• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অনলাইনে জিনিস পেয়েও অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও ৭০ হাজার টাকা

Online Fraud
প্রতীকী ছবি

অনলাইন প্রতারণার শিকার হলেন এ বার দমকলের এক আধিকারিক। গত মাসে নিজের মোবাইল থেকে অনলাইনে গৃহস্থালি জিনিস কেনার বরাত দিয়েছিলেন ওই আধিকারিকের স্ত্রী। অভিযোগ, চলতি মাসের শুরুর দিকে ওই আধিকারিক ও তাঁর স্ত্রীর রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের দু’টি অ্যাকাউন্ট থেকে সত্তর হাজার টাকা গায়েব হয়ে যায়।  অপরাধীদের খুঁজে বার করার আবেদন জানিয়ে গোয়েন্দা প্রধানকে চিঠি দিয়েছেন লালবাজার দমকল কেন্দ্রের ওই ওসি।

পুলিশ সূত্রের খবর, ওই ওসি তাপস কুশারী হাওড়ার বটানিক্যাল গার্ডেন এলাকার বাসিন্দা। তাঁর স্ত্রী অণিমাদেবী ১৪ জুন নিজের মোবাইল থেকে একটি অনলাইন সংস্থায় গ্যাসের ওভেন কিনতে চেষ্টা করেন। তাঁর ডেবিট কার্ডে কাজ না হওয়ায় তিনি স্বামীর মোবাইল থেকে বরাত দেন। নির্দিষ্ট সময়ে সেটি পেয়েও যান। পুলিশকে তাপসবাবু জানান, চলতি মাসের ১৫ তারিখে অণিমাদেবী এটিএমে গিয়ে জানতে পারেন, তাঁর অ্যাকাউন্টে টাকাই নেই! পরদিনই তাপসবাবু এটিএমে গিয়ে দেখেন, তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকেও পঁয়ত্রিশ হাজার টাকা গায়েব। ব্যাঙ্কে গিয়ে জানতে পারেন, ৭ থেকে ১৪ জুলাইয়ের মধ্যে তাঁদের দু’জনের অ্যাকাউন্ট থেকে মোট সত্তর হাজার টাকা গায়েব হয়েছে। তাঁদের দাবি, অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তোলার কোনও এসএমএস তাঁরা পাননি।

লালবাজারের ব্যাঙ্ক প্রতারণা শাখার এক আধিকারিক বলেন, “গ্রাহক কিছু ভুল না করলে এই ধরনের অপরাধ হতে পারে না। 

ওই আধিকারিক নিশ্চয়ই কিছু অজানা অ্যাপ ডাউনলোড করেছিলেন যা ওঁদের মোবাইলের সঙ্গে সংযোগ হয়ে গিয়েছিল। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।”

লালবাজার সূত্রের খবর, লকডাউনে এই ধরনের সাইবার অপরাধ বেড়েছে। গত তিন মাসে ব্যাঙ্ক প্রতারণা শাখায় দিনে গড়ে ১০-১৫টি করে অভিযোগ আসছে। লালবাজারের এক কর্তার পরামর্শ, “অনলাইনে জিনিস কেনার সময়ে ডেবিট কার্ডের যাবতীয় তথ্য গোপন রাখবেন। নিজের ডেবিট কার্ডের তথ্য অন্যের সঙ্গে শেয়ার করবেন না।” পাশাপাশি অনলাইন কেনাকাটায় দক্ষ না হলে এই প্রযুক্তি ব্যবহার না করার পরামর্শ দিচ্ছেন সাইবার আধিকারিকেরা। 

লালবাজারের পরামর্শ, অজানা উৎস থেকে কোনও লিঙ্ক ডাউনলোড করবেন না। ব্যাঙ্কের পরিচয় দিয়েও এটিএম কার্ডের তথ্য চাইলে দেবেন না। সন্দেহ হলে দ্রুত নিজের ব্যাঙ্কে যোগাযোগ করুন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন