Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

মনুয়াদের হাত ধরে জেলে রেডিয়ো স্টেশন

‘রেডিয়ো দমদম’-এর রেডিয়ো জকি (আর জে) হিসেবে প্রশিক্ষণ শেষ করেছে পাঁচ সাজাপ্রাপ্ত বন্দি।

প্রদীপ্তকান্তি ঘোষ
কলকাতা ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১০:০০
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

বিনোদন আর তথ্যের মিশেলে বেতার জগতে বিপ্লব এসেছিল এফ এম রেডিয়োর হাত ধরে। এ বার তাদের হাত ধরেই রাজ্যের কারা দফতরে তৈরি হতে চলেছে ইতিহাস। আজ, শনিবার যার সূচনা হবে দমদম সেন্ট্রাল জেলে। কারা দফতরের অধীনে সেখানে শুরু হতে চলেছে রেডিয়ো স্টেশন। যার পোশাকি নাম ‘রেডিয়ো দমদম’।

পরিজন বা প্রিয়জনকে হত্যার অভিযোগে কারাগারের অন্তরালে দিন গুজরান করে দণ্ডিত বন্দিরা। সেই দণ্ডিত বন্দিদের গলাতেই তথ্য, বিনোদন আর কথোপকথনের মিশেল শুনবে দমদম জেল।

কারণ, ‘রেডিয়ো দমদম’-এর রেডিয়ো জকি (আর জে) হিসেবে প্রশিক্ষণ শেষ করেছে পাঁচ সাজাপ্রাপ্ত বন্দি। তাদের সহযোগী হিসেবে থাকবে আরও পাঁচ বন্দি। রেডিয়ো জকির তালিকায় রয়েছে তুহিন রায়, পীযূষ ঘোষ, জয়ন্ত সিংহ, জিনিয়া নন্দী এবং মনুয়া মজুমদার। জেল সূত্রের খবর, সেখানে সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে আষ্টেপৃষ্ঠে থাকে তুহিন-পীযূষ-জিনিয়ারা। গান থেকে যন্ত্রানুষঙ্গ—সবেতেই বাকি শিল্পী-বন্দিদের পিছনে ফেলেছে তুহিন। নাট্যচর্চায় সর্বত্র প্রশংসিত হচ্ছে পীযূষের ভূমিকা। তার পাশাপাশি সে এ বার রেডিয়ো জকি হিসেবে সকলকে ছাপিয়ে গিয়েছে। অন্য দিকে, জেলের অন্দরে মহিলাদের ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় কর্ত্রীর ভূমিকায় দেখা গিয়েছে মনুয়াকে। ক্রিকেট ম্যাচে স্কোরার হিসেবে নিখুঁত দায়িত্ব পালন করেছে সে। রেডিয়োয় তার গলাও শুনবে চার হাজার বন্দির দমদম জেল।

Advertisement

আরও পড়ুন: ‘পালাতে চাই যত সে আসে আমার পিছু পিছু ...’

রাজ্যের কারা দফতরের সাংস্কৃতিক জগতে নিজেকে পরিচিত করেছে জিনিয়াও। ৯১.৯ এফএমের প্রধান তথা আর জে জিমি ট্যাঙ্গরি এবং তাঁর দলের তত্ত্বাবধানে তালিম নিয়ে সে নিজেকে আর জে হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। আর জয়ন্তের সময় কাটে গানের সঙ্গেই। মাঝেমধ্যেই খোলা গলায় গানের চর্চা থেকে গান সম্পর্কে তথ্যভাণ্ডারও রয়েছে তার। সেটাই রেডিয়ো জকি হিসেবে কয়েক কদম এগিয়ে দিয়েছে জয়ন্তকে।

কী ভাবে হবে ‘রেডিয়ো দমদম’-এর পরিচালনা? এখনও পর্যন্ত স্থির হয়েছে, পাঁচ রেডিয়ো জকির হাত ধরেই প্রতিদিন এগোবে রেডিয়ো স্টেশনটি। কিছু ক্ষণ অন্তর সময়ের সঙ্গে অনুষ্ঠান বদলাবে। তবে পরবর্তীকালে রেডিয়ো জকির সংখ্যা বাড়বে বলেই মত কারা দফতরের কর্তাদের। জেলের অন্দরের প্রথা অনুযায়ী, সাজাপ্রাপ্ত বন্দিরাই যে কোনও স্থায়ী কাজে (যা ধারাবাহিক ভাবে চলে) সুযোগ পান।

আরও পড়ুন: সময়ের গ্রাসে তলিয়ে যাচ্ছে টিপুর ঐতিহ্য

আজ, শনিবার দুপুরে কারামন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস এবং কারা দফতরের ডিজি অরুণ গুপ্তের উপস্থিতিতে ‘রেডিয়ো দমদম’-এর সূচনা হবে। কিছু দিন আগেই জেলের অন্দরে বন্দিদের নিয়ে প্রথম বার অনুষ্ঠিত হয়েছিল গানের রিয়্যালিটি শো। এ বার সেই তালিকায় যুক্ত হল রেডিয়ো স্টেশন।

কেন এমন পরিকল্পনা? কারা দফতরের ডিজি বলছেন, ‘‘গানের মাধ্যমে মানুষে মানুষে সখ্য তৈরি হয়। সেই ইতিবাচক দিকটিকে সঙ্গী করে কারা দফতরের অধীনে প্রথম রেডিয়ো স্টেশন শুরু হতে চলেছে।’’ রাজ্যের কারা ইতিহাসে রেডিয়ো স্টেশন প্রথম হলেও তিহাড় জেলে এই ধরনের কর্মকাণ্ড আগেই শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন

Advertisement