এপ্রিল-জুন ত্রৈমাসিকে বৃদ্ধি ৫ শতাংশে নামার পরে অর্থনীতিতে মন্দা ঘনানোর অভিযোগ তুলে বিরোধীরা কেন্দ্রকে বিঁধছে। কিন্তু শুক্রবার কলকাতায় এসে সেই আশঙ্কা ওড়ালেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। জানালেন, ‘‘বৃদ্ধি কমা নিয়ে চিন্তিত নয় কেন্দ্র।’’ তাঁর দাবি, ‘‘বৃদ্ধি ৫ শতাংশে নামা এই প্রথম নয়। আগে এর থেকেও নীচে নামার নজির আছে। কিন্তু অর্থনীতি ভেঙে পড়েনি।’’

তবে আর্থিক পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় কর বাবদ আয় কমলে পরিকাঠামো-সহ উন্নয়ন ব্যাহত হবে কি না তা জানতে চাওয়া হলে, কোনও মন্তব্য করেননি তিনি। শুধু বলেছেন, কর সংগ্রহ কমলে তা জুঝতে ব্যবস্থা নেবেন। ত্রুটি থাকবে না উজ্জ্বলা যোজনা, ১০০ দিনের কাজের মতো সামাজিক প্রকল্পের দায় মেটানোতেও। তবে রাজকোষের টানাটানি সামলে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভাঁড়ার ভাগের টাকা ব্যবহার হবে কি না, সে প্রসঙ্গে মিলেছে সেই পুরনো জবাব, ‘‘এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।’’

কলকাতার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ কর অফিসারদের সঙ্গে এ দিন বৈঠক করেন নির্মলা। তাঁদের বলেন, করদাতারা যাতে অযথা হয়রান না হন, তা খেয়াল রাখতে। এ জন্য আয়কর নোটিসের ভাষাতেও নজর দিতে বলেন তিনি। জানান, অফিসারেরা যাতে ইচ্ছে মতো কাউকে নোটিস পাঠাতে না পারেন, তা নিশ্চিত করতে কেন্দ্রের ব্যবস্থার কথা।

এ দিন রাজ্যের বণিকসভাগুলির সঙ্গেও বসেন নির্মলা। ভারত চেম্বারের প্রেসিডেন্ট সীতারাম শর্মা জানান, তাঁরা ব্যাঙ্কের প্রাইম লেন্ডিং রেট কমিয়ে ৯% করা, জমায় সুদ বাড়িয়ে ৯% করা বা আর্থিক প্রকল্প ঘোষণার মতো প্রস্তাব দিয়েছেন। যাতে ঋণ দেওয়া সহজ হয়, আমানত বাড়ে ও চাঙ্গা হয় শিল্প। তাঁর দাবি, অর্থমন্ত্রী বলেছেন সব শুনে ব্যবস্থা নেওয়ার পক্ষে তাঁরা।