Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

২১ মাস পর মরণাপন্ন সন্তানের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেলেন ইয়েমেনের মহিলা

গুরুতর মস্তিষ্কের সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে আমেরিকার হাসপাতালে ভর্তি সন্তান আবদুল্লা। কিন্তু পরবাসী হওয়ায় মা সাইমা সুযোগ পাচ্ছিলেন না তার সঙ্গে দ

সংবাদ সংস্থা
১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ ১৭:১১
Save
Something isn't right! Please refresh.
অসুস্থ সন্তানের সাথে দেখা করার সুযোগ অবশেষে পেলেন মা।

অসুস্থ সন্তানের সাথে দেখা করার সুযোগ অবশেষে পেলেন মা।

Popup Close

গুরুতর অসুস্থ হয়ে প্রায় মৃত্যুর মুখে দু’বছরের সন্তান, অথচ ২১ মাসের পর তার মা সুযোগ পেলেন তার সঙ্গে দেখা করার!

গুরুতর মস্তিষ্কের সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে আমেরিকার হাসপাতালে ভর্তি সন্তান আবদুল্লা। কিন্তু পরবাসী হওয়ায় মা সাইমা সুযোগ পাচ্ছিলেন না তার সঙ্গে দেখা করার। এর পিছনে ছিল ট্রাম্প প্রশাসনের অভিবাসন নীতি।

সূত্রের খবর ইয়েমেনের নাগরিক সাইমা সুইলের সঙ্গে বিয়ে হয় আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী আলি হাসানের। ইয়েমেনের বাসিন্দা হলেও মিশরে বসবাস করেন সাইমা। ২০১৬ সালে ইয়েমেনে তাঁদের দেখা হওয়ার পরেই বিয়ে করেন তাঁরা, এবং তারপরেই তাঁদের সন্তান আবদুল্লার জন্ম। কিন্তু জন্ম থেকেই মস্তিষ্কের জটিল সমস্যায় ভুগছেন তাদের সন্তান।

Advertisement

আরও পড়ুন: বহুতল থেকে ডলার উড়িয়ে গ্রেফতার কোটিপতি

কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকায় সরকার গঠনের পর যে সকল দেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়, মুসলিম অধ্যুষিত ইয়েমেন ছিল তাদের মধ্যে অন্যতম। আবদুল্লার পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকায় তাকে নিয়ে আমেরিকা চলে আসেন আলি। কিন্তু ট্রাম্প সরকারের নীতিতে আটকে যান সাইমা। ২০১৭ সালের অগাস্ট এবং ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে পরপর দুবার ইন্টারভিউ দিয়েও ভিসা পাননি তিনি। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই নিন্দার ঝড় বয়ে যায়। সমালোচনার মুখে পড়তে হয় ট্রাম্প প্রশাসনকে। অনেকেই একে অমানবিক এবং অ-আমেরিকান সুলভ বলেও অভিহিত করেন।

আরও পড়ুন: প্রেমের টানে পাক জেলে মুম্বইয়ের যুবক! মুক্তি পেলেন ছ’বছর পর

বারংবার আবেদনের পর অবশেষে অপেক্ষার অবসান হয় সাইমার। দীর্ঘ ২১ মাস পর নিজের মরনাপন্ন সন্তানের সঙ্গে মিলিত হতে পারার সুযোগ পান ইয়েমেনের এই মহিলা। অবশেষে সন্তানের সঙ্গে মিলিত হতে পেরে তিনি তাঁর স্বস্তি ব্যক্ত করেছেন তিনি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement