Advertisement
০১ মার্চ ২০২৪
TMC

নেত্রী মমতাকে সম্মান জানিয়ে ‘সৈনিক’ সমীরের ‘বিদায়’বার্তা ভাবিয়ে তুলেছে দলকে, শুরু ‘মান’ ভাঙানোর চেষ্টা

বৈরাগ্যের সুর হাওড়ার উদয়নারায়ণপুরের তৃণমূল বিধায়ক সমীরকুমার পাঁজার গলায়। তাঁর ফেসবুক পোস্ট ঘিরে শুরু হয়েছে জল্পনা। সমীরের মতো ‘লড়াকু’ এবং ‘সাহসী’ নেতার আচমকা এমন পোস্ট ভাবিয়ে তোলে দলকেও।

তৃণমূল বিধায়ক সমীরকুমার পাঁজার ‘মান’ ভাঙানোর চেষ্টা।

তৃণমূল বিধায়ক সমীরকুমার পাঁজার ‘মান’ ভাঙানোর চেষ্টা। — নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ও হাওড়া শেষ আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৬:০৬
Share: Save:

বৈরাগ্যের সুর হাওড়ার উদয়নারায়ণপুরের তৃণমূল বিধায়ক সমীরকুমার পাঁজার গলায়। তাঁর ফেসবুক পোস্ট ঘিরে শুরু হয়েছে জল্পনা। সমীরের মতো ‘লড়াকু’ এবং ‘সাহসী’ নেতার আচমকা এমন পোস্ট ভাবিয়ে তুলেছে দলকেও। তাঁর সঙ্গে কথা বলে সমস্যা জানার এবং বোঝার চেষ্টা করা হবে বলে জানালেন তৃণমূলের অন্যতম শীর্ষনেতা তথা রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। ‘অভিমানী’ বিধায়কের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন হাওড়া গ্রামীণ জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা বাগনানের বিধায়ক অরুণাভ সেনও।

শনিবার সমীরের করা ফেসবুক পোস্ট ঘিরে শুরু হয়েছে জল্পনা। ফেসবুকে তিনি লেখেন, ‘মহান নেত্রী আছেন বলেই, আমি আজও তৃণমূল দল ছেড়ে যাইনি। কারণ কত ঝড়ঝাপটা পেরিয়ে, নানান ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে থেকে ৩৮টা বছর মহান এই নেত্রীর সঙ্গে এক জন সৈনিক হিসাবে কাজ করতে করতে এখন বড়ই বেমানান লাগছে নিজেকে।’’ তিনি আরও লেখেন, ‘‘আমার মতো অবিভক্ত যুব কংগ্রেসের আমল থেকে যারা আছে, তারা আদৌ কোনও গুরুত্ব পাচ্ছে কি বর্তমানে?... আমার যাওয়ার সময় হল, দাও বিদায়!’ উদয়নারায়ণপুরের তৃণমূল বিধায়কের এই ফেসবুক বার্তা অস্বস্তিতে ফেলে দেয় দলকেও।

পোস্ট দেখামাত্রই হাওড়া গ্রামীণ জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা বাগনানের বিধায়ক অরুণাভ সেন ‘অভিমানী’ বিধায়কের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি তাঁকে ফোনে পাননি বলে জানিয়েছেন অরুণাভ। আনন্দবাজার অনলাইনকে তিনি বলেন, ‘‘আমি পোস্টটি দেখেছি। দেখার পরেই আমি সমীরবাবুর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু আমি তাঁকে পাইনি। আমি চেষ্টা করছি ওঁর সঙ্গে যোগাযোগ করে কথা বলার।’’

সমীরের বার্তা পৌঁছেছে তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বের কাছেও। এ নিয়ে ফিরহাদ বলেন, ‘‘সমীর আমাদের পুরনো ছেলে। দীর্ঘ দিন লড়াই করে সংগঠন করছে। কিছু পাওয়া, না-পাওয়া থাকতেই পারে। সেই থেকেই হয়তো এমনটা লিখে ফেলেছে। আশা করছি, শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলে সমস্যা জানার চেষ্টা করা হবে। তার সমাধানও করা হবে বলে আমি বিশ্বাস করছি।’’

সমীরকে নিয়ে একই সুর রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী তথা মধ্য হাওড়ার বিধায়ক অরূপ রায়ের গলাতেও। তাঁরও মতে, সমীর ‘লড়াকু’ নেতা। পাশাপাশি, দলের সঙ্গে কিছু বিষয়ে তাঁর ‘দূরত্ব’ তৈরি হয়েছে বলেও মেনে নিয়েছেন অরূপ। অরূপের কথায়, ‘‘উনি দলের অনেক পুরনো কর্মী। সিপিএমের আমলে উদয়নারায়ণপুরের মতো জায়গায় বহু তৃণমূল কর্মী খুন হয়েছেন। সেই সময় তিনি সাহসের সঙ্গে দল করেছেন। এখন দলের সঙ্গে কোনও একটা জায়গায় দূরত্ব তৈরি হয়েছে। দল তাঁর সঙ্গে কথা বলতে পারে। আমিও তাঁর সঙ্গে ব্যক্তিগত ভাবে কথা বলব।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE