Advertisement
৩১ জানুয়ারি ২০২৩
Calcutta News

সব্যসাচীর বাড়িতে পুলিশ, লকডাউন ভেঙে বাইরে না বেরনোর সতর্কবার্তা

পুলিশ সব্যসাচী দত্তকে তাঁর সল্টলেকের বাড়ি থেকে বেরতে বারণ করেছে।

ত্রাণসামগ্রী বিলি করছেন সস্ত্রীক সব্যসাচী দত্ত। —নিজস্ব চিত্র।

ত্রাণসামগ্রী বিলি করছেন সস্ত্রীক সব্যসাচী দত্ত। —নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ৩১ মার্চ ২০২০ ১১:৫৩
Share: Save:

বিজেপি নেতা তথা রাজারহাট-নিউটাউনের বিধায়ক সব্যসাচী দত্তর বাড়িতে হাজির হল পুলিশ। লকডাউনের মাঝে রাস্তায় বেরিয়ে তিনি আইন ভাঙছেন এবং আজ, মঙ্গলবার এর পুনরাবৃত্তি হলে তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা হবে— সব্যসাচী দত্তকে এমনই হুঁশিয়ারি দিল বিধাননগর কমিশনারেট। রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসুকেও মঙ্গলবার ত্রাণ সামগ্রী বন্টন করতে দেওয়া হল না। তাঁকে আটকাল কলকাতা পুলিশ।

Advertisement

গত কয়েক দিন ধরেই রাস্তায় বেরিয়ে আর্থিক ভাবে দুর্বল কিছু লোকজনের মাঝে ত্রাণ ও খাদ্যসামগ্রী বিলি করছিলেন সব্যসাচী। মঙ্গলবারও তাঁর সেই কর্মসূচি ছিল। কিন্তু, এ দিন পুলিশ সব্যসাচীকে তাঁর সল্টলেকের বাড়ি থেকে বেরতে বারণ করে যায়।

তবে পুলিশি হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও ত্রাণ বিলির কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র তথা রাজারহাট-নিউটাউনের বিধায়ক সব্যসাচী। এ দিন নিজের বাড়ি থেকেই ত্রাণ বিলির কর্মসূচি ছিল তাঁর। সকালে সেই মতো প্রস্তুতিও নিতে শুরু করেছিলেন। সে সময়ই বিধাননগর কমিশনারেটের পুলিশ আধিকারিকেরা এসে উপস্থিত হয় তাঁর বাড়িতে। সব্যসাচীকে রাস্তায় বার হতে বারণ করেন তাঁরা। তবে সে কথা শুনতে নারাজ সব্যসাচী। ত্রাণ বিলির কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়ে দেন তিনি। এ দিন সকালে ফোনে আনন্দবাজারকে সব্যসাচী বলেন, ‘‘আমি তৈরি হচ্ছি বেরনোর জন্য। আজও আমি ত্রাণসামগ্রী বিলি করতে যাব। সকালে পুলিশ এসেছিল। আমার বাড়িতে বেশ কিছু ক্ষণ ছিল। এখনও হয়তো বাইরে আছে, জানি না। পুলিশ যা করার করুক। আমি ত্রাণ বিলি করতে যাব।’’

আরও পড়ুন: দু’মাস সতর্ক থাকুন: মমতা

Advertisement

ত্রাণ বিলি করতে গিয়ে পুলিশি বাধার সম্মুখীন সায়ন্তন বসু।

রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসুও মঙ্গলবার ত্রাণ বিলি করতে গিয়ে পুলিশি বাধার সম্মুখীন হন। মধ্য কলকাতার এন এস রোডে ত্রাণ ও খাদ্য সামগ্রী বিলি করার কথা ছিল সায়ন্তনের। কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে নিয়ে সেই কাজ শুরুও করেছিলেন তিনি। কিন্তু পুলিশ সেই কর্মসূচি এগোতে দেয়নি। লকডাউন ভেঙে রাস্তায় নামা চলবে না বলে জানিয়ে ত্রাণ বন্টন আটকে দেয় পুলিশ। তা নিয়ে সায়ন্তনের সঙ্গে পুলিশের বচসাও শুরু হয়। শেষে পুলিশের হাতেই ত্রাণ সামগ্রী তুলে দিয়ে ফিরে যেতে বাধ্য হন সায়ন্তনরা।

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.