্ধমান শহরে কৃষকবন্ধু প্রকল্পের অনুষ্ঠানে এমনই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি, তিনি এ-ও জানান, অদূর ভবিষ্যতে কলকাতাকেও হার মানাবে বর্ধমান।

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ‘‘বর্ধমান নতুন শেপে কলকাতাকেও হার মানিয়ে দেবে আপনাদের (বর্ধমানের মানুষ) কাজ এবং সাহসের জন্য। কৃষি এবং শিল্পের মেলবন্ধনের মাধ্যমে বর্ধমানকে এগিয়ে যেতে হবে।’’ তাঁর আরও সংযোজন, ‘‘গর্ব করে বলুন, আমি ভাতারে থাকি, আমি কালনায় থাকি, আমি কাটোয়ায় থাকি, আমি বর্ধমানে থাকি। আমরা বর্ধমান জেলার বাসিন্দা। এ ভাবেই বর্ধমান এগিয়ে চলুক।’’

বর্ধমানবাসীর প্রশংসা করে মুখ্যন্ত্রী বলেন, ‘‘আপনাদের সবুজ মন। মাটির লোক যাঁরা, তাঁদের মনও রাঙা মাটির মতো। চাষবাস করেন হাসিমুখে। আসলে কৃষক না ফসল ফলালে আমাদের দু’বেলা খাবার জুটত না।’’ বলেন, ‘‘বর্ধমানের ল্যাংচা, সীতাভোগ এবং মিহিদানা বিশ্বের গর্ব। আমি চাই, বড় বড় হোটেল এবং দোকান তৈরি হোক বর্ধমানে।’’ এর পর বর্ধমানের জন্য বেশ কিছু প্রকল্পের সম্ভাবনার কথা বলে তিনি জানান কালনার সঙ্গে শান্তিপুরের সংযোগ ঘটাতে নতুন সেতু তৈরি হবে। মুখ্যমন্ত্রীর সংযুক্তি, ‘‘অনেক কাজ হয়েছে। আরও কাজ হবে। ভাবতেও পারবেন না, এত কাজ কখন হল!’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.