Advertisement
১৫ জুলাই ২০২৪
Mob Violence

খালি হাতে বন্দুকবাজ ধরে বাঁচিয়েছিলেন পড়ুয়াদের, সেই পুলিশকর্তাকেই শুনতে হল, ‘আপনারা কি পুতুল?’

সোমবার হাওড়ার পাঁচলায় ‘নির্যাতিতা’ বিজেপি প্রার্থীর সঙ্গে দেখা করেন জাতীয় মহিলা কমিশনের প্রতিনিধিরা। মঙ্গলবার তাঁরা পৌঁছন মালদহের মানিকচকের পাকুয়াহাটে। কথা বলেন দুই মহিলার সঙ্গে।

(বাঁ দিকে) আজহারউদ্দিন খান। রেখা শর্মা (ডান দিকে)।

(বাঁ দিকে) আজহারউদ্দিন খান। রেখা শর্মা (ডান দিকে)। — ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
মানিকচক শেষ আপডেট: ০১ অগস্ট ২০২৩ ১৪:৫৯
Share: Save:

মালদহের বামনগোলার পাকুয়াহাটের ঘটনায় ‘নির্যাতিতা’ মহিলাদেরই গ্রেফতার করা হল কেন? মঙ্গলবার এলাকায় গিয়ে মালদহ পুলিশের ডিএসপি (ডিএনটি) আজহারউদ্দিন খানকে এমন প্রশ্নই করলেন জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মা। ওই পুলিশ আধিকারিকেরা জাতীয় মহিলা কমিশনের ওই প্রতিনিধিদের জবাব দেন, ওই ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশকর্মীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে। দোষ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গত এপ্রিল মাসে মালদহের একটি স্কুলে ঢুকে পড়েছিল এক বন্দুকবাজ। তার হাত থেকে পড়ুয়া এবং শিক্ষিকাদের রক্ষা করেন ওই পুলিশকর্তাই। ওই ঘটনা নিয়ে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে জাতীয় মহিলা কমিশন। পাশাপাশি, জাতীয় মহিলা কমিশনের ডাকা বৈঠকে মালদহ জেলার পুলিশ সুপার এবং জেলাশাসক না আসায় ক্ষোভপ্রকাশও করেন রেখা।

সোমবার হাওড়ার পাঁচলায় ‘নির্যাতিতা’ বিজেপি প্রার্থীর সঙ্গে দেখা করেন জাতীয় মহিলা কমিশনের প্রতিনিধিরা। মঙ্গলবার তাঁরা পৌঁছন মালদহের মানিকচকে। সেখানেই বাড়ি ওই দুই মহিলার। প্রসঙ্গত, গত ১৮ জুলাই বামনগোলার পাকুয়াহাট এলাকায় চোর সন্দেহে দুই মহিলাকে বিবস্ত্র করে মারধর করার অভিযোগ ওঠে। ওই ঘটনায় পুলিশ ‘নির্যাতিতা’ দুই মহিলাকেও গ্রেফতার করে। এই ঘটনার প্রতিবাদে জেলা জুড়ে ঝড় ওঠে। ছ’দিন পর মুক্তি পান ওই দুই মহিলা। মঙ্গলবার তাঁদের সঙ্গে দেখা করেন জাতীয় মহিলা কমিশনের প্রতিনিধিরা। সেখানে উপস্থিত ছিলেন মালদহ পুলিশের ডিএসপি (ডিএনটি)। তাঁকে জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন প্রশ্ন করেন, ‘‘আপনারা কি পুতুল? আপনারা তদন্ত করবেন না? ছ’দিন ধরে যখন ওই দুই মহিলা বন্দি ছিলেন তখনও আপনারা বুঝতে পারলেন না যে ভুল লোককে গ্রেফতার করেছেন? যিনি গ্রেফতার করেছিলেন তাঁকে গ্রেফতার করেছেন? ওই মহিলার জীবনে কি ছ’দিন কি ফেরত আসবে?’’

মালদহ জেলা পুলিশের ওই কর্তা উত্তর দেন, ‘‘এই ঘটনায় কোনও গাফিলতি দেখলে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নেব। যিনি গ্রেফতার করেছেন তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত হচ্ছে। দোষ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’

ঘটনাচক্রে, গত ২৬ এপ্রিল মালদহেরই মুচিয়া চন্দ্রমোহন হাই স্কুলের ভরা ক্লাসঘরে ঢুকে পড়ে এক বন্দুকবাজ। পড়ুয়াদের উদ্দেশে বন্দুক উঁচিয়ে শাসানি দিতে থাকে সে। সেই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে নিজের জীবন বাজি রেখে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন ডিএসপি আজহারউদ্দিন। পিস্তল উঁচিয়ে থাকা ওই যুবককে পাকড়াও করেন তিনিই।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Mob Violence West Bengal Police NCW Rekha Sharma
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE