Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বিজেপির মিছিলে তর্কাতর্কি, কোন্দলের অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা
বোলপুর ১৯ অক্টোবর ২০২০ ০২:১৬
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

বোলপুরে বিজেপির মিছিল ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যেই তর্কাতর্কি হল। এতে অস্বস্তিতে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। রবিবার বোলপুরে বিজেপির ডাকে কৃষি বিলের সমর্থনে পদযাত্রার আয়োজন করা হয়েছিল। সেই পদযাত্রা শুরুর আগে জেলা বিজেপি থেকে বহিস্কৃত ও বঞ্চিত বেশ কিছু নেতাকর্মী দলের জেলা নেতৃত্বের বিরুদ্ধে সংবাদমাধ্যমের কাছে ক্ষোভ উগরে দেন। পরে বলতে বাধা দিলে তর্কাতর্কি শুরু হয়ে যায়। বোলপুরের বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষকে বলতে দেখা যায়, ‘‘আমি তো আপনাদের মিছিলে ডাকিনি। আপনারা কেন এসেছেন? এটা আপনাদের অনুষ্ঠান নয়।’’ মিছিল থেকে বার করে দেওয়ার হুমকি দিতেও শোনা যায়।

যদিও অবশ্য দিলীপ ঘোষ দাবি করেন, ‘‘বিজেপিতে গোষ্ঠী কোন্দল নেই। কিছু লোক বাইরে থেকে এ দিনের অনুষ্ঠানে এসেছিলেন। আমরা তাঁদের আমন্ত্রণ করিনি। তার পরেও মিছিলে যোগ দেন। তা ছাড়া নেতৃত্বের বিরুদ্ধে কারওর ক্ষোভ থাকতেই পারে। সেটা সংবাদমাধ্যমের সামনে বলা বাঞ্ছনীয় নয়।’’ এ দিন নির্ধারিত সময়ের কিছু পরে বোলপুর রেল ময়দান থেকে বিজেপির পদযাত্রা বের হয়। মিছিলে ছিলেন বিজেপি থেকে সদ্য বহিস্কৃত প্রাক্তন জেলা সম্পাদক পলাশ মিত্র, কিসান মোর্চার প্রাক্তন সভাপতি সোমনাথ ঘোষ সহ একাধিক নেতাকর্মীকে। তাঁদের দাবি, অন্যায় ভাবে দল থেকে নানা ভাবে বাদ দেওয়া হয়েছে। সোমনাথ ঘোষের অভিযোগ, ‘‘জেলা নেতৃত্ব পক্ষপাতদুষ্ট।’’

এই নিয়ে বিজেপিকে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল শিবির। তৃণমূলের জেলা সহ-সভাপতি অভিজিৎ সিংহ বলেন, ‘‘কৃষি আইন জনবিরোধী। এমন আইনের পক্ষে মিছিল হাস্যকর। সেই মিছিল করতে গিয়ে আবার বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বও সামনে এল।’’ অভিযোগ উড়িয়ে বিজেপির জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডলের জবাব, ‘‘জেলার কোথাও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নেই। তবে বোলপুরে কী হয়েছে ঠিক জানা নেই।’’ বহিষ্কৃতদের দলীয় অনুষ্ঠানে দেখা গেল কী ভাবে? শ্যামাপদর জবাব, ‘‘যাঁদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে, তাঁরা দলের অনুষ্ঠানে কেন যাচ্ছেন বুঝতে পারছি না।’’ এর আগে সিউড়িতে দীনদয়াল উপাধ্যায়ের জন্মদিবস পালনের দিনে বহিষ্কৃতদের উপস্থিতি বিজেপিকে অস্বস্তিতে রেখেছিল।’’

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement