• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রাজ্যের বিরুদ্ধে নালিশ তৃণমূল-চালিত বোর্ডের

TMC
প্রতীকী ছবি।

উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ টাকা দেওয়া নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তুলল তৃণমূল পরিচালিত জেলা পরিষদই। অভিযোগ, রাজ্যের অন্যান্য জেলার তুলনায় জলপাইগুড়ি জেলাকে বরাদ্দ কম দেওয়া হচ্ছে। এই বিষয়ে তৃণমূলের জেলা সভাপতিকে প্রয়োজনীয় হস্তক্ষেপ করতে দাবি জানালেন জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের সদস্যরা। রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রীর সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলার আশ্বাস দিয়েছেন দলের জেলা সভাপতি কৃষ্ণকুমার কল্যাণী।

দলের জেলা সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পরে মঙ্গলবারই প্রথম জেলা পরিষদে আসেন তিনি। জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরা বর্মণ, সহকারী সভাধিপতি দুলাল দেবনাথ ও অন্য সদস্যরা কৃষ্ণকুমার কল্যাণীকে পুষ্পস্তবক দিয়ে সংবর্ধনা জানান । এরপর জেলা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন জেলা সভাপতি। 

মঙ্গলবার বৈঠক শেষে কৃষ্ণকুমার কল্যাণী বলেন, ‘‘সভাপতি হওয়ার পরে সশরীরে জেলা পরিষদে আসতে না পারলেও সভাধিপতি, সহকারী সভাধিপতি ও অন্য সদস্যদের সঙ্গে সব সময়েই যোগাযোগ রয়েছে। জেলা পরিষদের সদস্যরা জানালেন রাজ্যের অন্যান্য জেলার তুলনায় জলপাইগুড়ি জেলাকে উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ টাকা নিয়ে রাজ্য সরকারের তরফে বিমাতৃসুলভ আচরণ করা হচ্ছে। এই বিষয়ে পঞ্চায়েত মন্ত্রীর সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করব।’’ তিনি জানান, জেলার উন্নয়নের কাজ সব এলাকায় যাতে সমানভাবে করা যায় সেদিকে জেলা পরিষদকে গুরুত্ব দিতে বলেছেন। জেলার বিভিন্ন প্রান্তে জেলা পরিষদের জমি দখল করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ। দ্রুত সেই জমি উদ্ধার করার জন্যেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা চালানো হবে বলে জানিয়েছেন কৃষ্ণ কুমার কল্যাণী। 

এ দিন দলের জেলা সভাপতির কাছে জল্পেশ মেলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আনার জন্য জেলা পরিষদের সভাধিপতি অনুরোধ জানান। সেই বিষয়ে কৃষ্ণকুমার কল্যাণী বলেন, ‘‘জল্পেশ মেলাকে ঘিরে জেলার বাসিন্দাদের মধ্যে এক বিশেষ আবেগ রয়েছে। আমরা মুখ্যমন্ত্রীকে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখার জন্য অনুরোধ জানাবো।’’

জেলা পরিষদের সহকারি সভাধিপতি দুলাল দেবনাথ বলেন, ‘‘আমরা দলের জেলা সভাপতির সঙ্গে আমাদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেছি। জলপাইগুড়ি জেলার উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ টাকা অন্য জেলা পরিষদের তুলনায় আমরা কিছু কম পাচ্ছি। এই বিষয়ে দলের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। জল্পেশ মেলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমরা আমন্ত্রণ জানিয়েছি।’’ মুখ্যমন্ত্রীকে মেলায় আসার জন্য দলের তরফে উদ্যোগী হওয়ার আবেদনও জানানো হয়েছে বলে জানান দুলাল।

বরাদ্দ কম মেলার অভিযোগের প্রসঙ্গে বিজেপির জলপাইগুড়ি জেলার সভাপতি বাপি গোস্বামী বলেন, ‘‘সরকার তৃণমূলের, জেলা পরিষদও তৃণমূলের। সেখানে এই ধরনের অভিযোগ খুবই বিস্ময়কর।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন