ইস্পাতের চাহিদায় যে টান চলছে, তা অনেক দিন ধরেই বলে আসছে শিল্প। সেই পরিস্থিতি কতটা গভীর তা বোঝা গেল টাটা স্টিলের লগ্নি ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্তে। শনিবার কলকাতায় সংস্থার এমডি-সিইও টি ভি নরেন্দ্রন জানান, চলতি অর্থবর্ষে আগের লক্ষ্যমাত্রার থেকে প্রায় ৩০% লগ্নি কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। ভারতের পাশাপাশি লগ্নি ছাঁটাই করা হবে ইউরোপেও। বন্ধ হবে ইউরোপের বেশ কিছু শাখা সংস্থা। আয়ের বিকল্প পথ হিসাব জোর দেওয়া হবে ইস্পাতের তৈরি পণ্যের খুচরো বিপণনে।

এ দিন শহরে স্টিল জংশনের নতুন একটি কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন নরেন্দ্রন। সেখানে তিনি জানান, চলতি অর্থবর্ষে ১২,০০০ কোটি টাকা লগ্নির পরিকল্পনা করেছিলেন তাঁরা। এর মধ্যে ৮,০০০ কোটি দেশে এবং ৪,০০০ কোটি বিদেশে। কিন্তু ইস্পাত শিল্পে মন্দার জন্য লগ্নির পরিমাণ ৪,০০০ কোটি টাকা ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন টাটা স্টিল কর্তৃপক্ষ। নরেন্দ্রন বলেন, ‘‘গাড়ি শিল্পের পরিস্থিতি খারাপ হওয়া, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে আর্থিক সমস্যা-সহ বেশ কিছু কারণে দেশে এবং বিদেশে ইস্পাতের চাহিদা কমেছে। সে কারণেই চলতি অর্থবর্ষে লগ্নি কমানোর সিদ্ধান্ত।’’

ইস্পাত শিল্পে ঘুরে ফিরে মন্দা আসাটা নতুন কিছু নয়। বেজিং অলিম্পিক্সের আগে তার পরিকাঠামো তৈরির জন্য ইস্পাতের চাহিদা বাড়ে। তার পরেই বিশ্ব মন্দার ঝাপটা এসে লাগে এই ক্ষেত্রে। আবার কয়েক বছর আগে ভারতে পরিকাঠামো ক্ষেত্রে বড় লগ্নির কাঁধে ভর করে ইস্পাতের চাহিদা মাথা তোলে। সেখানেই এখন ফের ভাটার টান। সংস্থার সম্প্রসারণ বা ইতিমধ্যে হাতে নেওয়া প্রকল্প বন্ধ হবে না বলে আশ্বাস দিলেও নরেন্দ্রনের বক্তব্য, ‘‘প্রকল্প সম্প্রসারণের কাজ কিছু সময়ের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হবে। নতুন প্রকল্প হাতে নেওয়ার জন্যও কিছুটা বেশি সময় নেব।’’