এ যেন ঠিক হিন্দি সিনেমার দৃশ্য। হাসপাতালের শৌচালয়ের বাইরে রয়েছেন দুই নিরাপত্তা রক্ষী। ভিতরে চিকিৎসাধীন বন্দি। আধ ঘণ্টা হয়ে গেলেও বাইরে আসছে না ওই বন্দি। বেশ কয়েক বার ডাকাডাকির পরেও সাড়া নেই। শেষ পর্যন্ত দরজা ভেঙে দেখা গেল বন্দি উধাও! শৌচালয়ের জানলা ভাঙা।

ওই পুলিশ কর্মীদের বুঝতে অসুবিধা হয়নি যে, চিকিৎসাধীন বন্দি পালিয়েছে। এই ঘটনায় সোমবার রাতে তোলপাড় পড়ে যায়। তবে জালনা ভেঙে, তার পাশের পাইপ বেয়ে পালিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি। ৪ ঘণ্টার মধ্যেই বিচারাধীন বন্দি রাজু ওরফে গোলাম হুসেন মণ্ডলকে বেলগাছিয়া ব্রিজের তলা থেকে গ্রেফতার করে টালা থানার পুলিশ।

উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর থানার একটি মামলায় গ্রেফতার হওয়ার পর দমদম সেন্ট্রাল জেলে  ছিল রাজু। অসুস্থ হওয়ায় তাকে আরজি কর হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। রাজু হাসপাতালের পাঁচ তলায় ১১ নম্বর বেডে ভর্তি ছিল। তার সঙ্গে জেলের দুই রক্ষীও নিরাপত্তার দায়িত্বে সেখানে ছিলেন।

আরও পড়ুন: পুলিশ সেজে ডাকাতি বাড়িতে, গ্রেফতার দুই

আরও পড়ুন: জাগুয়ারের গতি জানতে ডেটা রেকর্ড চায় পুলিশ

আরও পড়ুন: মৃতের চোখ খুবলে নিল ইঁদুর

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাত ১১টার সময় রাজু শৌচালয়ে যায়। পুলিশ জানিয়েছে, ১১টা থেকে ১২টার মধ্যে ওই বন্দি হাসপাতালের জানলা ভেঙে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার পর দমদম সংশোধনাগার কর্তৃপক্ষের তরফে টালা থানায় অভিযোগ করা হয়। রাতেই হাসপাতাল এবং সংলগ্ন এলাকায় তল্লাশি শুরু হয়। রাত সাড়ে তিনটে নাগাদ তাকে বেলগাছিয়া ব্রিজের তলায় পাওয়া যায়। মঙ্গলবার তাকে শিয়ালদহ আদালতে তোলা হবে। এ দিকে এই ঘটনায় ওই দুই নিরাপত্তারক্ষীর কোনও গাফিলতি ছিল কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।