বোরখা পরে মঞ্চে উঠেছিলেন কন্যা। তা নিয়ে কটাক্ষ শুনতে হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার মোক্ষম জবাব দিলেন সুরকার এ আর রহমান। জানিয়ে দিলেন, স্বাধীনভাবে বেঁচে থাকার অধিকার রয়েছে সকলের। তবে বাগবিতণ্ডায় যাননি তিনি। শধুমাত্র #ফ্রিডমটুচুজ় লিখেই কথা সেরেছেন।

ঘটনার সূত্রপাত চলতি সপ্তাহের শুরুতে। ‘স্লামডগ মিলিয়নেয়ার’ ছবির ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষে মুম্বইয়ে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়েছিল। সেখানে বাবার সম্পর্কে দু’-চার কথা বলতেবোরখা পরে মঞ্চে ওঠেন রহমান-কন্যা খাতিজা। বিষয়টি সামনে আসতেই সমালোচনা শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। এ দিকে বিশ্বব্রহ্মাণ্ড ঘুরে বেড়ান, অথচ মেয়েকে রক্ষণশীল জীবনযাপনে বাধ্য করেছেন বলে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন নেটিজেনদের একাংশ।

যদিও খাতিজার নামে তৈরি একটি আনভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টের তরফে যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করা হয়। বোরখায় স্বচ্ছন্দ বোধ করেন খাতিজা এবং নিজের ইচ্ছাতেই তিনি ওই পোশাক পরে মঞ্চে উঠেছিলেন বলে জানানো হয়। তবে তাতেও থামেনি বিতর্ক।

এ আর রহমানের টুইট।

আরও পড়ুন: গুরুতর অসুস্থ সোনু, হাসপাতাল থেকে কী বললেন অনুরাগীদের​

আরও পড়ুন: চোখের ইশারার পর প্রিয়ার চুম্বন দৃশ্য ফের ঝড় তুলল নেট দুনিয়ায়​

শেষমেশ জবাব দিতে এগিয়ে আসেন এ আর রহমান নিজে। বুধবার নিজের টুইটার হ্যান্ডলে একটি ছবি পোস্ট করেন তিনি। তাতে শিল্পপতি মুকেশ অম্বানীর স্ত্রী নীতার সঙ্গে হাসিমুখে পোজ দিতে দেখা যায় রহমানের স্ত্রী সায়রাবানু এবং দুই কন্যা খাতিজা ও রহিমাকে। ছবিতে ওড়না মাথায় ছিল সায়রার। খাতিজার পরনে ছিল বোরখা। রহিমা অবশ্য মাথাও ঢাকেননি। পরেননি বোরখাও। ছবিটি পোস্ট করে রহমান লেখেন, ‘‘নীতা অম্বানীজির সঙ্গে আমার পরিবারের তিন অমূল্য রত্ন মহিলা। #ফ্রিডমটুচুজ়।’’

এমনিতে অল্প কথার মানুষ এ আর রহমান। পেশার তাগিদে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে মুখ দেখালেও, প্রচারের আলো থেকে বরাবরই দূরে থাকেন অস্কারজয়ী এই সুরকার। তবে যে ভাবে সমালোচনার জবাব দিয়েছেন তিনি, তাতে নেটিজেনদেরও অনেকেই তাঁর প্রশংসা করেছেন।