Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

আসতে পারে ১৮ হাজার কোটি

ওএনজিসি-র শেয়ার বিক্রি নিয়ে সিদ্ধান্ত সম্ভবত অগস্টেই

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৬ জুলাই ২০১৪ ০১:৫৯

প্রত্যাশা মতোই রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থায় নিজেদের হাতে থাকা শেয়ার বিক্রির বিষয়ে ভাবনা-চিন্তা শুরু করে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। তেল মন্ত্রক সূত্রে খবর, অগস্টেই তারা সিদ্ধান্ত নেবে তেল সংস্থা অয়েল অ্যান্ড ন্যাচারাল গ্যাস কর্পোরেশনের (ওএনজিসি) ৫% শেয়ার বিক্রি করা হবে কিনা। বর্তমান বাজার দরে যে শেয়ারের মোট মূল্য প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকা। এই অর্থবর্ষে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থায় সরকারি শেয়ার বেচে প্রায় ৬৩ হাজার কোটি টাকা রাজকোষে ভরার যে লক্ষ্যমাত্রা বাজেটে ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি, তার একটা বড় অংশ আসবে ওএনজিসির শেয়ার বিক্রি সম্পূর্ণ হলে।

অর্থ মন্ত্রক সূত্রের দাবি, বাজার দর উঁচু থাকায় এখন ওএনজিসি-সহ বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার শেয়ার বেচতে আগ্রহী কেন্দ্র। তেল মন্ত্রকের এক উচ্চপদস্থ কর্তা জানান, অর্থমন্ত্রকের বিলগ্নিকরণ দফতর ইতিমধ্যেই ওএনজিসির ৫% অংশীদারি বিক্রি নিয়ে তাঁদের মন্ত্রকের মন্তব্য চেয়ে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছে।

প্রসঙ্গত, রাজকোষ ঘাটতি কমাতে মোদী সরকারও যে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থায় নিজেদের হাতে থাকা শেয়ারের একাংশ বিক্রিকে অন্যতম হাতিয়ার করে এগোবে, সে বিষয় প্রথম থেকেই নিশ্চিত ছিল সংশ্লিষ্ট মহল। তাদের ধারণা, বাজেটে ওই ঘাটতি জাতীয় আয়ের ৪.১ শতাংশে বেঁধে দেওয়ায় ও সরকারি সম্পত্তি বিক্রির বড়সড় লক্ষ্যমাত্রা নেওয়ায় তা এ বার স্রেফ সময়ের অপেক্ষা। বিশেষজ্ঞদের মতে, নয়া সরকারের প্রথম বাজেটে দেওয়া আর্থিক সংস্কারের প্রচ্ছন্ন ইঙ্গিত জেটলিরা সত্যিই বাস্তবায়িত করার চেষ্টা করেন কিনা, আগামী মাসে মূলত তারই পরীক্ষা ওএনজিসির এই শেয়ার বেচার সিদ্ধান্ত নেওয়া বা না-নেওয়া।

Advertisement

সরকারি হিসাব বলছে, বর্তমানে তেল সংস্থাটির বাজার দর ৩,৪৬,০৪৭ কোটি টাকা (৫৭০০ কোটি ডলার)। কিন্তু এক দিকে, উৎপাদন তেমন ভাবে না-বাড়াতে পারা ও অন্য দিকে, কেন্দ্রীয় ভর্তুকির জমানায় তুলনায় কম দামে তেল ও গ্যাস বিক্রি করতে বাধ্য হওয়ার জেরে বেশ কিছু দিন ধরেই ভুগছে সংস্থার ব্যবসা। এখন ওএনজিসি-র ৬৯% মালিকানা সরাসরি কেন্দ্রের হাতে। বাকি শেয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা এলআইসি, ইন্ডিয়ান অয়েল এবং গেইলের।

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার বেসরকারিকরণই মোদী সরকারের উদ্দেশ্য, অনেকের এই আশঙ্কাকে উড়িয়ে তেল ও গ্যাস বিশেষজ্ঞদের মত, বেসরকারিকরণ নয়, রাজকোষ ঘাটতি কমানোই শেয়ার বিক্রির আসল লক্ষ্য। তাঁদের এটাও মত, ব্যবসায় দক্ষতা বাড়াতে এবং তেল রফতানির উপর দেশের নির্ভরশীলতা কমাতেই কেন্দ্রের এই ধরনের পদক্ষেপ। শেয়ার বিক্রির সম্ভাবনা প্রকাশ পাওয়ায় এ দিন ওএনজিসির শেয়ার দরও বেড়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে খবর, ওএনজিসির শেয়ার নিয়ে অগস্টে সিদ্ধান্ত হলেও, বিলগ্নিকরণের এই ‘যজ্ঞ’ অবশ্য শুরু হবে সেল-কে দিয়ে। পরবর্তীকালে যে তালিকায় কয়লা উৎপাদনকারী কোল ইন্ডিয়া-সহ বিদ্যুৎ সংস্থা কিংবা বিমান- হেলিকপ্টার ইত্যাদি তৈরির সংস্থাগুলিরও দেখা মিলতে পারে বলে জানিয়েছে সরকারি সূত্র।

আরও পড়ুন

Advertisement