অর্থনীতি নিয়ে চিন্তার মধ্যেই টানা বেড়ে চলেছে শেয়ার বাজার। সোমবারও ফের নতুন নজির গড়ল সেনসেক্স। এ নিয়ে টানা সাত দিন বাড়ল সূচকটি। বাজার বন্ধের সময়ে তা থামে ৪০,৩০১.৯৬ অঙ্কে। শুক্রবারের তুলনায় প্রায় ১৩৭ পয়েন্ট বেশি। দিনের এক সময়ে ৪০,৪৮৩.২১ অঙ্কে উঠে লেনদেনের মাঝে নতুন নজিরও তৈরি করেছিল সেনসেক্স। পাশাপাশি, নিফ্‌টিও দাঁড়িয়ে ১২ হাজারের দোরগোড়ায়। দিনের শেষে ৫১ পয়েন্ট উঠে তা থামে ১১,৯৪১.৩০ অঙ্কে। তবে সূচকের এই উত্থান আদৌ অর্থনীতির প্রতিচ্ছবি কি না, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

বাজার মহলের মতে, আজ সূচক বাড়ার পিছনে দায়ী মূলত বিভিন্ন দেশের আর্থিক পরিস্থিতি শোধরানোর খবর। গত সপ্তাহ শেষে আমেরিকার পক্ষ থেকে চিনের সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তি করার সদর্থক বার্তা এসেছে। যার জের পড়েছে সূচকে। এই কারণে এ দিন ডলারের সাপেক্ষে বেড়ে টাকার দামও বেড়ে পৌঁছেছে পাঁচ সপ্তাহের সর্বোচ্চ অঙ্কে। এক ডলার দাঁড়িয়েছে ৭০.৭৭ টাকায়। পাশাপাশি, বিদেশি লগ্নিকারী সংস্থাগুলির বাজারে ফেরা ও কেন্দ্রের থেকে আসা কর সংস্কারের ইঙ্গিতও ইন্ধন জুগিয়েছে সূচকের উত্থানে।

তবে সূচক টানা বাড়লেও, এখনই উৎসাহী হতে নারাজ বিশেষজ্ঞদের একাংশ। তাঁদের মতে, বাজার টানা উঁচুতে উঠছে ঠিকই। কিন্তু তা অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষণ নয়। বরং সম্প্রতি সামনে আসা বেশ কিছু আর্থিক পরিসংখ্যান বেশ দুশ্চিন্তার। অনেকের আবার মত, আগামী কয়েক দিনে বাজার পড়তেও পারে।

ক্যালকাটা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রাক্তন সভাপতি কমল পারেখ বলেন, ‘‘কেন্দ্র আরও কিছু পদক্ষেপ করতে পারে, এই আশাতেই বাড়ছে বাজার। তবে গত দেড় মাসেই নিফ্‌টি প্রায় ১,৩০০ পয়েন্ট বেড়েছে। ফলে মুনাফার টাকা তোলার ভাল সুযোগ এসেছে। লগ্নিকারীরা ওই সুযোগ কাজে লাগালে যে কোনও সময়ে বাজারে বড় সংশোধন হতে পারে।’’