Advertisement
০৬ ডিসেম্বর ২০২২
Dharmendra Pradhan

অশোকনগরের তৈলকূপে দু’বছরে ৪২৫ কোটি লগ্নি করবে ওএনজিসি

রাজ্যে ভোটের মুখে মন্ত্রীর দাবি, প্রকল্পে কাজে অগ্রাধিকার পাবেন স্থানীয়েরা। প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ কর্মসংস্থান হবে বহু জনের।

তেল হাতে পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। রবিবার অশোকনগরে।  ছবি: সুজিত দুয়া

তেল হাতে পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। রবিবার অশোকনগরে।  ছবি: সুজিত দুয়া

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২১ ডিসেম্বর ২০২০ ০৩:৫৯
Share: Save:

অশোকনগর প্রকল্প থেকে তোলা তেল বাণিজ্যিক ভাবে বিক্রি আগেই শুরু করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ওএনজিসি। উত্তর ২৪ পরগনায় রাজ্যের প্রথম তেল-কূপ প্রকল্পকে রবিবার জাতির উদ্দেশে সমর্পণ করলেন পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন পুরোদস্তুর বাণিজ্যিক তেল উত্তোলনেরও। রাজ্যে ভোটের মুখে মন্ত্রীর দাবি, প্রকল্পে কাজে অগ্রাধিকার পাবেন স্থানীয়েরা। প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ কর্মসংস্থান হবে বহু জনের। বাড়বে রাজ্যের আয়। এর পরে বাণিজ্যিক ভাবে গ্যাসের উপাদনও শুরু হলে, পাল্টে যাবে এলাকার আর্থ-সামাজিক ছবি। যদিও প্রকল্প এলাকায় জমিহারাদের অভিযোগ, ক্ষতিপূরণ এবং চাকরির দাবি সরাসরি ধর্মেন্দ্রর কাছে জানাতে চাইলেও, মন্ত্রীর কাছে ঘেঁষতেই দেওয়া হয়নি তাঁদের।

Advertisement

এ দিন ধর্মেন্দ্র জানান, এ পর্যন্ত অশোকনগরে ৩৩৮১ কোটি টাকা ঢেলেছে ওএনজিসি। আগামী দু’বছরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উৎপাদনের জন্য কূপ খননে আরও ৪২৫ কোটি লগ্নি করবে তারা। ওএনজিসি কর্তৃপক্ষের দাবি, ২০২২ সালের মধ্যে খনন করা হবে আরও চারটি কূপ।

বাণিজ্যিক ভাবে উৎপাদন শুরু হবে গ্যাসেরও। এই বিপুল কর্মকাণ্ডের দৌলতে এলাকার অর্থনীতির চেহারা বদলে যাওয়ার স্বপ্ন ফেরি করেছেন প্রধান। বিধানসভার হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মুখে যা প্রত্যাশিত।
সংস্থা কর্তৃপক্ষের দাবি, আগে কোনও তেল প্রকল্পে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে উৎপাদন শুরুর জন্য তেল উত্তোলনের পরিমাণ, বাণিজ্যিক ভাবে তা কতটা লাভজনক হবে, ইত্যাদি হিসেব কষার দীর্ঘ প্রক্রিয়া ছিল। কিন্তু এখন উৎপাদন শুরু হতেই সেই তেল বিক্রির (আর্লি মনিটাইজ়েশন) সুবিধা অশোকগরে পেয়েছে ওএনজিসি। সংস্থার সিএমডি শশী শঙ্করের দাবি, এই মর্মে নীতি সম্প্রতি অনুমোদন করেছে কেন্দ্র। তা প্রথম কার্যকর করা হয়েছে অশোকনগরেই।

আরও পড়ুন: বিশ্বভারতীতে শাহের সঙ্গী কেন বিজেপি নেতারা, প্রশ্ন

Advertisement

আরও পড়ুন: বাইরের লোক আনতে হয় না: অনুব্রত

সংস্থার মতে, পুরনো ব্যবস্থায় তেল ক্ষেত্রে উৎপাদন শুরুর পরে বিক্রি শুরুতে সময় লাগত প্রায় তিন বছর। নতুন নীতির সুবাদে অশোকনগরে তেলের সন্ধান মেলার এক বছরের মধ্যে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে উৎপাদন চালু করা সম্ভব হয়েছে। প্রধানের দাবি, ‘আত্মনির্ভর ভারত’-এর শপথ মাথায় রেখে তেল আমদানি কমাতে চান তাঁরা। অশোকনগরে দ্রুত বাণিজ্যিক উৎপাদনের ছাড়পত্র সেই কারণেই। এখানে পাওয়া অশোধিত তেলের মান ব্রেন্ট ক্রুডের থেকে ভাল বলেও শঙ্করের দাবি।

অশোকনগরে

• বাণিজ্যিক ভিত্তিতে তেল তোলা আগেই শুরু করেছে ওএনজিসি। হলদিয়ায় আইওসি-র শোধনাগারে পাঠানো হয়েছে ২৮,০০০ লিটার। রবিবার জাতির উদ্দেশে সমর্পণ।

• এখনও লগ্নি ৩৩৮১ কোটি টাকা। দু’বছরে আরও ৪২৫ কোটি।

• লক্ষ্য, ২০২২ সালের মধ্যে আরও কূপ খনন। বাণিজ্যিক ভাবে গ্যাস উত্তোলনও।

• দাবি, কর্মসংস্থানে স্থানীয়দের অগ্রাধিকার। পাল্টাবে এলাকার আর্থ-সামাজিক ছবি।

• ক্ষুব্ধ প্রকল্প এলাকায় চাষ করা লোকেদের একাংশ। অভিযোগ, ক্ষতিপূরণ ও চাকরির কথা বলতে মন্ত্রীর কাছে ঘেঁষতে না-দেওয়ার।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.