Advertisement
০৫ ডিসেম্বর ২০২২
TET

১১ ডিসেম্বর টেট এবং ১১ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জোড়া বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল পর্ষদ

পর্ষদ চেয়ারম্যান জানিয়েছিলেন, টেটের রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে দুর্গাপুজোর পর। নির্দিষ্ট পোর্টালের মাধ্যমেই চাকরিপ্রার্থীরা পরীক্ষার জন্য অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

জারি হল টেটের বিজ্ঞপ্তি।

জারি হল টেটের বিজ্ঞপ্তি। ফাইল ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২০:৫৩
Share: Save:

প্রকাশিত হল টেট পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি। আগামী ১১ ডিসেম্বর প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের টেট হবে। পাশাপাশি টেট উত্তীর্ণ প্রশিক্ষিত প্রার্থীদের নিয়োগেরও বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হল। এ ক্ষেত্রে শূন্যপদের সংখ্যা ১১ হাজার। টেট পরীক্ষার জন্য আগামী ১৪ অক্টোবর থেকে অনলাইনে আবেদন করা যাবে।

Advertisement

সোমবারই শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু জানিয়েছিলেন, ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহ নাগাদ টেট নেওয়া হবে। তবে দিন ঘোষণা করেননি। সে দিন বিকেলেই পর্ষদ জানিয়ে দেয়, পরীক্ষা হবে ১১ ডিসেম্বর। পুজোর আগেই টেটের বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে বলে জানিয়েছিলেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের চেয়ারম্যান গৌতম পাল। সেই অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার জারি হল সরকারি বিজ্ঞপ্তি। গৌতম আগেই জানিয়েছিলেন, টেটের রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে দুর্গাপুজোর পর। ১৪ অক্টোবর থেকে অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে নির্দিষ্ট পোর্টালে। সেই পোর্টালের মাধ্যমেই চাকরিপ্রার্থীরা পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ছিল, সেপ্টেম্বরের মধ্যেই টেট নিতে হবে পর্ষদকে। তা নিয়ে আলোচনা করতে সম্প্রতি বৈঠকে বসেছিল পর্ষদের অ্যাডহক কমিটি। সেখানেই চেয়ারম্যান গৌতমের উপস্থিতিতে সিদ্ধান্ত হয় ডিসেম্বরের মধ্যে টেট পরীক্ষা নেওয়া হবে। কিন্তু তাতে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ পালন করা যাবে না। বৈঠকে তা নিয়েও আলোচনা হয়। ঠিক হয়, কী কারণে তাঁরা শীর্ষ আদালত নির্দেশিত সময়ের মধ্যে পরীক্ষা নিতে পারছেন না তা লিখিত ভাবে জানানো হবে। সিদ্ধান্ত হয়, দিন ক্ষণ স্থির করার জন্য শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করা হবে। সেই আলোচনা হয় সোমবার। সে দিন বিকেলেই পর্ষদ ঘোষণা করে আগামী ১১ ডিসেম্বর হবে টেট। বৃহস্পতিবার তার সরকারি বিজ্ঞপ্তিও জারি হয়ে গেল।

অন্য দিকে, বৃহস্পতিবারই প্রকাশিত হয়েছে রাজ্যের ১১ হাজার শূন্য প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগেরও। আগামী ২১ অক্টোবর থেকে নিয়োগের আবেদনপত্র জমা নেওয়া হবে। ২০১৪ ও ২০১৭-য় যাঁরা টেট উত্তীর্ণ এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হয়েছেন তাঁরা এ ক্ষেত্রে আবেদন করতে পারবেন। এর ফলে নিয়োগের দাবিতে যাঁরা আন্দোলন করছেন, তাঁরাও নিয়োগের আবেদন করতে পারবেন। যাঁরা ডিএলএড ডিগ্রির চূড়ান্ত বর্ষে পড়ছেন কিন্তু পরীক্ষা হয়নি, তাঁরাও আবেদন করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে শূন্যপদের সংখ্যা ১১ হাজার।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.