• নিজস্ব প্রতিবেদন 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

টানা এতটা বৃদ্ধি এই প্রথম

Fuel
প্রতীকী ছবি

কলকাতায় সোমবার লিটার পিছু পেট্রল ৮১ টাকা ও ডিজেল ৭৪ টাকা ছাড়াল। সংশ্লিষ্ট মহলের দাবি, গত সাত তারিখ থেকে এ দিন পর্যন্ত দেশে টানা জ্বালানি দু’টির দাম যতটা বেড়েছে, তেমন এর আগে আর কখনও দেখা যায়নি। তেলের দর নির্ধারণে সরকারি নিয়ন্ত্রণ ওঠার পরে দিল্লিতে ডিজেলের দর এখন সব থেকে বেশি। সাধারণ মানুষ থেকে বিরোধী দলের নেতারা, সকলেই ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন নাগাড়ে। তবে কেন্দ্র ও রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলির তরফে দামে রাশ টানার কোনও ইঙ্গিত এখনও মেলেনি। প্রশ্ন উঠছে, কোষাগার ভরার জন্য আয় বাড়াতে কেন জ্বালানির মতো ক্ষেত্রকেই বেছে নেওয়া হচ্ছে, যা আমজনতার উপরে প্রভাব ফেলে?

সোমবার সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির দাবি, ‘‘কেন্দ্র ও তেল সংস্থা বিপুল মুনাফা কামাচ্ছে। এটা অপরাধ।..সরকার সাধারণ মানুষের বেঁচে থাকার জন্য সমস্যা দূর করার বদলে তাঁদের আরও হেনস্থা করছে।’’ অবিলম্বে পেট্রোপণ্যে উৎপাদন শুল্ক কমানোর দাবি তুলে দেশ জুড়ে আন্দোলনে নামার হুমকিও দিয়েছেন বাম নেতারা।

বাড়ছে চিন্তাও


•পেট্রল-ডিজেলের দর সরকারের নিয়ন্ত্রণ-মুক্ত হওয়ায় পরে টানা এত বেশি বাড়েনি।

•দিল্লিতে ডিজেল ইতিমধ্যেই নতুন রেকর্ড গড়েছে।

•কলকাতায় জ্বালানি দু’টির দর ২০১৮ সালের নভেম্বরের উচ্চতা ছুঁয়ে ফেলেছে। যখন বিশ্ব বাজারে অশোধিত তেল ছিল অনেক চড়া।

•প্রশ্ন উঠছে, পেট্রল-ডিজেল এত দামি অশোধিত তেল ব্যারেলে ৪০ ডলার পেরোতেই, আরও বাড়লে কোথায় পৌঁছবে?

 

১৬ দিনে বাড়ল দাম

   শহর                             পেট্রল                  ডিজেল

  কলকাতা                       ৭.৯৭                     ৮.৫২

    দিল্লি                             ৮.৩০                    ৯.৪৬

    মুম্বই                             ৮.০৪                    ৯.০৩

   চেন্নাই                           ৭.৩৩                    ৮.০৮

             

(আইওসি-র দাম, লিটার পিছু টাকায় )

সংশ্লিষ্ট মহলের দাবি, এর আগে এক পক্ষকালে পেট্রল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধি হয়েছে বড়জোর লিটারে ৪-৫ টাকা। এ বারের মতো একটানা এতটা দাম কখনও বাড়েনি। কলকাতায় আইওসি-র পাম্পে এ দিন পেট্রল পেরিয়েছে ২০১৮ সালের ১ নভেম্বরের দরকে। বিকিয়েছে লিটারে ৮১.২৭ টাকা। ওই বছরই ১৩ নভেম্বরের পরে ডিজেলকে ৭৪.১৪ টাকা হতে দেখা যায়নি। দিল্লিতে ডিজেল ছিল ৭৮.৫৫ টাকা। গত ১৭ জুন থেকে রোজই নতুন রেকর্ড তৈরি হচ্ছে সেখানে। 

সংসদের অধিবেশন শেষের মুখে মার্চে জ্বালানিতে বাড়তি উৎপাদন শুল্ক বসানোর প্রস্তাব পাস করায় কেন্দ্র। ওই শুল্ক বসার পরে বিশ্ব বাজারে অশোধিত তেলের দর রেকর্ড তলানি ছুঁলেও, দাম কমাতে পারেনি তেল সংস্থাগুলি। সূত্রের দাবি, শুল্ক চাপায় বাড়তি আর্থিক চাপ নিতে হয়েছে তাদের। এখন সেটাই পুষিয়ে নিচ্ছে।

আরও পড়ুন: দুই অর্থবর্ষে পিএফে আরও ১.৩৯ কোটি

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন