Advertisement
০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Aliah University

বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি হাসপাতালকে নয়, সরব পড়ুয়ারা

পড়ুয়ারা জানান, তাঁরা সংবাদমাধ্যম থেকে জানতে পেরেছেন, আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘পড়ে থাকা’ দু’বিঘা জমি মুখ্যমন্ত্রী ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে দিতে চান।

দাবি পূরণ না হলে লাগাতার বিক্ষোভ-আন্দোলনে নামবেন বলেও জানিয়েছেন পড়ুয়ারা।

দাবি পূরণ না হলে লাগাতার বিক্ষোভ-আন্দোলনে নামবেন বলেও জানিয়েছেন পড়ুয়ারা। ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ৩০ নভেম্বর ২০২২ ০৬:০৬
Share: Save:

আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্ক সার্কাস ক্যাম্পাসের দুই বিঘা জমি কোনও ভাবেই ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে হস্তান্তর করা যাবে না। সেখানে তৈরি করতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়েরই পরিকাঠামো। মঙ্গলবার সেখানকার কয়েকশো পড়ুয়া পোস্টার, ব্যানার নিয়ে পার্ক সার্কাস ক্যাম্পাসে জমায়েত হয়ে এমনটাই দাবি করলেন। তাঁরা জানিয়েছেন, এই দাবির কথা জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডেপুটেশন দেওয়া হবে। দাবি পূরণ না হলে লাগাতার বিক্ষোভ-আন্দোলনে নামবেন বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।

Advertisement

ওই পড়ুয়ারা জানান, তাঁরা সংবাদমাধ্যম থেকে জানতে পেরেছেন, আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘পড়ে থাকা’ দু’বিঘা জমি মুখ্যমন্ত্রী ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে দিতে চান। কিন্তু আলিয়ার পড়ুয়াদের দাবি, ওই দু’বিঘা জমি মোটেও পড়ে নেই। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়েরই কিছু পরিকাঠামো তৈরি করার জন্য তাঁরা মুখ্যমন্ত্রীকে আগেও জানিয়েছেন। পড়ুয়াদের অভিযোগ, আলিয়ার পার্ক সার্কাস ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রছাত্রীদের হস্টেল, খেলার মাঠ, কর্মী আবাস নির্মাণের জন্য ২০১৬ সাল থেকে সংখ্যালঘু দফতরকে প্রস্তাব দিয়ে আসছেন। পড়ুয়াদের মতে, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বহু প্রান্তিক এলাকার পড়ুয়ারা আসেন। হস্টেল না থাকায় ঘর ভাড়া করে থাকেন তাঁরা। আর্থিক ভাবে পিছিয়ে থাকা অনেক পড়ুয়া হস্টেলের অভাবে মাঝপথে পড়াশোনা ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছেন। পার্ক সার্কাস ও তালতলা ক্যাম্পাসে খেলার মাঠও নেই।

এ দিন পড়ুয়ারা জানান, তাঁরা জানতে পেরেছেন, জমির বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার জন্য মুখ্যমন্ত্রী একটি দল গঠন করছেন। সেখানে আলিয়ার পড়ুয়াদেরও রাখা হবে। মিরাজুল ইসলাম নামে এক ছাত্র বলেন, “পড়ুয়ারা ওই দলে থেকে মতামত জানাতে চায়। যদি দাবি পূরণ না হয়, তা হলে আরও বৃহত্তর আন্দোলনে নামব।”

এ দিন মিনহাজুল ইসলাম নামে এক ছাত্র বলেন, “পার্ক সার্কাসে একটি হস্টেল রয়েছে। কিন্তু সেটা শুধুই নার্সিং পড়ুয়াদের জন্য। ফলে পার্ক সার্কাস ক্যাম্পাসে পড়াশোনা করলেও পড়ুয়াদের হস্টেলের জন্য অনেক দূরে নিউ টাউন ক্যাম্পাসে যেতে হয়। সেখানেও সকলের জায়গা হয় না। ফলে এখানে সাধারণ পড়ুয়াদের হস্টেল খুব দরকার।”

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.