Advertisement
২০ জুলাই ২০২৪
Confusion Regarding Employment

ব্যাঙ্কের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে বিতর্ক

১৫ এপ্রিল বলাগেড়িয়া কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে নিয়োগ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

ওয়েবসাইটে এখনও রয়েছে পুরনো বিজ্ঞপ্তি।

ওয়েবসাইটে এখনও রয়েছে পুরনো বিজ্ঞপ্তি। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কাঁথি শেষ আপডেট: ২২ জুন ২০২৪ ০৯:১৮
Share: Save:

লোকসভার আদর্শ নির্বাচন বিধি জারি থাকা সময়ে সমবায় ব্যাঙ্কের তরফের প্রকাশ করা হয়েছিল কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি। সেই বিজ্ঞপ্তি কয়েকদিন পর আপলোড করা হয় ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটে। এ নিয়ে সমবায় ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে লিখিত অভিযোগ জমা পড়েছে। যে ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, তার মাথায় রয়েছেন মন্ত্রী অখিল গিরির পুত্র তথা কাঁথি পুরসভার চেয়ারম্যান সুপ্রকাশ গিরি। আর অভিযোগকারী তৃণমূলেরই এক ছাত্র নেতা।

গত ১৬ মার্চ দেশ জুড়ে আদর্শ নির্বাচন বিধি জারি করেছিল নির্বাচন কমিশন। ১৫ এপ্রিল বলাগেড়িয়া কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে নিয়োগ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। তবে নোটিসটি ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটে আপলোড করা হয় ২০ এপ্রিল। সেখানে বলা হয়েছিল, স্নাতক উত্তীর্ণ ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সীরা ২০ এপ্রিলের মধ্যে আবেদন জানাতে পারবেন। কাজের জন্য কম্পিউটার জানা আবশ্যক। এর পরে ফের কর্মী নিয়োগ সংক্রান্ত আরও একটি বিজ্ঞপ্তি ২৪ এপ্রিল ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটে আপলোড করা হয়।

এতেই বিতর্ক শুরু হয়। নির্বাচন বিধি জারি থাকার সময়ে কী করে কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করা হল, সেই প্রশ্ন উঠার পাশাপাশি দুর্নীতিরও শঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। ওই ঘচনায় গত ১৯ জুন মুখ্যমন্ত্রী, মুখ্য সচিব, পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পূর্ণেন্দু মাঝি, পুলিশ সুপার সৌম্যদীপ ভট্টাচার্যর কাছে লিখিত অভিযোগ জানান তৃণমূলের ছাত্র নেতা আবেদ আলি খান। তাঁর কথায়, ‘‘বেআইনিভাবে কর্মী নিয়োগের নোটিস জারি করা হয়েছিল। ভোটের মুখে এভাবে কর্মী নিয়োগ করে দলের প্রার্থীকে হারানোর একটা বড় ষড়যন্ত্র হয়েছে। এর পিছনে ওই ব্যাঙ্কের সমস্ত আধিকারিক থেকে শুরু করে পরিচালক মণ্ডলী দুর্নীতি করে থাকতে পারেন। অবিলম্বে নোটিস বাতিল করা, উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত চেয়েছি।’’

জেলা রাজনীতিতে আবেদ পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তম বারিকের ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত। উত্তম এবার কাঁথি লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূলের প্রার্থী ছিলেন। বিজেপির সৌমেন্দু অধিকারীর কাছে পরাজিত হন। হারের পিছনে মন্ত্রী অখিল গিরির বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগে সরব হয়েছিলেন উত্তম। এমন প্রেক্ষাপটে অখিল পুত্র যে ব্যাঙ্কের শীর্ষে রয়েছেন, তার বিরুদ্ধে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে সভাধিপতির ঘনিষ্ঠ ছাত্রনেতার লিখিত অভিযোগ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। যদিও ব্যাঙ্কের চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার সুব্রত গায়েন বলেন, ‘‘যে নোটিসের কথা বলা হচ্ছে তা বাতিল করা হয়েছে।’’ কিন্তু নির্বাচনী বিধি জারি থাকাকালীন কী করে কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হল? ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান সুপ্রকাশ গিরির জবাব, ‘‘গতকাল নিয়োগ সংক্রান্ত নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এটা শুধুমাত্র চুক্তিভিত্তিক অস্থায়ী কর্মী নিয়োগের জন্যই করা হচ্ছে।’’

লোকসভা নির্বাচন মেটার পরে সমাবায় ব্যাঙ্কগুলির নির্বাচন রয়েছে। তার আগে এই ঘটনায় শাসকদলের গোষ্ঠী কোন্দলকে কটাক্ষ করেছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির জেলা (কাঁথি) সাধারণ সম্পাদক চন্দ্রশেখর মণ্ডল বলছেন, ‘‘ব্যাঙ্ক, সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে শেষ করে দিচ্ছে তৃণমূল।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Contai
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE