Advertisement
২৬ জুন ২০২৪

গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পদত্যাগ

সূত্রের খবর, মালদহ জেলা সফর চলাকালীন প্রশাসনিক বৈঠকের আগে মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের যে বৈঠক হয়েছিল তাতে উপাচার্যের বিরুদ্ধে জেলার একাধিক নেতৃত্ব ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। প্রায় ৩০০ পড়ুয়ার কলেজে ভর্তি না হতে পারা নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠকেও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কার্যত সংঘাতে জড়িয়েছিলেন উপাচার্য।  সেটাও পদত্যাগের অন্যতম কারণ বলে মনে করছেন অনেকে।

স্বাগত সেন। নিজস্ব চিত্র

স্বাগত সেন। নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা 
মালদহ শেষ আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০১৯ ০৪:১৩
Share: Save:

পদত্যাগ করলেন গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য স্বাগত সেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ১১ বছরের ইতিহাসে এ নিয়ে পাঁচ জন উপাচার্যই মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে পদত্যাগ করলেন। প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে, স্বাগত ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে বুধবার দুপুরে পদত্যাগ করেন। বৃহস্পতিবার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। তবে ঘনিষ্ঠ মহলের অভিযোগ, চাপে পড়ে তিনি পদত্যাগপত্র দিতে বাধ্য হলেন।

সূত্রের খবর, মালদহ জেলা সফর চলাকালীন প্রশাসনিক বৈঠকের আগে মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের যে বৈঠক হয়েছিল তাতে উপাচার্যের বিরুদ্ধে জেলার একাধিক নেতৃত্ব ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। প্রায় ৩০০ পড়ুয়ার কলেজে ভর্তি না হতে পারা নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠকেও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কার্যত সংঘাতে জড়িয়েছিলেন উপাচার্য। সেটাও পদত্যাগের অন্যতম কারণ বলে মনে করছেন অনেকে।

উপাচার্য গোপাল মিশ্রের ইস্তফার পরে ২০১৭ সালের পয়লা ডিসেম্বর যোগ দিয়েছিলেন স্বাগত। সে সময়ে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য ছিলেন। জানা গিয়েছে, তাঁকে ৬ মাসের জন্য অস্থায়ী ভাবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। পরপর দু’বার তাঁর কার্যকালের মেয়াদ বাড়ানো হয়। এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসেই তাঁকে স্থায়ী ভাবে চার বছরের জন্য উপাচার্য পদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। পদত্যাগ প্রসঙ্গে স্বাগত মোবাইলে বলেন, ‘‘ব্যক্তিগত কারণে পদত্যাগ করলাম। বুধবার দুপুরে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি। পারিবারিক সমস্যাও ছিল। কলকাতা থেকে কর্মস্থল দূরে। আমার স্ত্রীও অসুস্থ।’’

তবে শিক্ষকদের একাংশের মতে, চাপে পড়েই তিনি পদত্যাগ করলেন। জানা গিয়েছে, তাঁর সময়ে বারবার ছাত্র আন্দোলনে উত্তাল হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়। পরীক্ষার ফলাফল নিয়েও বিভ্রান্তি হয়। প্রশাসনিক মহলের ধারণা, প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সংঘাতে জড়ানোও শিক্ষা দফতরের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা ভাল ভাবে নেননি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE