×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৭ জুন ২০২১ ই-পেপার

শিবসেনাকে ‘সাসপেন্স’-এ রেখেই দীপাবলির পর সিদ্ধান্ত বিজেপি-র

নিজস্ব প্রতিবেদন
২১ অক্টোবর ২০১৪ ১৩:৫৯

সময় যত গড়াচ্ছে মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন নিয়ে ‘সাসপেন্স’ ততই ঘনীভূত হচ্ছে। গত ১৫ অক্টোবর বিধানসভা নির্বাচনে মরাঠা মুলুক পাঁচমুখী লড়াই দেখেছিল। কিন্তু ফল প্রকাশের পর সে লড়াই কার্যত দ্বিমুখী হয়ে উঠেছে। শিবসেনা বনাম নির্দল। সরকার গঠনের মুখ্য দাবিদার বিজেপি কার সঙ্গে হাত মেলাবে তাই নিয়েই লড়াই। আর এই লড়াইকে ঘিরেই তৈরি হয়েছে ‘সাসপেন্স’। শিবসেনা না নির্দল? কে বাজিমাত করবে তা দেখতে হলে দীপাবলি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে দেশবাসীকে। কারণ, মঙ্গলবার বিজেপির তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে দীপাবলীর পরেই।

সুতরাং, আরও দু’তিন দিনের অপেক্ষা।

উদ্ধব ঠাকরে

Advertisement

অমিত শাহ

কেন এই রাজনৈতিক ডামাডোল?

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ‘একলা চলো’ নীতিতে ভর করে মহারাষ্ট্রে এই প্রথম বিজেপি একশোটিরও বেশি আসনে জিতে নিজেদের পাল্লা ভারী করেছে। অন্য দিকে, দ্বিতীয় শক্তিশালী দল হিসাবে উঠে এসেছে শিবসেনা। জোট ভাঙার পরে একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে আত্মপ্রকাশ করা বিজেপি প্রাক্তন জোটসঙ্গী শিবসেনাকে ‘তোয়াক্কা’ না করারই পথ বেছে নেয়। কিন্তু সে ক্ষেত্রেও ‘সমস্যা’ দেখা দেয়। কেননা, এই মুহূর্তে বিজেপির আসন সংখ্যা ১২২। সরকার গঠনে ম্যাজিক ফিগার-এর জন্য দরকার আরও ২৩। সুযোগ বুঝেই প্রথমে ঝাঁপিয়ে পড়ে এনসিপি। তারা বাইরে থেকে বিজেপিকে সমর্থনের কথা জানায়। কিন্তু তাদের হাত ধরার পক্ষে সায় দেননি বিজেপি-র শীর্ষ নেতৃত্ব। ফলে পড়ে রইল শিবসেনা এবং নির্দল। এ রকম অবস্থায় কার হাত ধরবে বিজেপি? জল্পনা চলছেই।

সরকার গঠনের ক্ষেত্রে বিজেপি ফের ‘একলা চলো’ নীতি অনুসরণ করবে, না কি শিবসেনার হাত ধরবে— ‘সাসপেন্স’-এর শুরু সেখান থেকেই।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন, নির্দলের দিকে হাত বাড়ালেও দলের একাংশ কিন্তু এখনও ঝুঁকে রয়েছে শিবসেনার দিকেই। কারণ?

শিবসেনা বিজেপি-র পুরনো শরিক। ভোটের আগে জোট ভাঙলেও কেন্দ্রে কিন্তু শিবসেনার সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় আছে বিজেপি-র। আবার মহারাষ্ট্রে শিবসেনার সঙ্গে জোট বেঁধে পুরসভা ও পঞ্চায়েত চালাচ্ছে বিজেপি। সে দিক থেকে যদি হাত ধরতে হয়ে তা হলে শিবসেনাকেই বেছে নেওয়া উচিত বলে দলের একাংশের মত। তবে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব খুব বেশি প্রাধান্য দিতে চাইছেন না সেনাকে। ভোটের আগে যে কারণে বিচ্ছেদ ঘটেছিল, তার পুনরাবৃত্তি চান না তাঁরা। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, শেষ পর্যন্ত যদি শিবসেনার হাত ধরতেই হয়, তা হলে কোনও ভাবেই তাদের চাহিদার কাছে মাথা নোয়াবে না বিজেপি।

অন্য দিকে, শিবসেনা প্রথম দিকে অনড় থাকলেও এনসিপি বাইরে থেকে বিজেপিকে সমর্থনের প্রস্তাব দেওয়ায় কিছুটা ‘কোণঠাসা’ হয়ে পড়ে। কিছুটা সুর নরমের রাস্তায় আসে তারা। এখন দেখার সুর নরম করলেও শিবসেনাকেই কি সফরসঙ্গী করবে বিজেপি? ‘সাসপেন্স’-এ শিবসেনাও। বিজেপি সূত্রে খবর, দীপাবলির পর মুম্বই যাবেন দলীয় নেতা তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। এখন শুধু প্রহর গোনার পালা।

Advertisement