Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

তিন পড়ুয়াকে 'মাওবাদী' অ্যাখ্যা, বিশ্বভারতীর উপাচার্যের বিরুদ্ধে বড়সড় আন্দোলনের প্রস্তুতি ঐক্য মঞ্চের

নিজস্ব সংবাদদাতা
বোলপুর ১৮ জুন ২০২১ ১৮:৪৫


নিজস্ব চিত্র

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এবার বড়সড় আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে ছাত্র-ছাত্রী ঐক্য মঞ্চ। আন্দোলনে পড়ুয়াদের পাশে রয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের একাংশ। গত ২৪ এপ্রিল উপাচার্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন করায় বিশ্বভারতীর অর্থনীতি বিভাগের ফাল্গুনি পান, সোমনাথ সৌ, সঙ্গীতভবনের ছাত্রী রূপা চক্রবর্তীকে সাসপেন্ড করা হয়েছিল। এখনও তাঁদের উপর থেকে সাসপেনশন তুলে নেওয়া হয়নি।

ঐক্য মঞ্চের তরফে শুক্রবার এক বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। বিবৃতিতে মঞ্চের দাবি, ওই তিন পড়ুয়াকে অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সাসপেন্ড করা হয়। সাসপেনশনের তিন মাস মেয়াদ কাটার পর ওই ছাত্রছাত্রীরা ক্লাসে যোগ দেওয়ার আবেদন জানালে তাদের আবারও তিন মাসের জন্যে সাসপেন্ড করা হয় উপাচার্যের নির্দেশ। এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে উপাচার্যের বিরুদ্ধে উপাসনা গৃহের সামনে রাস্তার পাশে ধর্নায় বসেন ওই তিন ছাত্রছাত্রী। তিনজন আন্দোলনে নামলে তাঁদের উপরে চাপ সৃষ্টি করা হয়। ছাত্র-ছাত্রীরা কোভিড আক্রান্ত হয়ে পড়লে ধর্না আন্দোলন স্থগিত রাখতে হয়। এরপর ১৬ জুন সাসপেন্ড হওয়া ৩ পড়ুয়াকে ‘মাওবাদী’ আখ্যা দিয়েছেন উপাচার্য।

উপাচার্যের এই মন্তব্যেই ক্ষুব্ধ হয়েছেন ছাত্র-ছাত্রীদের একাংশ। ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে আছেন বিশ্বভারতীর আধ্যপকদের একাংশ। বিশ্বভারতীর প্রাক্তন আধ্যপক ও বিজেপি নেতা অনুপম হাজরাও পড়ুয়াদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি বলেন, ‘‘বর্তমানে আমি বিজেপি-র পদে রয়েছি। অনেক কিছুই নিয়ম রয়েছে হস্তক্ষেপের ক্ষেত্রে। তবে শান্তিনিকেতনের বাসিন্দা, ছাত্র ও প্রাক্তন অধ্যাপক হিসেবে প্রয়োজন হলে বিশ্বভারতীর আচার্য তথা প্রধনমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে বিষয়টি জানাব। আমি চাই বিশ্বভারতীতে শান্তি বজায় থাকুক। উপাচার্যের এই ধরনের মন্তব্য একেবারে ঠিক নয়।’’

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement