×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ মে ২০২১ ই-পেপার

লকডাউনে দেরি, তাই চালু অস্থায়ী পেনশন

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৭ জুন ২০২০ ০৩:২১
প্রশাসনিক সূত্রের খবর, গত কয়েক মাসে যাঁরা অবসর নিয়েছেন বা নিচ্ছেন, লকডাউনের দরুন তাঁদের পেনশনের নথি তৈরির কাজ বিঘ্নিত হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত।

প্রশাসনিক সূত্রের খবর, গত কয়েক মাসে যাঁরা অবসর নিয়েছেন বা নিচ্ছেন, লকডাউনের দরুন তাঁদের পেনশনের নথি তৈরির কাজ বিঘ্নিত হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত।

লকডাউন পর্বে সরকারি কাজকর্ম ভীষণ ভাবে ব্যাহত হয়েছে। তার প্রভাব পড়েছে পেনশন-প্রক্রিয়ার উপরেও। এই সময়কালে প্রক্রিয়াগত বাধায় কেউ যাতে পেনশন থেকে বঞ্চিত না-হন, তা নিশ্চিত করতে ‘প্রভিশনাল’ বা অস্থায়ী পেনশনের অনুমতি দিল রাজ্যের অর্থ দফতর। প্রশাসনিক সূত্রের খবর, গত কয়েক মাসে যাঁরা অবসর নিয়েছেন বা নিচ্ছেন, লকডাউনের দরুন তাঁদের পেনশনের নথি তৈরির কাজ বিঘ্নিত হয়েছে। তাই ‘এ’, ‘বি’, ‘সি’ এবং ‘ডি’ শ্রেণিভুক্ত অবসরগ্রহণকারী সরকারি কর্মীদের ক্ষেত্রে এই ব্যবস্থা চালু হল।

প্রশাসনিক ব্যাখ্যা, কোনও কর্মীর অবসর নেওয়ার ছ’মাস আগে থেকে তাঁর পেনশন-প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায়। বিভাগীয় প্রধানদের কাছ থেকে নথি পেয়ে সরকারের পেনশন অনুমোদনকারী কর্তৃপক্ষ তা পাঠান এজি বেঙ্গলে। সেখান থেকে সবুজ সঙ্কেত মিললে পেনশন শুরুর ছাড়পত্র দেয় অর্থ দফতর। কিন্তু লকডাউনের জন্য কয়েক মাস এই প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই এর মধ্যে যাঁরা অবসর নিয়েছেন বা নিতে চলেছেন, তাঁদের পেনশন পেতে দেরির আশঙ্কা ছিল। নতুন ব্যবস্থায় এজি-র কাছে নথি যাওয়ার আগেই প্রভিশনাল পেনশনের মাধ্যমে অবসরপ্রাপ্ত কর্মীর পেনশন শুরু হয়ে যাবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে চূড়ান্ত হিসেব কষে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির পেনশন-নথি এজি-র কাছে পাঠানো হবে। সেখান থেকে ছাড়পত্র নিয়ে মূল পেনশন দিতে শুরু করবে সরকার।

তৃণমূল প্রভাবিত রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের আহ্বায়ক সৌম্য বিশ্বাস বলেন, “সময়মতো পেনশন চালু হবে কি না, সেই বিষয়ে অনেকে অনিশ্চয়তায় ভুগছিলেন। অস্থায়ী ব্যবস্থায় হয়তো পুরো পেনশন পাওয়া যাবে না। প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে আগের বকেয়া-সহ পুরো পেনশন পাওয়া যাবে। লকডাউন-কেন্দ্রিক বাধা থেকে রেহাই দিতেই এই মানবিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ফলে অবসর নেওয়ার পরে কাউকে পেনশনহীন অবস্থায় এক মাসও থাকতে হবে না।”

Advertisement
Advertisement