Advertisement
১৭ জুলাই ২০২৪
Kanchan-Pinky divorce

আইনি পথে আলাদা হলেন কাঞ্চন-পিঙ্কি, বিবাহবিচ্ছেদ প্রসঙ্গে কী বললেন দুই ‘প্রাক্তন’?

বিগত কয়েক বছর ধরে অভিনেতা-বিধায়ক কাঞ্চন মল্লিক এবং তাঁর স্ত্রী পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাম্পত্য কলহ চলছিল। সম্প্রতি বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে দম্পতির।

Bengali actor Kanchan Mullick and Pinky Banerjee are now officially divorced

(বাঁ দিকে) কাঞ্চন মল্লিক, পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: সংগৃহীত।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৯:৫৯
Share: Save:

অবশেষে দীর্ঘ আইনি জটিলতার অবসান। অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক ও পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিবাহবিচ্ছেদ সম্পন্ন হয়েছে। সূত্রের খবর, গত ১০ জানুয়ারি তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদের পক্ষে রায় দিয়েছে আদালত।

কয়েক বছর আগে কাঞ্চন-পিঙ্কির বৈবাহিক জীবনে ঝড় ওঠে। একে অপরের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। বেশ কিছু দিন চলতে থাকে অভিযোগ এবং পাল্টা অভিযোগের পালা। এ দিকে টেলি অভিনেত্রী শ্রীময়ী চট্টরাজের সঙ্গে কাঞ্চন ‘পরকীয়া’য় জড়িয়েছেন বলে খবর ছড়ায় টলিপাড়ায়। তার পর থেকেই দম্পতি আলাদা থাকতে শুরু করেন। নিন্দকরা বলেন, কাঞ্চন-পিঙ্কির বিচ্ছেদের নেপথ্যে অভিনেতার ‘পরকীয়া’ই দায়ী। পরবর্তী সময়ে একে অপরের থেকে বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে পরে তারা আদালতের দ্বারস্থ হন। অবশেষে গত মাসে যুগলের আইনি বিচ্ছেদ সম্পন্ন হয়েছে। টলিপাড়ায় এ রকম খবরও শোনা যাচ্ছে বিবাহবিচ্ছেদ পেতে পিঙ্কিকে মোটা টাকা খোরপোশ দিতে হয়েছে কাঞ্চনকে।

এই প্রসঙ্গে আনন্দবাজার অনলাইনের তরফে কাঞ্চনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে অভিনেতা খুব বেশি মন্তব্য করতে চাননি। তাঁর সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ‘‘খবরটা সত্য। এর বেশি আমি কিছু বলতে চাই না।’’ অন্য দিকে পিঙ্কি বলেন, ‘‘হ্যাঁ। আমাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে। কাজের মধ্যে ডুবে আছি। ভাল আছি।’’ কাঞ্চন-পিঙ্কির পুত্র ওশ এখনও প্রাপ্তবয়স্ক হয়নি। তাই আপাতত আদালত তাকে মায়ের সঙ্গেই থাকার অনুমতি দিয়েছে।

এই মুহূর্তে পিঙ্কি ‘স্বয়ংসিদ্ধা’ এবং ‘কনস্টেবল মঞ্জু’ সিরিয়ালের শুটিংয়ে ব্যস্ত। পাশাপাশি নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলও খুলেছেন তিনি। অন্য দিকে উত্তরপাড়ার বিধায়ক কাঞ্চনকে এখন শ্রীময়ীর সঙ্গে প্রায়শই টলিপাড়ার বিভিন্ন পার্টিতে দেখা যায়। অভিনেত্রীকে কাঞ্চনের সঙ্গে সমাজমাধ্যমে ছবিও পোস্ট করতে দেখা যায়। কাঞ্চন যে শ্রীময়ীর সঙ্গে নতুন জীবন শুরু করতে চান, সে খবরও টলিপাড়ার দীর্ঘ দিন ধরেই শোনা যাচ্ছে। কিন্তু সেখানে বাধা ছিল বিবাহবিচ্ছেদ। আগামী দিনে কাঞ্চন-শ্রীময়ী সাত পাকে বাঁধা পড়েন কি না দেখা যাক।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE