Advertisement
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

কাকু তোমার হেলমেট কই, প্রশ্ন খুদের

একে সকালবেলা। তায় প্রত্যন্ত গ্রামের রাস্তা। ট্রাফিক পুলিশে যে থাকবে না, তা বলাই বাহুল্য। তাই দুই সওয়ারিকে মোটরবাইকে চাপিয়ে বাবুপুরের দিকে নিশ্চিন্ত মনেই যাচ্ছিলেন ২১ মাইলের বাসিন্দা কুমুদ রায়।

পাকড়াও: হেলমেটহীন আরোহীদের জিজ্ঞাসা। ছবি: মনোজ মুখোপাধ্যায়।

পাকড়াও: হেলমেটহীন আরোহীদের জিজ্ঞাসা। ছবি: মনোজ মুখোপাধ্যায়।

জয়ন্ত সেন
মালদহ শেষ আপডেট: ১৪ এপ্রিল ২০১৭ ০২:২৫
Share: Save:

একে সকালবেলা। তায় প্রত্যন্ত গ্রামের রাস্তা। ট্রাফিক পুলিশে যে থাকবে না, তা বলাই বাহুল্য।

Advertisement

তাই দুই সওয়ারিকে মোটরবাইকে চাপিয়ে বাবুপুরের দিকে নিশ্চিন্ত মনেই যাচ্ছিলেন ২১ মাইলের বাসিন্দা কুমুদ রায়। হেলমেটও ছিল না কারও মাথায়ই। যশইল গ্রামে পৌঁছতেই বিপত্তি। হঠাৎই বেশ কয়েক জন কচিকাঁচা ঘিরে ধরল তাঁদের। কেন তাঁরা হেলমেট না পরে মোটরবাইকে চেপেছেন, প্রশ্ন তুলল তারা। যা কল্পনাও করতে পারেননি কুমুদবাবু।

চতুর্থ শ্রেণির নিখিলেশ একেবারে সামনে দাঁড়িয়ে জানতে চাইল, ‘‘কাকু তোমার মাথায় হেলমেট নেই কেন?’’ তার পাশেই দ্বিতীয় শ্রেণির বর্ণালী— ‘‘কাকু এক বাইকে তিনজন কেন?’’ বৃষ্টির নজর পায়ে, ‘‘কাকু পায়ে জুতো নেই কেন?’’ ততক্ষণে দেবব্রত ও রন্তুও বলতে শুরু করেছে, ‘‘জানো না, হেলমেট ছাড়া মোটরবাইক চালানো উচিত না।’’ পরের পর তিরে তখন কুমুদবাবু ঘেমেনেয়ে একসা। শেষ পর্যন্ত প্রতিশ্রুতি দিতে হল, হেলমেট ছাড়া আর বাইক চালাবেন না আর।

কুমুদ একা নন। এমন অসংখ্য হেলমেটহীন বাইক-আরোহীকে এ দিন পড়তে হয়েছে এই খুদেদের পাল্লায়।

Advertisement

মালদহে ৩ থেকে ৮ এপ্রিল পর্যন্ত ট্রাফিক সচেতনতা সপ্তাহ পালন করা হয়। গাজল ব্লকের প্রত্যন্ত নয়াপাড়া যশইল প্রাইমারি স্কুলের এই ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকরা কিন্তু এর পরেও কাজটা চালিয়েই যাচ্ছেন। প্রতি বৃহস্পতিবার ক্লাস হয় সকাল সাতটা থেকে দশটা। তাই এই দিন সকালটাই বেছে নিয়েছে স্কুল। দু’ঘণ্টা স্কুলের সামনের রাস্তায় নেমে মানুষকে সচেতন করছেন ওঁরা। পড়ুয়াদের সঙ্গে শিক্ষক সৌরভ দে, উদয় রায়, সুব্রত কুণ্ডুরাও থাকছেন।

স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দেবজ্যোতি সরকার বলেন, ‘‘জেলায় শিক্ষার মানোন্নয়নে যে অভিযান চলছে, এটা তারই অঙ্গ।’’ সর্বশিক্ষা মিশনের জেলা পরিকল্পনা সমন্বয়ক অঞ্জন মিশ্র বলেন, ‘‘ওঁরা এই ভাবে সচেতনতা বৃদ্ধির কাজে নেমেছেন।’’ অতিরিক্ত জেলাশাসক (শিক্ষা) দেবতোষ মণ্ডল বলেন, ‘‘নয়াপাড়া স্কুলের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.