×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ মে ২০২১ ই-পেপার

রাজ্যে সংক্রমণের হার ঊর্ধ্বমুখী, আশা জাগিয়ে সামান্য বাড়ল সুস্থতার হার

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৬ অক্টোবর ২০২০ ২০:৪৬
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

রাজ্যে দাপট বাড়িয়ে চলেছে করোনাভাইরাস। সোমবার ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা না বাড়লেও সংক্রমণের হার এখনও ঊর্ধ্বমুখী। আক্রান্তের সংখ্যা সামান্য কমলেও টেস্টও কম হয়েছে। ফলে উদ্বেগ কমছে না রাজ্য প্রশাসনের। পাশাপাশি দুর্গোৎসবে রাস্তায় মানুষের ঢল এবং ঘাটে ঘাটে প্রতিমা নিরঞ্জনের যে ছবি ধরা পড়েছে, তাতে সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে সুস্থতার হার সামান্য বৃদ্ধি পাওয়ায় সামান্য স্বস্তির রেখা দেখা যাচ্ছে।

Advertisement

সোমবারও নতুন সংক্রমণ ৪ হাজারের উপরে। এ দিন স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৪ হাজার ১২১ জন। ২০ অক্টোবর থেকে এই নিয়ে টানা এক সপ্তাহ এক দিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজারের উপরে। রবিবারের বুলেটিনে ২৪ ঘণ্টায় কোভিড পজিটিভ রিপোর্ট এসেছিল ৪ হাজার ১২৭ জনের। রাজ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ ছিল ২২ অক্টোবর, ৪ হাজার ১৫৭ জনের। এই নিয়ে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৩ লক্ষ ৫৩ হাজার ৮২২। গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন কলকাতায়, ৮৯২ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় আক্রান্ত ৮৮৯।

সোমবারও নতুন সংক্রমণ ৪ হাজারের উপরে। এ দিন স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৪ হাজার ১২১ জন। ২০ অক্টোবর থেকে এই নিয়ে টানা এক সপ্তাহ এক দিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজারের উপরে। রবিবারের বুলেটিনে ২৪ ঘণ্টায় কোভিড পজিটিভ রিপোর্ট এসেছিল ৪ হাজার ১২৭ জনের। রাজ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ ছিল ২২ অক্টোবর, ৪ হাজার ১৫৭ জনের। এই নিয়ে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৩ লক্ষ ৫৩ হাজার ৮২২। গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন কলকাতায়, ৮৯২ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় আক্রান্ত ৮৮৯।

(গ্রাফের উপর হোভার টাচ করলে দিনের পরিসংখ্যান দেখা যাবে)

গত কয়েক দিন ধরেই রাজ্যে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার ঊর্ধ্বমুখী। সোমবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। সংখ্যার চেয়েও করোনা সংক্রমণের প্রবণতা বুঝতে এই সংক্রমণের হার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কোনও একটি এলাকায় ২৪ ঘণ্টায় যত জনের কোভিড টেস্ট করা হয় এবং তার মধ্যে প্রতি ১০০ জনে যত জনের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকেই ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। সোমবারের বুলেটিন অনুযায়ী এই হার ৯.৭৬ শতাংশ। রবিবার এই হার ছিল ৯.৭০ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে টেস্ট হয়েছে ৪২ হাজার ২৩১। রবিবার এই সংখ্যা ছিল ৪২ হাজার ৫৩৮।

গত কয়েক দিন ধরেই রাজ্যে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার ঊর্ধ্বমুখী। সোমবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। সংখ্যার চেয়েও করোনা সংক্রমণের প্রবণতা বুঝতে এই সংক্রমণের হার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কোনও একটি এলাকায় ২৪ ঘণ্টায় যত জনের কোভিড টেস্ট করা হয় এবং তার মধ্যে প্রতি ১০০ জনে যত জনের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকেই ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। সোমবারের বুলেটিন অনুযায়ী এই হার ৯.৭৬ শতাংশ। রবিবার এই হার ছিল ৯.৭০ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে টেস্ট হয়েছে ৪২ হাজার ২৩১। রবিবার এই সংখ্যা ছিল ৪২ হাজার ৫৩৮।

আরও পড়ুন: প্রবীণদের উপর অসাধারণ কাজ করছে অক্সফোর্ডের টিকা, দাবি রিপোর্টে

দুশ্চিন্তা বাড়ছে মৃত্যুর প্রবণতাতেও। সোমবারের বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৯ জনের। রবিবার এই সংখ্যা ছিল ৬০। এই নিয়ে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৬ হাজার ৫৪৬। রাজ্যের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে উত্তর ২৪ পরগনায় (১৫)। কলকাতায় এই সংখ্যা ১৪। ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। পশ্চিম মেদিনীপুরে মারা গিয়েছেন ৬ জন এবং হাওড়ায় ৫ জন।

আরও পড়ুন: অসুস্থ বুদ্ধদেবের ছবি টুইট করে সমালোচিত, তবু নির্বিকার রাজ্যপাল

করোনা যুদ্ধে রাজ্য প্রশাসনের একমাত্র স্বস্তির জায়গা ছিল সুস্থতার হার বৃদ্ধি। কিন্তু গত কয়েক দিন সেই হারও বাড়ছিল। তবে রবিবার থেকে সেই হার সামান্য হলেও কমছে। সোমবারও সেই প্রবণতা বজায় রয়েছে। এ দিনের বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে সুস্থতার হার ৮৭.৬৪ শতাংশ। রবিবার এই হার ছিল ৮৭.৫৬ শতাংশ। বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৮৮৯ জন। এ পর্যন্ত রাজ্যে মোট সুস্থ হয়ে ওঠা করোনা রোগীর সংখ্যা ৩ লক্ষ ১০ হাজার ৮৬। এই মুহূর্তে রাজ্যে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭ হাজার ১৯০।

করোনা যুদ্ধে রাজ্য প্রশাসনের একমাত্র স্বস্তির জায়গা ছিল সুস্থতার হার বৃদ্ধি। কিন্তু গত কয়েক দিন সেই হারও বাড়ছিল। তবে রবিবার থেকে সেই হার সামান্য হলেও কমছে। সোমবারও সেই প্রবণতা বজায় রয়েছে। এ দিনের বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে সুস্থতার হার ৮৭.৬৪ শতাংশ। রবিবার এই হার ছিল ৮৭.৫৬ শতাংশ। বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৮৮৯ জন। এ পর্যন্ত রাজ্যে মোট সুস্থ হয়ে ওঠা করোনা রোগীর সংখ্যা ৩ লক্ষ ১০ হাজার ৮৬। এই মুহূর্তে রাজ্যে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭ হাজার ১৯০।

কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনার পাশাপাশি মহানগর লাগোয়া অন্য দুই জেলা হাওড়া ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা নিয়েও উদ্বেগ বাড়ছে রাজ্য প্রশাসনের। দুই জেলাতেই গত ২৪ ঘণ্টায় দুই শতাধিক মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৬৭ জন এবং হাওড়ায় ২১৬ জন। শতাধিক মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এমন জেলার সংখ্যাও বেশ কয়েকটি। পূর্ব মেদিনীপুরে ১৭৪, নদিয়ায় ১৬৪, হুগলিতে ১৬০, দার্জিলিঙে ১৫৮, পশ্চিম মেদিনীপুরে ১৫০, জলপাইগুড়িতে ১২৯, মালদহে ১১৯, বাঁকুড়ায় ১১৫, কোচবিহারে ১১৩। পূর্ব বর্ধমানে ১০৯ এবং পশ্চিম বর্ধমানে ১০৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

Advertisement