Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠনপাঠনও ৩১ জুলাই পর্যন্ত বন্ধ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৪ জুন ২০২০ ০৫:২৮
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

স্কুল তো বন্ধই। করোনার কারণে রাজ্যের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠনপাঠনও ৩১ জুলাই পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একই সঙ্গে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি জানান, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত শুক্র-শনিবার নাগাদ জানানো হবে। আর কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত সিমেস্টারের বিষয়ে রাজ্য সরকারের ‘অ্যাডভাইজ়রি’ বা পরামর্শ-নির্দেশিকা দেওয়া হবে শুক্রবার।

প্রথমে ঠিক ছিল, রাজ্যে ১০ জুন স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে। পরে সিদ্ধান্ত হয়, ৩০ জুন পর্যন্ত সব স্কুল বন্ধ থাকবে। আরও পরে ঠিক হয়, পুরো জুন মাস বন্ধ থাকবে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ও। এরই মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, তাঁর মনে হচ্ছে, স্কুল খুলতে জুলাই হয়ে যাবে। তার পরে স্কুলে ৩১ জুলাই পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়। শিক্ষামন্ত্রী এ দিন বলেন, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩১ জুলাই পর্যন্ত পঠনপাঠন বন্ধ থাকলেও প্রশাসনিক কাজকর্ম চলবে।’’

উপাচার্যেরা শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন, পড়ুয়ারা বাইরে থেকে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত সিমেস্টারের পরীক্ষা দিন। পরে শিক্ষামন্ত্রী জানান, অনেক পড়ুয়া চাকরি পেয়ে গিয়েছেন। তাই মূল্যায়ন ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ করতেই হবে। বৈঠকে যে-আলোচনা হয়েছে, তা অনুমোদনের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলির স্বাধিকার রয়েছে। যে-আলোচনা হয়েছে, তার বাইরে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে না। শিক্ষামন্ত্রী এ দিন বলেন, ‘‘রাজ্য সরকারের অনুমোদন নিয়ে ২৬ জুন বিশ্ববিদ্যালয়গুলির কাছে অ্যাডভাইজ়রি পাঠানো হবে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: রোগীকে ফেরালেই কড়া শাস্তি, নির্দেশিকা জারি করল স্বাস্থ্য দফতর

উচ্চ মাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষার সূচি আগেই দেওয়া হয়েছে। তবে ওই পরীক্ষার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ২৬-২৭ জুনের মধ্যে ঘোষণা করা হবে বলে শিক্ষামন্ত্রী এ দিন জানান। তিনি বলেন, “উচ্চ মাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষার বিষয়ে আমরা যে-সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তা এখনও পাল্টাইনি। অন্যান্য বোর্ড কী করছে, সুপ্রিম কোর্ট কী বলছে— সে-দিকে নজর রাখছি। নিজেরাও পর্যালোচনা করছি। আমরা সব দিক থেকে প্রস্তুত আছি।”

বাকি পরীক্ষা আদৌ হবে কি না, সেই বিষয়ে কয়েক লক্ষ পড়ুয়া অত্যন্ত উদ্বিগ্ন। শিক্ষকেরা জানান, পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবকেরা ফোন করে জানতে চাইছেন, বাকি পরীক্ষা হবে তো? দ্রুত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানালে পরীক্ষার্থীদের চাপ কমে। শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাস, পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য-সুরক্ষার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। বাকি পরীক্ষা নিয়ে ভীতসন্ত্রস্ত হওয়ার কিছু নেই। বিভিন্ন জেলার শিক্ষকেরা জানাচ্ছেন, পরীক্ষার প্রস্তুতি চলছে। পরীক্ষা কেন্দ্রে জীবাণুমুক্তির কাজও হচ্ছে। সেন্টার ইনচার্জ, সেন্টার সুপারভাইজ়ারদের নিয়ে বৈঠক করছে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement