Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

‘দিদি’ নয়, ‘দুহিতা’, ভোটের আগে বাংলার ‘নিজের মেয়ে’ হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৪:৫৭
 ব্যানারে তৃণমূলের নতুন স্লোগান। শনিবার।

ব্যানারে তৃণমূলের নতুন স্লোগান। শনিবার।
নিজস্ব চিত্র

বাংলার ভোটের প্রাক্কালে ‘দিদি’ থেকে ‘দুহিতা’ হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এত দিন তৃণমূলের বিভিন্ন স্লোগানে প্রাধান্য পেয়েছে সম্বন্ধসূচক ‘দিদি’ শব্দটি। যেখানে বাংলার প্রশাসনিক প্রধান হিসাবে ‘দিদি’কে তুলে ধরা হয়েছে সব সমস্যা সমাধানের উপায় হিসাবে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় ‘দিদিকে বলো’-র কথা। অর্থাৎ বার্তাটি এই যে, তাঁর কাছে গেলে সব সমস্যার সমাধান হবে। কিন্তু ভোটের আগে তৃণমূলনেত্রী ভোটপ্রার্থী। যে কারণেই তিনি হলেন ‘বাংলার নিজের মেয়ে’। বিধানসভা ভোটের প্রাক্কালে দলের নতুন স্লোগান শনিবার সামনে আনল তৃণমূল। এক লাইনের সেই স্লোগান ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’। এই স্লোগানকে হাতিয়ার করেই আসন্ন নির্বাচনে ‘ঝাঁপাবে’ দল। এমনটাই জানিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব।

শনিবার তৃণমূল ভবনে এই স্লোগানের আনুষ্ঠানিক সূচনা করেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক সুব্রত বক্সী। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন, সুখেন্দু শেখর রায় এবং কাকলি ঘোষদস্তিদার। নতুন স্লোগান সম্পর্কে সুব্রত বক্সী বলেন, ‘‘এই স্লোগানের মধ্য দিয়ে বাংলার সমস্ত মানুষের কাছে তৃণমূলের হাজার হাজার কর্মীরা পৌঁছবেন। সারা রাজ্য ঘুরে আমাদের কর্মীরা উপলব্ধি করেছেন বাংলার সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও সম্প্রীতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যাযয়ের হাতেই সুরক্ষিত। তিনিই পারবেন তা রক্ষা করতে।’’

তৃণমূল-এর বরাবরেরই অভিযোগ ‘অবাঙালি’, ‘বহিরাগত’দের এনে ক্ষমতা দখল করতে চাইছে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে অভিযোগের সার কথা, যাঁরা বাংলার মানুষকে চেনেন না, বাংলার সংস্কৃতি জানেন না, তাঁরা নীল বাড়ি দখলের লড়াইয়ে অগ্রণী ভূমিকা নিচ্ছেন। এর বিরুদ্ধে বাংলার মানুষ, বাংলার নিজস্ব সংস্কৃতিকেই হাতিয়ার করছে তৃণমূল। তৃণমূলের বিভিন্ন জনসভায় দলীয় নেতানেত্রীদের কথা থেকে তা পরিষ্কার। দলের নতুন স্লোগানেও সেই ভাবনারই চিহ্ন স্পষ্ট। অর্থাৎ এ বারের ভোটে মমতা প্রার্থী হচ্ছেন ‘বাংলার নিজের মেয়ে’ হিসাবে।

Advertisement

নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক দলগুলির স্লোগান কর্মীদের সর্বদাই উৎসাহ যোগায়। ওই স্লোগানকে কেন্দ্র করেই ‘আওয়াজ’ তোলেন কর্মীরা। তাই ভোট এলে নতুন নতুন স্লোগান তৈরি করে রাজনৈতিক দলগুলি। এর আগে তৃণমূলেরই ‘হয় এ বার নয়, নেভার’, ‘উল্টে দেখুন, পাল্টে গেছে’র মতো স্লোগান প্রবল জনপ্রিয় হয়েছে। ২০১১ সালে বিধানসভা ভোটে ‘বদলা নয়, বদল চাই’ স্লোগান তুলেছিল তৃণমূল। ওই নির্বাচনেই দীর্ঘ ৩৫ বছরের বাম শাসনের অবসান হয়। এরপর ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের স্লোগান ছিল ‘ডাক দিয়েছে তৃণমূল, বিজেপি হবে নির্মূল’। ওই নির্বাচনে তৃণমূলের আসন সংখ্যা কমলেও, জনপ্রিয় হয়েছিল স্লোগানটি। এ বার ফের নতুন স্লোগান।

আগের নির্বাচনগুলিতে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই স্লোগান তৈরি করেছেন। তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, এ বারের স্লোগান তাঁর তৈরি নয়। ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ তৈরি করেছেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর (পিকে)। এর আগের ‘দিদিকে বলো’ ও ‘বাংলার গর্ব মমতা’ তাঁরই তৈরি। ‘দিদিকে বলো’ বেশ জনপ্রিয়ও হয়েছিল। তাই বাংলার আগামী বিধানসভা ভোটে স্লোগানের দায়িত্বে ছিলেন প্রশান্তই। পিকে-র স্লোগানগুলিতে ব্যক্তি মমতাই বেশি প্রাধান্য পেয়ে এসেছে। নতুন স্লোগানেও সেটা লক্ষ্যণীয়।

এ বারের ভোটে তৃণমূল যখন বিজেপি-র বিরুদ্ধে ‘বহিরাগত’ তকমা লাগিয়ে সরব হচ্ছে, সেই আবহে মমতাকে বাংলার ‘নিজের মেয়ে’ সম্বোধন করে বার্তা দিতে চাইল তৃণমূল। এ প্রসঙ্গে সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘নির্বাচনের প্রাক্কালে অনেক রাজনৈতিক দল ঘুরে বেড়াচ্ছে। তন্ন তন্ন করে নিজেদের মুখ খুঁজে বেড়াচ্ছে তারা। আমরা তৃণমূল খুঁজছি না। কারণ, আমাদের ঘরের মধ্যে একটি মেয়ে রয়েছে। যাঁর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যিনি গত ১০ বছরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে মানুষের সেবা করেছেন। তাই সবাই এক বাক্যে বলছে, আমাদের প্রিয় বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতাই হবেন, আগামী দিনের মুখ্যমন্ত্রী।’’

আরও পড়ুন

Advertisement