Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

WB Corona: ‘জীবন নিয়ে ছেলেখেলা হচ্ছে’? বাবার মৃত্যুর জন্য চিকিৎসকদের দায়ী করলেন তরুণ কুমারের নাতি সৌরভ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৬ মে ২০২১ ১৬:১০
বাবার আকস্মিক চলে যাওয়া এখনও মেনে নিতে পারছেন না সৌরভ।

বাবার আকস্মিক চলে যাওয়া এখনও মেনে নিতে পারছেন না সৌরভ।

গত সোমবার করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছিলেন তরুণ কুমারের জামাই পান্নালাল বন্দ্যোপাধ্যায়। টিকা নেওয়ার ৬ দিনের মাথায় অর্থাৎ গত শনিবার প্রয়াত হন তিনি। বাবাকে হারান অভিনেতা সৌরভ বন্দ্যোপাধ্যায়। সৌরভের স্ত্রী অভিনেত্রী ত্বরিতা চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, পুরোপুরি সুস্থ ছিলেন পান্নালাল। কোনও রকম শারীরিক অসুবিধাও ছিল না তাঁর। টিকা নেওয়ার পরেই অসুস্থ বোধ করতে শুরু করেন তিনি। প্রয়াত শ্বশুরকে নিয়ে কথা বলতেই বলতেই আক্ষেপ অভিনেত্রীর কণ্ঠে, “জানি না টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার জন্যই হল কি না এমনটা।”

ত্বরিতার পরেই আনন্দবাজার ডিজিটালের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়ে সৌরভের সঙ্গে। কোনও রাখঢাক না করেই সৌরভের স্পষ্ট কথা, “টিকা নিয়ে আমি কোনও সন্দেহ প্রকাশ করছি না। টিকা প্রত্যেকের নেওয়া উচিত। কিন্তু চিকিৎসকরাই জানেন না, টিকাটা কখন ও কী ভাবে নেওয়া প্রয়োজন। এক এক বার তাঁরা এক এক রকম কথা বলছেন। এটা কি মানুষের জীবন নিয়ে ছেলেখেলা হচ্ছে?”। অর্থাৎ বাবার মৃত্যুর জন্য সরাসরি চিকিৎসকদের কাঠগড়ায় তুলছেন সৌরভ। অভিনেতার দাবি, তাঁর মতো অনেকেই চিকিৎসকদের গাফিলতির শিকার হয়ে হারিয়েছেন আপনজনকে। সেই তালিকায় রয়েছেন বেশ কিছু তারকাও। নাম না করেই সৌরভ বললেন, “খুবই জনপ্রিয় একজন গায়ক এই খবরটা পেয়ে আমাকে ফোন করেছিলেন। সারেগামাপা-র মঞ্চে এ বার বিচারক হিসেবেও ছিলেন তিনি। আমাকে জানালেন, তাঁর চেনাশোনা অনেকেই করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন।”

বাবার আকস্মিক চলে যাওয়া এখনও মেনে নিতে পারছেন না সৌরভ। ৬৬ বছর বয়স হলেও বিশেষ কোনও অসুস্থ তা ছিল না পান্নালালের। এমনকি করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েও সম্পূর্ণ সুস্থ ছিলেন তিনি। নিয়ম মতো দ্বিতীয় ডোজের সময় বাবাকে টিকাকরণ কেন্দ্রে নিয়ে গিয়েছিলেন স্বয়ং সৌরভ। কিন্তু সেই ডোজ নেওয়ার ৬ দিনের মাথায় ওলটপালট হয়ে গেল সব কিছু। মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন অভিনেতার বাবা। তার পর থেকে স্বাভাবিক ভাবে এই টিকা বা টিকা দেওয়ার দায়িত্বে থাকা মানুষগুলির বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক করছে তাঁর মনে। “মানুষের জীবন নিয়ে কি গবেষণা চালানো হচ্ছে? চিকিৎসকরা এই বিষয়গুলো কেন খতিয়ে দেখছেন না? সাধারণ মানুষ কাকে ভরসা করবে তা হলে?”, এক বারও না থেমে প্রশ্ন করে গেলেন ক্ষুব্ধ সৌরভ।

চেষ্টা করেও সৌরভ বাঁচাতে পারেননি বাবাকে। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগেই থেমে গিয়েছিল তাঁর হৃদস্পন্দন। সারাক্ষণ দৌড়ঝাঁপ করতে ভালবাসা মানুষটার নিথর হয়ে থাকার সেই দৃশ্য ভয় বাড়িয়ে দিয়েছে সৌরভের। মা মনামী বন্দ্যোপাধ্যায়কে আর করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেবেন কি না সে বিষয়েও ভাবনাচিন্তা করছেন অভিনেতা। নিজেও টিকা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তার সঙ্গেই চিকিৎসকদের আরও দায়িত্বশীল হওয়ার বার্তা দিয়েছেন সদ্য পিতৃহারা অভিনেতা।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement