Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

অনাস্থায় স্থগিতাদেশ পাননি অর্জুন

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৩ এপ্রিল ২০১৯ ০৪:৫১
মঙ্গলবার বীজপুরে প্রচারে অর্জুন। নিজস্ব চিত্র

মঙ্গলবার বীজপুরে প্রচারে অর্জুন। নিজস্ব চিত্র

ভাটপাড়া পুরসভার ২১ জন কাউন্সিলর তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের নোটিস দিয়েছেন। ওই পুরসভার চেয়ারম্যান তথা দমদম লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংহের বিরুদ্ধে আনা সেই নোটিসের উপরে কলকাতা হাইকোর্ট কোনও অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দেয়নি। ফলে তাঁকে অনাস্থা প্রস্তাবের মুখোমুখি হতেই হবে বলে মঙ্গলবার জানান ওই পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান সোমনাথ তালুকদার।

ওই অনাস্থা প্রস্তাবের নোটিসকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে মামলা করেছেন অর্জুন। ভাটপাড়া পুরসভার এ দিন সেই মামলার শুনানিতে বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তী জানিয়ে দেন, অন্তর্বর্তী কোনও নির্দেশ তিনি দিতে চান না। সব পক্ষকেই হলফনামা দিয়ে বক্তব্য পেশ করতে হবে।

অর্জুনের আইনজীবী সুবীর সান্যাল আদালতে জানান, ১৮ মার্চ ২১ জন কাউন্সিলর অনাস্থা প্রস্তাবের নোটিস পাঠিয়ে জরুরি সভা তলব করেন। ২৪ মার্চ পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বিভা বিশ্বাস পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগে জানান, তাঁকে হুমকি দিয়ে অনাস্থা প্রস্তাবের নোটিসে সই করিয়ে নেওয়া হয়েছে। সেই জন্য ওই নোটিস বৈধ নয়। কারণ, এক জন কাউন্সিলরকেও যদি জোর করিয়ে অনাস্থা প্রস্তাবের নোটিসে সই করিয়ে নেওয়া হয়, তা হলে তার বৈধতা থাকে না। ওই নোটিসের উপরে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ চান অর্জুনের আইনজীবী।

Advertisement

এ দিন শুনানির সময় রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত আদালতে জানান, নিয়ম অনুযায়ী অনাস্থা প্রস্তাব আনার জন্য মোট কাউন্সিলরদের এক-তৃতীয়াংশকে নোটিস পাঠাতে হয়। ওই পুরসভায় ৩৪ জন কাউন্সিলর রয়েছেন। তার মধ্যে ২১ জন নোটিসে সই করেছেন। কাজেই নোটিস অবৈধ নয়।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

কাউন্সিলরদের পক্ষে আইনজীবী পার্থসারথি সেনগুপ্ত জানান, কোনও কাউন্সিলরকেই হুমকি দিয়ে জোর করে সই করানো হয়নি। ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ১৮ মার্চের নোটিসে সই করেছেন। তাঁকে দিয়ে যদি জোর করে সই করানো হয়ে থাকে, তা হলে তিনি ঘটনার ছ’দিন পরে অভিযোগ জানাবেন কেন?

সব পক্ষের বক্তব্য হলফনামা দিয়ে পেশ করার নির্দেশ দিয়ে বিচারপতি চক্রবর্তী জানিয়ে দেন, মামলার পরবর্তী শুনানি হবে ছ’সপ্তাহ পরে।

ভাটপাড়া পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান সোমনাথবাবু জানান, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সময় অর্জুন দাবি করেছিলেন, তাঁর পক্ষে ২২ জন কাউন্সিলর রয়েছেন। কিন্তু তাঁর পাশে শেষ পর্যন্ত কেউ নেই দেখে হাইকোর্টে মামলা করেন। এই অবস্থায় অনাস্থা প্রস্তাবের মুখোমুখি হওয়া ছাড়া অর্জুনের সামনে অন্য পথ নেই।



Tags:
Lok Sabha Election 2019লোকসভা ভোট ২০১৯ Arjun Singh

আরও পড়ুন

Advertisement