Advertisement
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

সৌদি যুবরাজের কড়াকড়ি দেখে অভিনন্দন ট্রাম্পের

সৌদি প্রশাসনও ইঙ্গিত দিয়েছে, এই ধরপাকড় এখনই থামবে না। যেখানে যেখানে প্রয়োজন, ফের পদক্ষেপ করবে তারা।

ডোনাল্ড ট্রাম্প ও সৌদির যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমন। —ফাইল চিত্র।

ডোনাল্ড ট্রাম্প ও সৌদির যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমন। —ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
রিয়াধ শেষ আপডেট: ০৮ নভেম্বর ২০১৭ ০৩:৪০
Share: Save:

দুর্নীতি দমনে সৌদি প্রশাসনের ধরপাকড় অভিযান দেখে খুশি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি টুইটারে গত কাল রাতে জানিয়েছেন, গোটা প্রক্রিয়াটিতে তাঁর সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে। তাঁর টুইট, ‘‘রাজা সলমন এবং যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমনের প্রতি আমার অসম্ভব বিশ্বাস। ওঁরা জানেন, ওঁরা ঠিক কী করছেন। ওঁরা আজ যাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করছেন, তাঁরা এত দিন নিজের দেশ থেকে প্রচুর সুযোগসুবিধা নিয়েছেন।’’

Advertisement

সৌদি প্রশাসনও ইঙ্গিত দিয়েছে, এই ধরপাকড় এখনই থামবে না। যেখানে যেখানে প্রয়োজন, ফের পদক্ষেপ করবে তারা। রাজার সিংহাসনে বসার আগে যুবরাজ ধীরে ধীরে এ ভাবেই কর্তৃত্ব বাড়ানোর কাজ করে চলেছেন বলে কূটনৈতিক মহলে দাবি। তবে সেই প্রক্রিয়ার মধ্যেই ক্রমশ ঘটনাবহুল হয়ে পড়ছে সৌদি রাজনীতি। গত কালই খবর মিলেছিল ইয়েমেন সীমান্তের কাছে কয়েক জন অফিসারের সঙ্গে সৌদি রাজকুমার মনসুর বিন মকরেনকে নিয়ে মাঝ আকাশে ভেঙে পড়েছে একটি হেলিকপ্টার। রবিবারের সেই ঘটনায় রাজকুমার প্রাণ হারিয়েছেন বলে জানানো হয়।

এই ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পার হতে না হতেই একটি সূত্রে দাবি করা হয়, রাজা ফাহদের ছোট ছেলে ৪৪ বছর বয়সি রাজকুমার আব্দুল আজিজ মারা গিয়েছেন। গত রবিবার অন্য রাজকুমারদের সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়েছিল তাঁকেও। আরবি সংবাদ সংস্থা ‘আলতাহাদ নিউজ’কে উদ্ধৃত করে একটি সূত্র জানিয়েছে, গ্রেফতারের পরে গুলির লড়াইয়ের খবর মিলেছিল। জানানো হয়, আব্দুল আজিজ হাসপাতালে ভর্তি। এর পরে আল মসদার নিউজ নামে এক সংস্থা আজিজের মৃত্যুর খবর দিলেও পরে তারা সেটি সরিয়ে দেয় ওয়েবসাইট থেকে। মঙ্গলবার রাতে এক ব্রিটিশ দৈনিকে আবার সৌদি সরকারকে উদ্ধৃত করে দাবি করা হয়, আব্দুল সুস্থ শরীরে বেঁচে রয়েছেন। দৈনিকটিতে লেখা হয়েছে, সৌদি সরকার আব্দুলের মৃত্যুর খবর গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছে।

এর মধ্যে গত শনিবার ধৃত রাজকুমার এবং মন্ত্রীদের কিছু ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। যাতে দেখা গিয়েছে, রিয়াধের পাঁচতারা হোটেল রিৎজ-কার্লটনের একটি হলঘরের মেঝেতে পাতা সারি সারি বিছানায় পর পর ঘুমিয়ে আছেন রাজকুমাররা! কয়েকশো কোটির মালিক ধনকুবের রাজকুমার আল ওয়ালিদ বিন তালালও রয়েছেন সেখানেই। সৌদি প্রশাসন ঘনিষ্ঠ এক সূত্রের দাবি, রাজপরিবারের জন্য কোনও জেলখানা নেই এ দেশে। আল ওয়ালিদ এক সময় ট্রাম্পের সঙ্গেও ব্যবসা করেছেন। কিন্তু এখন ট্রাম্প তাঁর কড়া সমালোচক। শনিবার রাজকুমার-মন্ত্রীদের গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরে যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমনের সঙ্গে ফোনে ট্রাম্পের কথা হয়েছে বলে দাবি মার্কিন সূত্রে। ট্রাম্প তখনও মহম্মদের প্রশংসা করেন।

Advertisement

শনিবারই আবার রিয়াধ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে ইয়েমেনের দিক থেকে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে তৈরি হয়েছে আর এক বিতর্ক। সন্দেহ, এর পিছনে ইয়েমেনের হুথি জঙ্গিদের হাত রয়েছে। যার জেরে সোমবার থেকে ইয়েমেনের সঙ্গে আকাশ-স্থল-জল পথে সব রকম যোগাযোগ সাময়িক ভাবে বন্ধ রেখেছে সৌদি প্রশাসন। কিন্তু রাষ্ট্রপুঞ্জ আজ জানিয়েছে, এই যোগাযোগ বিরতি তুলে নিতে। কারণ সব যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যুদ্ধ ও জঙ্গি-বিধ্বস্ত ইয়েমেনে ত্রাণ পাঠানো মুশকিল হয়ে পড়েছে। রাষ্ট্রপুঞ্জের মতে, বিশ্বের সব চেয়ে ভয়ঙ্কর মানবিক সঙ্কট তৈরি হয়েছে ইয়েমেনে। এর মধ্যে জ্বালানি, খাবার এবং ওষুধ না পৌঁছলে সেখানে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.