Advertisement
২৯ নভেম্বর ২০২২
West Bengal News

বেনজির সঙ্ঘাত! রাজ্যপাল আমাকে অপমান করেছেন: তীব্র ক্ষোভ মুখ্যমন্ত্রীর

‘‘রাজ্যপাল আমাকে ফোন করে যে ভাষায় কথা বলেছেন, তাতে আমি অত্যন্ত অপমানিত হয়েছি।’’ মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তিনি বলেন, ‘‘এত অসম্মানিত হয়েছি যে তার পরে এক সময় আমি ভাবছিলাম ছেড়ে চলে যাব।’’

আইন-শৃঙ্খলার অবনতির প্রশ্ন তুলে রাজ্যপাল তাঁর সঙ্গে আজ  যে ভাষায় কথা বলেছেন, তা অত্যন্ত অপমানজনক বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন অভিযোগ করেছেন। —ফাইল চিত্র।

আইন-শৃঙ্খলার অবনতির প্রশ্ন তুলে রাজ্যপাল তাঁর সঙ্গে আজ যে ভাষায় কথা বলেছেন, তা অত্যন্ত অপমানজনক বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন অভিযোগ করেছেন। —ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ০৪ জুলাই ২০১৭ ১৭:১৯
Share: Save:

রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ উগরে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত দু’দিন ধরে উত্তর ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ অঞ্চল থেকে যে সাম্প্রদায়িক হিংসার খবর আসছে, তার প্রেক্ষিতেই এ দিন মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করেন রাজ্যপাল। ফোনে রাজ্যপাল তাঁকে হুমকি দিয়েছেন এবং অত্যন্ত অপমানজনক ভাষায় কথা বলেছেন বলে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ। ‘‘জীবনে কোনও দিন এত অসম্মানিত হইনি’’, রাজ্যপালের সঙ্গে কথোপকথন প্রসঙ্গে এ দিন এই মন্তব্যই করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যপালের বিরুদ্ধে মুখ্যমন্ত্রী এ দিন যে ভাবে সরাসরি ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন, ভারতের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় কিন্তু তা বেশ বেনজির।

Advertisement

ফেসবুকে একটি আপত্তিকর পোস্টকে কেন্দ্র করে অশান্তির সূত্রপাত হয়েছিল উত্তর ২৪ পরগনার বাদুড়িয়া ব্লকের রুদ্রপুর এলাকায়। গত দু’দিনে দ্রুত গোলমাল ছড়িয়ে পড়ে আশপাশের স্বরূপনগর, বসিরহাট, হাসনাবাদ, হাড়োয়া, দেগঙ্গা ব্লকেও। পুলিশি নিষ্ক্রিয়তাতেই সাম্প্রদায়িক হিংসা দ্রুত ছড়াচ্ছিল বলে অভিযোগ ওঠে। আজ, মঙ্গলবার নবান্নে এক সাংবাদিক বৈঠকে এ নিয়েই মুখ খোলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানান, আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি তাঁর সঙ্গে অত্যন্ত অপমানজনক ভাষায় কথা বলেছেন।

‘‘রাজ্যপাল আমাকে ফোন করে যে ভাষায় কথা বলেছেন, তাতে আমি অত্যন্ত অপমানিত হয়েছি।’’ মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তিনি বলেন, ‘‘এত অসম্মানিত হয়েছি যে তার পরে এক সময় আমি ভাবছিলাম ছেড়ে চলে যাব।’’ মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ‘‘আমি মুখ্যমন্ত্রী হয়ে বসে থাকার জন্য এখানে আসিনি। এই চেয়ার নিয়ে আমি ভাবি না। আমি শুধু মানুষের চেয়ারটাকে মানি।’’ মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, রাজ্যপাল তাঁকে ফোন করে বিজেপির হয়ে কথা বলেছেন। তিনি বলেন, ‘‘রাজ্যপাল এমন ভাবে কথা বলছেন, যেন তিনি বিজেপির একজন ব্লক সভাপতি।’’ তাঁর কথায়, ‘‘আমি রাজ্যপালের দয়ায় এখানে আসিনি। বিজেপি, সিপিএম বা কংগ্রেসের দয়ায় আমি মুখ্যমন্ত্রী হইনি। মানুষ আমাকে এখানে পাঠিয়েছে। আমরা কারও চাকর-বাকর নই।’’

আরও পড়ুন: আগে তপসিয়া চলুন, দেখে নেবো, হুঙ্কার উব‌্‌র চালকের

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, রাজ্যপাল নিজের এক্তিয়ার লঙ্ঘন করেছেন। তিনি বলেন, ‘‘আমি রাজ্যপালকে বলেছি, আপনি আমার সঙ্গে এ ভাবে কথা বলতে পারেন না।’’ কেশরীনাথ ত্রিপাঠি বিজেপির কথায় কাজ করেন এবং সব সময় বিজেপির হয়েই কথা বলেন বলেও এ দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেছেন।

রাজভবন সূত্রে খবর, রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যে হতবাক। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এমন কোনও কথাই নাকি রাজ্যপালের হয়নি, যাতে তিনি আহত বা অসম্মানিত হতে পারেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.