Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

রিসেপশন থেকে রুম সার্ভিস, এই হোটেলে সবাই রোবট

সংবাদ সংস্থা
০৯ জুন ২০১৬ ১১:৫৯
এ ভাবেই আপনাকে স্বাগত জানাবে রোবট রিসেপশনিস্ট।

এ ভাবেই আপনাকে স্বাগত জানাবে রোবট রিসেপশনিস্ট।

যন্ত্রকে দিয়ে মানুষ নিজের কাজ করিয়ে নেওয়ার কাজটা শুরু করেছে বহু দিন আগেই। সেই কাজেই আরও এক ধাপ এগোল জাপান। নিজের ফাইফরমাশ খাটার জন্য আস্ত রোবট বানিয়ে ফেলল তারা। আর সেই রোবটদের নিয়ে খুলে ফেলল আস্ত একটা হোটেল। যে হোটেলের রিসেপশনিস্ট থেকে সাফাইকর্মী সবাই রোবট।

হোটেলের নাম হেন-না৷ জাপানি ভাষায় যার অর্থ আশ্চর্য বা অদ্ভুত। অদ্ভুত-ই তো। এমন একটা হোটেল যেখানে রোবট আপনাকে স্বাগত জানাবে, আপনার খাবার পৌঁছে দেবে বা আপনার মালপত্র পৌঁছে দেবে নির্দিষ্ট জায়গায়৷ কোনওটাই বাড়িয়ে বলা নয়। বিশ্বের প্রথম রোবট হোটেলে এমনই সব পরিষেবা পাবেন আপনি৷ মানুষ কর্মীর খরচের তুলনায় রোবট কর্মীর খরচ অনেকটাই কম৷ মানুষের ক্লান্তি আছে, উল্টো দিকে রোবটদের ক্লান্তির কোনও বালাই নেই৷

এখানে দেখা মিলবে অ্যাক্টরয়েড রোবটদেরও৷ এই রোবটদের দেখতে অবিকল মানুষের মতো। আরও ভাল করে বলতে গেলে সুন্দরী মহিলাদের মতো৷ স্বচ্ছন্দে ইংরেজি, জাপানি, কোরিয়ান, চাইনিজ ভাষা বলতে ও বুঝতে পারে তারা৷ প্রোগ্রামিংয়ের সাহায্যে অন্য আরও ভাষা বুঝতেও এদের অসুবিধা নেই। মানুষের চোখের ভাষা অবলীলায় পড়া থেকে শুরু করে হাসিমুখে আগন্তুকদের অভ্যর্থনা জানানো কিংবা কফি করে খাওয়ানোয় এদের জুড়ি মেলা ভার! আর মুখে সবসময়েই লেগে রয়েছে অমলীন হাসি। হাসিমুখে খাবার পরিবেশন থেকে মালপত্র টেনে নিয়ে যাওয়া— সব কাজেই সদা হাসিমুখ৷ কে বলবে এরা মানুষ নয়, দিব্যি মানুষের মতো এদের চালচলন৷ এমনকী রাতে ঘুম না এলে এদের সঙ্গে কিছুক্ষণ গল্প করে নিলেও মন ভাল হয়ে যাবে আপনার।

Advertisement

একমাত্র ঘুমনোর সময় ছাড়া আপনি সবসময় রোবট দ্বারা পরিবেষ্টিত থাকবেন৷ হোটেলটি চালু হয়েছিল গত বছরের শেষ দিকে। তবে প্রথম কয়েক মাস একটু দেখে নেওয়ার জন্য তেমন ভাবে বুকিং নেননি কর্তৃপক্ষ। তবে এখন বুকিং করতে আর বাধা নেই। আর সে জন্যই ইতিমধ্যে ভিড় শুরু হয়ে গেছে এই হোটেলে৷ একটি কক্ষে সর্বনিম্ন ১০ হাজার ইয়েন দিয়েই এই পরিষেবা নেওয়া সম্ভব৷ রোবটের হাতে পরিষেবা নেওয়ার জন্য উৎসাহী মানুষের তাতে অবশ্য অসুবিধে নেই! হাজার হোক রোবটিক হোটেল বলে কথা!

তবে এই হোটেলটা জাপানের ঠিক কোথায় সেটাই তো জানানো হয়নি আপনাদের। এটা সেই নাগাসাকি শহরে, যে শহর সাক্ষী হয়ে আছে বিজ্ঞানের এক দানবীয় কীর্তির। পরমাণু বোমার ক্ষত এখনও বইছে এর শিরায়, উপশিরায়, মনে। এই শহরই আজ দেখালো বিজ্ঞানের আর এক অনন্য কীর্তিকে। অসভ্যতার বিরুদ্ধে সভ্যতার নীরব প্রতিবাদ বোধহয় একেই বলে।

আরও পড়ুন:
রোবট এবার পেন দিয়ে লিখবে, তুলির টানে ছবি আঁকবে নিজের মর্জিতে!

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement