Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

ভেঙে যাওয়ার মুখে রুশ-মার্কিন অস্ত্র চুক্তি, ট্রাম্পকে হুমকি পুতিনের

আগামী সপ্তাহেই মস্কোতে রাশিয়ার সঙ্গে বৈঠকে বসবেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বুল্টন। মনে করা হচ্ছে সেখানেই বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্

নিজস্ব প্রতিবেদন
২১ অক্টোবর ২০১৮ ২১:১২
Save
Something isn't right! Please refresh.
রাশিয়ার অস্ত্রাখানে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র। ছবি: এএফপি।

রাশিয়ার অস্ত্রাখানে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র। ছবি: এএফপি।

Popup Close

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আর রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের হুমকি আর পাল্টা হুমকিতে উত্তপ্ত বিশ্ব রাজনীতি। পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে ভেঙে যাওয়ার মুখে রুশ-মার্কিন পরমাণু অস্ত্র চুক্তি।

শনিবারই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ৩০ বছরের পুরনো এই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন মস্কোকে। আর রবিবার তার পাল্টা দিলেন পুতিন। সাফ জানালেন, চুক্তি থেকে বেরিয়ে গেলে তা আমেরিকার জন্য খুবই ভয়ঙ্কর হবে।

লাগামছাড়া অস্ত্র প্রতিযোগিতায় রাশ টানতে ১৯৮৭ সালে পারস্পরিক বোঝাপড়ার মাধ্যমে এই চুক্তিটি করেছিলেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগন এবং সোভিয়েত প্রেসিডেন্ট মিখাইল গর্বাচেভ। ভূমি থেকে আকাশ যে কোনও মাঝারি পাল্লার (৫০০ কিমি থেকে ৫০০০ কিমি) ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করা হবে না, এই মর্মেই চুক্তিবদ্ধ হয়েছিল মস্কো ও ওয়াশিংটন। সারা বিশ্বের অস্ত্র প্রতিযোগিতায় লাগাম টানতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল এই চুক্তি। গত পাঁচ দশকে নিজেদের পরমাণু অস্ত্রের সম্ভার কমাতে একের পর এক অন্যান্য চুক্তিতেও অংশ নেয় আমেরিকা ও রাশিয়া।

Advertisement



১৯৮৭ সালে মস্কোতে চুক্তি স্বাক্ষর করছেন মিখাইল গর্বাচেভ এবং রোনাল্ড রেগন। ফাইল চিত্র।

শনিবারই মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানান, ‘‘রাশিয়া নিজের মতো অস্ত্র বানিয়ে যাচ্ছে, কিন্তু আমরাই শুধু চুক্তি মেনে চলেছি। আমি জানি না বারাক ওবামা কেন এই চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসার কথা ভাবেননি। ’’ ২০১৪ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ এনেছিলেন রাশিয়ার বিরুদ্ধে। জানিয়েছিলেন, ‘‘চুক্তি ভেঙে একের পর এক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে চলেছে রাশিয়া।’’ কিন্তু ইউরোপীয় রাষ্ট্রনেতাদের চাপেই চুক্তি ভেঙে বেরিয়ে আসার কথা ভাবেননি ওবামা। কারণ, এই চুক্তি ভাঙলে ফের বিপজ্জনক অস্ত্র প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হবে সারা বিশ্ব।

আরও পড়ুন: সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যায় প্রকাশ্যে এল নতুন তথ্য

আমেরিকার অভিযোগ, চুক্তি ভঙ্গ করে মাঝারি পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নোভাটর উৎক্ষেপণ করেছে রাশিয়া। এর ফলে খুব কম সময়ে ন্যাটো গোষ্ঠীভুক্ত দেশ গুলির ওপর পরমাণু হামলা চালানোর ক্ষমতার অধিকারী হয়ে গিয়েছে মস্কো। আর তাতেই গোঁসা আমেরিকার।



কুয়েতে মার্কিন পেট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র। ছবি:রয়টার্স।

আগামী সপ্তাহেই মস্কোতে রাশিয়ার সঙ্গে বৈঠকে বসবেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বুল্টন। মনে করা হচ্ছে সেখানেই বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে আমেরিকা।

আমেরিকার কড়া মনোভাব সামনে আসার পর পাল্টা হুমকির রাস্তায় গেল রাশিয়াও। রবিবারই রুশ উপ বিদেশমন্ত্রী সার্গেই রাবকভ জানালেন, ‘‘ আমেরিকার এই পদক্ষেপ খুবই বিপজ্জনক। আমি জানি না, সমস্ত আন্তর্জাতিক নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে কীভাবে আমেরিকা এই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাবে। আসলে রাশিয়াকে ব্ল্যাকমেল করে আমাদের কাছ থেকে কিছু ছাড় পেতে চাইছে ওয়াশিংটন। ’’

আরও পড়ুন: আর ভয় নেই, ভারতকে জানাল চিন, স্বস্তি অরুণাচল-অসমে

যদিও আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করছেন, আমেরিকা ও রাশিয়ার অস্ত্রচুক্তি থেকে আসল সুবিধে পাচ্ছে চিন। এই সুযোগে নিজেদের অস্ত্রের সম্ভার বাড়িয়ে চলেছে তারা। তা বুঝতে পেরেই এখন চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার গোঁ ধরেছে আমেরিকা। আর তাই রাশিয়ার বিরুদ্ধে আনা হচ্ছে চুক্তি লঙ্ঘনের অভিযোগ।

(আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, আন্তর্জাতিক চুক্তি, আন্তর্জাতিক বিরোধ, আন্তর্জাতিক সংঘর্ষ- সব গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক খবর জানতে চোখ রাখুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।)



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement