Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Jagdeep Dhankhar: রাজ্যপালের নিশানায় এ বার ‘মা’ প্রকল্প, অসাংবিধানিক ভাবে অর্থ বরাদ্দের অভিযোগ

ওই একই টুইটে ফের বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন (বিজিবিএস)-এর আয়োজন এবং সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৮ ডিসেম্বর ২০২১ ১৩:৩২
Save
Something isn't right! Please refresh.
রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।
ফাইল চিত্র।

Popup Close

এ বার রাজ্য সরকারের ‘মা’ প্রকল্পে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ তুললেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্য সরকারের কাছে প্রকল্পের খরচ সংক্রান্ত হিসেব এবং নথি তলব করেছেন তিনি। শনিবার এ বিষয়ে টুইট করে সে কথা জানিয়েছেন রাজ্যপাল। লিখেছেন, ‘অসাংবিধানিক ভাবে ‘মা’ প্রকল্পের তহবিলে অর্থ স্থানান্তর নজরে আসায় রাজ্যপাল ২০২১-এর ৩১ মার্চ পর্যন্ত খরচের হিসেব চেয়েছেন অর্থসচিবের কাছে।’

রাজ্যপালের দাবি, চলতি বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি বাজেট (ভোট অন অ্যাকাউন্ট) বক্তৃতায় ‘মা’ প্রকল্পের জন্য ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দের ঘোষণা করে তৎকালীন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র জানিয়েছিলেন ১ এপ্রিল থেকে তা চালু হবে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফেব্রুয়ারির মধ্যপর্বেই তা চালু করে দেন। আগাম চালু করা ওই প্রকল্পে অসাংবিধানিক ভাবে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছিল বলে তাঁর অভিযোগ।

Advertisement

ওই একই টুইটে ফের বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন (বিজিবিএস) আয়োজন এবং সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ধনখড়। তিনি লিখেছেন, ‘আর এক উদ্‌ঘাটন। বিজিবিএস রিপোর্ট কার্ড নিয়ে অমিত মিত্রের নীরবতা বুঝিয়ে দেয়, পুরো বিষয়টিই আড়াল করার।’

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ‘মা’ প্রকল্পের উদ্বোধন করেছিলেন। অতিমারি আবহে কলকাতা এবং বিভিন্ন জেলায় গরিব পরিবারগুলিকে ৫ টাকায় ডাল-ভাত-তরকারি এবং ডিম দেওয়ার এই প্রকল্পে পরবর্তী সময়ে বাজেট বরাদ্দ করেছিলেন তৎকালীন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র।

নামমাত্র খরচে দুঃস্থদের খাবার দেওয়ার ‘মা’ প্রকল্প জনপ্রিয়তা পেয়েছিল। নীলবাড়ির লড়াইয়ে ওই জনমুখী কর্মসূচি তৃণমূলকে রাজনৈতিক ভাবে সুবিধা দিয়েছিল বলে অনেকে মনে করেন। এ বার সেই প্রকল্পে অসাংবিধানিক ভাবে অর্থ বরাদ্দের অভিযোগ তুললেন ধনখড়।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement