Advertisement
০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Partha Chatterjee

সাত ঘণ্টা জেরার পর সোমবার গভীর রাতে সিজিও কমপ্লেক্স থেকে ফিরেছেন পার্থের জামাই, ডাকা হতে পারে আবার

ইডি সূত্রে খবর, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কন্যা সোহিনী ও জামাই কল্যাণময়ের নামে একাধিক সম্পত্তির হদিস পাওয়া গিয়েছে। সেই সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে চান তদন্তকারী আধিকারিকরা।

পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১১:৩৮
Share: Save:

বিদেশ থেকে ফেরার পরই তাঁকে তলব করেছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। সেই মতো সোমবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে (যেখানে ইডির দফতর) যান শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিতে ধৃত রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূলের প্রাক্তন পদাধিকারী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের জামাই কল্যাণময় ভট্টাচার্য। সূত্রের খবর, টানা জিজ্ঞাসাবাদের পর সোমবার গভীর রাতে ইডি দফতর থেকে বেরোন পার্থ-জামাতা। আবারও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করতে পারে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

Advertisement

নিয়োগ দুর্নীতি-কাণ্ডে গত ২৩ জুলাই গ্রেফতার করা হয়েছিল পার্থকে। তার পর থেকে বিদেশে কর্মরত কল্যাণময় ও পার্থ-কন্যা সোহিনী চট্টোপাধ্যায়কে একাধিক বার ই-মেল করে তলব করেছিল তদন্তকারী সংস্থা। কিন্তু সে সময় হাজিরা দেননি তাঁরা। সম্প্রতি বিদেশ থেকে ফিরে ইডির সঙ্গে কল্যাণময় যোগাযোগ করেন বলে জানা যায়। তার পরই তাঁকে তলব করা হয়। সূত্রের খবর, সোমবার প্রায় সাত ঘণ্টা ধরে কল্যাণময়কে জিজ্ঞাসাবাদ করেন ইডির আধিকারিকরা।

তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে খবর, পরিবারের সদস্যদের নিয়ে প্রয়াত স্ত্রী বাবলি চট্টোপাধ্যায়ের নামে একটি ট্রাস্ট তৈরি করেছিলেন পার্থ। ওই ট্রাস্টের মাধ্যমে প্রায় ১৫ কোটি টাকা খরচ করে পশ্চিম মেদিনীপুরে পিংলায় একটি বেসরকারি স্কুল তৈরি করা হয়েছিল। ওই ট্রাস্টের নাম ‘বাবলি চট্টোপাধ্যায় মেমোরিয়াল’। বিভিন্ন সংস্থা থেকে টাকা জমা হয়েছিল ওই ট্রাস্টে। স্কুলের জমি অধিগ্রহণ এবং স্কুলভবন নির্মাণে খরচ করা হয়েছে সেই টাকা। কল্যাণময় ওই স্কুলের চেয়ারম্যান। এ নিয়ে কল্যাণময়কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে সূত্রের দাবি। পাশাপাশি সোহিনী ও কল্যাণময়ের নামে একাধিক সম্পত্তির হদিস পাওয়া গিয়েছে। সেই সংক্রান্ত বিষয়েও তাঁর কাছ থেকে জানতে চান তদন্তকারীরা।

Advertisement

সম্প্রতি শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি-কাণ্ডে পার্থ ও তাঁর ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের নামে চার্জশিট পেশ করেছে আদালত। পার্থ ও অর্পিতার নামে মোট ১০৩ কোটি টাকার সম্পত্তির হদিস পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে ইডি। তদন্তকারী সংস্থার তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, পার্থ ও তাঁর সহযোগীর ৪৮.২২ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। আগেই অর্পিতার দুই ফ্ল্যাট থেকে মোট ৪৯.৮০ কোটি নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়েছিল। উদ্ধার হওয়া সোনাদানার দাম ৫.০৮ কোটিরও বেশি। সব মিলিয়ে মোট ১০৩.১০ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এই প্রেক্ষাপটে পার্থর জামাইকে ইডির জিজ্ঞাসাবাদ এই পর্বে নয়া মাত্রা যোগ করল।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.