Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

ওসি গ্রেফতার না হলে পুলিশের চিকিৎসা নয়, হুঁশিয়ারি আইএমএ রাজ্য সম্পাদকের

নিজস্ব সংবাদদাতা
৩০ অগস্ট ২০১৮ ১০:৫২
অভিযুক্ত যাদবপুর থানার ওসি পুলককুমার দত্ত। —নিজস্ব চিত্র

অভিযুক্ত যাদবপুর থানার ওসি পুলককুমার দত্ত। —নিজস্ব চিত্র

বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসককে চড় মারার ঘটনায় অভিযুক্ত ওসিকে গ্রেফতারের দাবি জানালেন ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (আইএমএ) রাজ্য শাখার সম্পাদক শান্তনু সেন। অভিযুক্ত যাদবপুর থানার ওসি পুলককুমার দত্তকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জামিন অযোগ্য ধারায় গ্রেফতার না করলে চিকিৎসকরা কোনও পুলিশের চিকিৎসা করবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন শান্তনুবাবু। সোশ্যাল মিডিয়াতেও এ নিয়ে সরব হয়েছেন তিনি।

আইএমএর-র রাজ্য সম্পাদকের বক্তব্য, যেখানে চিকিৎসকের পাশে থেকে পুলিশের নিরাপত্তা দেওয়ার কথা, সেখানে পুলিশই চিকিৎসক নিগ্রহ করছে। এই অবস্থায় চিকিৎসকরা কী ভাবে কাজ করবেন? এটা অত্যন্ত নিন্দনীয় ঘটনা। ফেসবুক পোস্টেও তিনি লিখেছেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জামিন অযোগ্য ধারায় ওই পুলিশ অফিসারকে গ্রেফতার করতে হবে। রাজ্যসভার সাংসদ শান্তনুবাবু অবশ্য এও বলেন, সব পুলিশকর্মী অফিসারের ব্যবহার এক রকম নয়।

একবালপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন যাদবপুর থানার ওসি পুলককুমার দত্ত। ডান হাতে আঘাত নিয়ে হাসপাতালের ছ’তলার একটি বেডে রয়েছেন তিনি। তাঁর হাতে অস্ত্রোপচার হয়েছে। চিকিৎসক কে এস চাঁছ়ডের অধীনে চিকিৎসা চলছিল তাঁর। বুধবার সন্ধ্যায় হাসপাতালের জুনিয়র ডাক্তার শ্রীনিবাস গেদ্দাম ওসির শারীরিক পরীক্ষা করতে যান। অভিযোগ, সেই সময় চিকিৎসকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন ওসি। তাই নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর হঠাৎই মেজাজ হারিয়ে পুলকবাবু ওই চিকিৎসকের ডান হাত মুচড়ে দেন এবং তাঁর মুখে সজোরে ঘুসি মারেন। চিকিৎসকের চিৎকারে ছুটে আসেন ওসির অধস্তন পুলিশকর্মীরা। তাঁরাও ওই চিকিৎসককে তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেন বলে অভিযোগ।

Advertisement



ফেসবুকে এই এই পোস্টই দিয়েছেন শান্তনু সেন।

আরও পডু়ন: মা-শিশুর মৃত্যুতে উঠছে বহু প্রশ্ন

ঘটনার প্রতিবাদে ওই বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকদের একটা বড় অংশ কর্মবিরতি পালন করছেন। ফলে রোগীদের ভোগান্তি বেড়েছে। এই পরিস্থিতিতে চিকিৎসদের পাশেই দাঁড়ালেন আইএমএ-র রাজ্য সম্পাদক শান্তনু সেন।

(শহরের প্রতি মুহূর্তের সেরা বাংলা খবর জানতে পড়ুন আমাদের কলকাতা বিভাগ।)

আরও পড়ুন

Advertisement