দু’-দু’বার পিছিয়েছে প্রকল্প। অবশেষে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে আঙুলের ছাপ, চোখের মণির পাশাপাশি গ্রাহকের মুখের ছবি মিলিয়ে আধার তথ্য যাচাইয়ের ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। আপাতত টেলিকম পরিষেবায় ধাপে ধাপে তা চালু হবে। অন্যান্য ক্ষেত্রে যথা সময়ে নির্দেশিকা জারি হবে বলে জানিয়েছেন আধার কর্তৃপক্ষ (ইউআইডিএআই)।

প্রায়ই অভিযোগ ওঠে, আঙুলের ছাপ বা চোখের মণি দিয়ে আধার তথ্য যাচাই করতে গিয়ে হয়রানি হয় গ্রাহকদের। আবার অন্যের আঙুলের ছাপ দিয়ে মোবাইল সংযোগেরও অভিযোগ উঠেছে। সে কারণে ১৫ জানুয়ারি নির্দেশিকায় জানানো হয়, ১ জুলাই থেকে মুখের ছবি মিলিয়ে দেখার ব্যবস্থা চালু হবে। পরে তা পিছিয়ে ১ অগস্ট করা হয়। কিন্তু দু’বারই প্রকল্প চালু করা যায়নি। এ বার ইউআইডিএআই জানিয়েছে, ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে প্রতি মাসে টেলি সংস্থাগুলি যত সিম চালু করবে, তার অন্তত ১০ শতাংশের ক্ষেত্রে গ্রাহকের মুখের ছবি আগে থেকে যাচাই করতে হবে। অন্যথায় জরিমানা হবে সংস্থার।

তবে ইউআইডিএআইয়ের সিইও অজয় ভূষণ পাণ্ডে জানান, আধার তথ্যের ভিত্তিতে সিম দিলেই এই সুবিধা মিলবে। অনেকের আশঙ্কা, সে ক্ষেত্রে কার্যত ঘুরিয়ে আধার নম্বর দিতে বাধ্য করা হবে গ্রাহককে।

টেলিকম শিল্পের সংগঠন সিওএআইয়ের ডিজি রাজন ম্যাথুজের বক্তব্য, তথ্য যাচাইয়ের একাধিক সুবিধা পুরো ব্যবস্থাকে আরও সুরক্ষিত করবে। এ দিকে, আধার তথ্য অপব্যবহার করলে অভিযুক্তের জরিমানার দাবি তুলেছেন ‘হুইস্‌ল ব্লোয়ার’ এডওয়ার্ড স্নোডেন।

মুখ দিয়ে যায় চেনা

• নতুন কী?
এক বার ব্যবহারের পাসওয়ার্ড (ওটিপি), আঙুলের ছাপ, চোখের মণির পরে এ বার মুখ মিলিয়েও আধার যাচাইয়ের সুবিধা।

• হঠাৎ কেন?
অস্পষ্টতার জন্য আঙুলের ছাপ বা মণির ছবি অনেক সময় আধারের তথ্য ভাণ্ডারের সঙ্গে মেলে না। বেশি সমস্যা বিশেষত বয়স্কদের। আধারের সঙ্গে মোবাইল নম্বর জোড়া না থাকলে, কাজে আসবে না ওটিপি-ও। তাই অসুবিধা দূর করতেই মুখ মেলানোর ভাবনা।

তা ছাড়া, আঙুলের ছাপ ‘নকল’ করে জালিয়াতির অভিযোগ ওঠে। মুখে সেই সুরক্ষা বাড়বে বলে দাবি। যদিও অনেকের দাবি, ছবি নকল করে তথ্য ফাঁসের আশঙ্কা থেকেই যায়।

•  মুখ চেনার পদ্ধতি
সাধারণত মুখের বিভিন্ন অংশে বেশ কয়েকটি বিন্দু কল্পনা করে তাদের সরলরেখা দিয়ে যুক্ত করা হয় (কিছুটা উপরের ছবির মতো)। সে ক্ষেত্রে বিন্দুগুলির পারষ্পরিক দূরত্ব, কৌণিক অবস্থান মেলে। তৈরি হয় বিভিন্ন জ্যামিতিক আকারও।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, প্রত্যেকের মুখের ক্ষেত্রে তা সম্পূর্ণ আলাদা। তার উপর, বয়সের সঙ্গে চেহারা পাল্টালেও জ্যামিতিক আকারগুলি মোটামুটি একই থাকে। এই সমস্ত কারণেই ছবি মিলিয়ে আধার যাচাইয়ের ভাবনা।

• যাচাই কী ভাবে?
আধারে নথিভুক্তির সময়ে তোলা ছবি তার তথ্য ভাণ্ডারে রয়েছে। যাচাইয়ের সময়ে ফের ছবি তুলে তা পুরনোটির সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হবে।

• কবে চালু?
১৫ সেপ্টেম্বর থেকে। পর্যায়ক্রমে।

• প্রথমে কোথায়?
আপাতত টেলিকম পরিষেবায়। আধার দিয়ে নেওয়া সিমে গ্রাহকের কেওয়াইসি তথ্য যাচাইয়ের জন্য।