×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

মারধর ও হেনস্থায় অভিযুক্ত বিজেপি নেতা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৬ জানুয়ারি ২০২০ ০৩:১৫
বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা

বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা

পানশালায় এক ব্যক্তি ও তাঁর বান্ধবীকে মারধর করার অভিযোগ উঠল প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ, বর্তমান বিজেপি নেতা অনুপম হাজরার বিরুদ্ধে। অভিযোগ, ওই ব্যক্তির বান্ধবীর যৌন হেনস্থাও করেন অনুপম।

পুলিশ সূত্রের খবর, শনিবার রাতে কসবার বাসিন্দা সুরেশ রায় নামে এক ব্যক্তি অভিযোগে জানান, বান্ধবীর সঙ্গে তিনি হো চি মিন সরণির এক পানশালায় গিয়েছিলেন। সেখানে হাজির ছিলেন বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা। সুরেশের দাবি, অনুপমের নাম শুনে তিনি দূর থেকে ছবি তোলেন। তাঁর কথায়, ‘‘সেলেব্রিটি ভেবে ছবি তুলি। পরে বাড়িতে দেখানোর ইচ্ছে ছিল। কিন্তু অনুপম দূর থেকে বিষয়টি দেখতে পেয়ে সোজা এসে কোনও কথা না বলে মারতে শুরু করেন।’’ সুরেশের আরও অভিযোগ, অনুপমের নিরাপত্তারক্ষীরাও এসে মারধর করেন। তাঁর সঙ্গে থাকা বান্ধবীকেও মারধর ও যৌন হেনস্থা করা হয়। সুরেশের মোবাইল ভেঙে দেওয়ার পাশাপাশি তাঁর গলার সোনার চেনও টেনে ছিঁড়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগে জানিয়েছেন তিনি।

পরে পানশালা থেকে বেরিয়ে সুরেশ শেক্সপিয়র সরণি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ জানিয়েছে, অনুপমের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩২৩, ৩৪১, ৩৫৪, ৩৭৯, ৪২৭ এবং ৫০৬ নম্বর ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

Advertisement

যদিও অনুপমের দাবি, মারধরের ঘটনা ঘটেনি। তাঁর দাবি, ওই ব্যক্তি তাঁর অনুমতি ছাড়া ছবি ও ভিডিয়ো তুলছিলেন। তাঁর নিরাপত্তারক্ষীরা বারণ করলেও শোনেননি। উল্টে ভিডিয়ো তুলে রাকেশ সিংহ নামে এক ব্যক্তিকে পাঠাচ্ছিলেন। অনুপমের বক্তব্য, ‘‘সকলের ব্যক্তিগত জীবনের গোপনীয়তা রক্ষার অধিকার রয়েছে। সুপ্রিম কোর্টও সেই রায় দিয়েছে। তার পরেও কেউ অনুমতি ছাড়া এবং পরে বারণ করা সত্ত্বেও ছবি তুলছিলেন। আমি পানশালা কর্তৃপক্ষকে বললে তাঁরাই ওঁকে বের করে দেন।’’ রবিবার সকালে তিনি জানতে পারেন, তাঁর নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই ব্যক্তি। এখানেই থেমে থাকেননি বিজেপি নেতা। তিনি বলেন, ‘‘যখন বিজেপি কর্মীরা মার খান, খুন হন পুলিশ অভিযোগ নেয় না। আর এক জন মত্ত ব্যক্তি কী বলল তার ভিত্তিতে অভিযোগ দায়ের করল?’’ সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখলেই সব বোঝা যাবে বলে অনুপমের দাবি।

Advertisement