Advertisement
০১ ডিসেম্বর ২০২৩
Viral video

মেয়ে বলার আগেই তার স্বপ্ন পূরণ করতে রাত্রি থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে পড়লেন বাবা

শুধু এলিসা নয় এই ড্রেস কিনতে তাঁর মতো অনেকেই আগ্রহী ছিলেন। ফলে ড্রেসটির বেশ চাহিদা ছিল। দোকানটি সকাল সাতটায় খোলে। কিন্তু চাহিদা বেশি থাকায় ভোর থেকে দোকানের সামনে যাঁরা লাইন দিচ্ছিলেন তাঁদের অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছিল।

মেয়ের বিয়ের ড্রেস কিনতে রাত্রি থেকে দোকানের লাইনে। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া।

মেয়ের বিয়ের ড্রেস কিনতে রাত্রি থেকে দোকানের লাইনে। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া।

সংবাদ সংস্থা
পোর্টল্যান্ড, আমেরিকা শেষ আপডেট: ২৮ জানুয়ারি ২০২০ ১৪:৩৬
Share: Save:

সন্তানদের খুশির জন্য মা-বাবা খাওয়া, ঘুমও ত্যাগ করে সারা রাত দোকানের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে পারেন। তেমনই একটি ভিডিয়ো সামনে এসেছে। মেয়ে বলার আগেই তার পছন্দের পোশাক কিনতে মাঝ রাত রাত থেকে উঠে লাইনে দাঁড়িয়ে পড়লেন এক ব্যক্তি।

আমেরিকার পোর্টল্যান্ডের বাসিন্দা এলিসা রয় নামে এক মহিলার সম্প্রতি বিয়ের ঠিক হয়। কিন্তু বিয়েতে কী পরবেন তা নিয়ে চিন্তায় পড়েন। অনেক রকম ড্রেস নিয়ে ভাবনা চিন্তা করতে থাকেন। ভাবেন কোন ড্রেসে তাঁকে সব থেকে সুন্দর লাগবে। বাজেটের মধ্যে একটি ড্রেস পছন্দও হয় তাঁর। তেমনই ড্রেসের সেল চলছিল সামনের একটি দোকানে।

শুধু এলিসা নয় এই ড্রেস কিনতে তাঁর মতো অনেকেই আগ্রহী ছিলেন। ফলে ড্রেসটির বেশ চাহিদা ছিল। দোকানটি সকাল সাতটায় খোলে। কিন্তু চাহিদা বেশি থাকায় ভোর থেকে দোকানের সামনে যাঁরা লাইন দিচ্ছিলেন তাঁদের অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছিল।

আরও পড়ুন: চলন্ত গাড়িতে এই কাজ করে মহিলাকে যেতে হল হাসপাতালে!

এমন সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইছিলেন না এলিসা। কিন্তু তিনি নিজে তো আর ভোর ৪টে থেকে লাইন দিতে পারবেন না। তাই ভাবছিলেন তাঁর বাবাকে বলবেন কিনা! যদি ড্রেস কোনও ভাবে যোগাড় করে দিতে পারেন। যেমন ভাবা তেমন কাজ। বাবাকে একটি মেসেজ করেন এই ড্রেস কিনে দেওয়ার জন্য। সঙ্গে সঙ্গে বাবার মোবাইল থেকে উত্তরও পেয়ে যান। সেই উত্তর দেখে চমকে যান এলিসা। তাঁর বাবা লিখেছেন, ইতিমধ্যেই ভোর ৪টে থেকে তিনি লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন।

আরও পড়ুন: মাছ তো নয় যেন ছুরি, এফোঁড়-ওফোঁড় হয়ে গেল কিশোরের ঘাড়!

বাবার এমন কাজ দেখে আনন্দে আত্মহারা হয়ে যান এলিসা। এলিসাও পরে সেই দোকানে পৌঁছে যান। দেখেন তাঁর বাবা দোকানের সামনে বসে রয়েছেন। এলিসা কয়েক সেকেন্ডের একটি ভিডিয়োও পোস্ট করেছেন।

দেখুন সেই ভিডিয়ো:

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE